প্রতিদিন গোমূত্র পান করে করোনা থেকে সুরক্ষা পেয়েছি- বিজেপি এমপি প্রজ্ঞা ঠাকুর

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) মে ১৭, ২০২১, সোমবার, ৯:১৫ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৫ অপরাহ্ন

ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপি দলীয় এমপি প্রজ্ঞা ঠাকুর বলেছেন, আমি প্রতিদিন গোমূত্র পান করি। তাই আমার করোনা হয়নি। এ ছাড়া তিনি দাবি করেন, গোমূত্র প্রাণরক্ষার নিরাপদ মাধ্যম। এমন মন্তব্য এর আগেও তিনি করেছেন। তবে নতুন করে আবারো একই কথা বললেন। তার দবি, করোনা ভাইরাসে ফুসফুসের যে ক্ষতি হয় তা প্রতিকার করতে পারে গোমূত্র। দলীয় এক সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।
প্রজ্ঞা ঠাকুর বলেন, যদি আমরা খাঁটি দেশি গরুর মূত্র প্রতিদিন পান করি, তাহলে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ফুসফুসকে সুরক্ষা দিতে পারে। আমি গভীরভাবে বেদনাবোধ করি। কিন্তু প্রতিদিনই পান করি গোমূত্র। এ জন্যই আমাকে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে কোনই ওষুধ ব্যবহার করতে হয় না। আমার করোনাও হয়নি। উল্লেখ্য, প্রজ্ঞা ঠাকুর বহু বিতর্কিত ভারতে। তিনি বিজেপির জাফরান পোশাক পরেন এবং নিজেকে একজন সন্ন্যাসিনী হিসেবে পরিচয় দেন। দু’বছর আগে তিনি মন্তব্য করেন যে, গোমূত্রের সঙ্গে গরুর অন্যান্য বর্জ্য মিশ্রিত করে তা ব্যবহার করায় ক্যান্সার ভাল হয়েছে তার। করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার লক্ষণ নিয়ে তাকে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে দিল্লির এআইআইএমএস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। করোনা ভাইরাসের বিকল্প চিকিৎসার বিষয়ে বার বার চিকিৎসকরা সতর্ক করেছেন। তারা বলেছেন, এসব পদ্ধতি বৈজ্ঞানিকভাবে অপ্রমাণিত। ইন্ডিয়ান মেডিকেল এসোসিয়েশন বলেছে, গোমূত্র অথবা গোবর করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে চিকিৎসায় ব্যবহারের পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক তথ্যপ্রমাণ নেই। এ মাসের শুরুর দিকে উত্তর প্রদেশে বিজেপির এমএলএ সুরেন্দ্র সিং দাবি করেন, গোমূত্র পান করে তিনি করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পেয়েছেন। তিনি এ জন্য এক গ্লাস ঠাণ্ডা পানির সঙ্গে মিশিয়ে গোমূত্র পান করার সুপারিশ করেন। উল্লেখ্য, গত বছর পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি প্রধান দীলিপ ঘোষ ঘোষণা দেন, গোমূত্র পানে আমার কোনো অস্বস্তি নেই।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আহাদ

২০২১-০৫-১৮ ১৭:২৩:১১

প্রিয় পত্রিকা 'মানবজমিন'ও কি ভারতের 'র'-এর এজেন্ট ঢুকে পড়েছে? আমি এ নিউজ মতামত দিয়েছি কিন্তু তা প্রকাশ করা হইনি।

বাংলাদেশি

২০২১-০৫-১৮ ১৬:৪৩:০৫

এদের নিয়ে বেশি হাসাহাসি করা খুবই অনায্য বিশেষ করে সেই জনগোষ্টির জন্য যারা স্বাধীন থাকার সুযোগ পায়ে ঠেলে গোমূত্র পানকারীদের রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক উপনিবেশে পরিনত হয় (তুলনায় ব্রিটিশ উপনিবেশ স্বর্নযুগ মনে হয়)। গরু যাদের প্রভু তারাই তোমাদের ঔপনিবেশিক প্রভু -- এই দাসত্বের চক্র মানতে না চাও আবরার ফাহাদ? তাদের সেবাদাস মাফিয়া আসছে লগি বৈঠা নিয়ে, ধর্ষন-সেঞ্চুরির মিষ্টি খাওয়া শেষ হলেই।

shah Alam pramanik

২০২১-০৫-১৮ ১১:০৩:৩৭

গণতান্ত্রিক দেশের নেতা যে মূর্খ হতে পারে এটি তার প্রমান।

nasir uddin

২০২১-০৫-১৮ ১০:৫৬:৫৯

Sick people. Sick in its entireity.

Samsulislam

২০২১-০৫-১৭ ২০:২৮:১৫

গো মূত্র কিন্তু ইন্সুলিনের কাজ করে|

Sadik md. iqball hos

২০২১-০৫-১৮ ০৮:২৬:৪৯

পাগলামির একটি সীমা থাকা উচিৎ ।

Arif

২০২১-০৫-১৭ ১৮:৫০:৪০

Murker dal , terrorist party

Ashraful Alam

২০২১-০৫-১৭ ১৭:৩৯:৪২

তাইতো মুসলিমরা গরুর মাংস খায়। মুত্র খেলে যে কাজ হবে মাংস খেলে বেশি কাজ হবে।

Masud Ahmed

২০২১-০৫-১৮ ০০:০২:০৭

গুরু কৃপা কর জ্ঞানহীনে, গুরু দয়া কর দীনজনে। বিজ্ঞানসম্মত চিন্তায় আসুন।

Masud Ahmed

২০২১-০৫-১৮ ০০:০১:৫৩

গুরু কৃপা কর জ্ঞানহীনে, গুরু দয়া কর দীনজনে। বিজ্ঞানসম্মত চিন্তায় আসুন।

আনছার

২০২১-০৫-১৭ ১০:০২:১৫

ইতর বিজেপি মৌলবাদী হিন্দুরা গোমূত্র পান করতেই করতেই ধংস হবে একদিন।

MD.ABDUL BAREK

২০২১-০৫-১৭ ২১:৩০:৫৯

বস্তা পচা তোমরা গরুর মূত্র আরও বেশি করে খাও

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status