কলকাতা কথকতা

কোভিড-কালে জোর করে সহবাসের ঘটনা বাড়ছে, বাড়ছে মানসিক নির্যাতনও

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

কলকাতা কথকতা (১ মাস আগে) মে ১৭, ২০২১, সোমবার, ৯:৩৬ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১:১২ অপরাহ্ন

চেঞ্জ ইন দ্য বিহেভেরিয়াল প্যাটার্ন ডিউরিং কোভিড-এ স্টাডি শীর্ষক রিপোর্টে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য। কোভিড কালে জোর করে সহবাস করার প্রবণতা বেড়েছে। স্বামী-স্ত্রী সম্পর্কে অনিচ্ছুক স্ত্রীর সঙ্গে সঙ্গম করার প্রবণতার বৃদ্ধিতে উদ্বিগ্ন সমাজকর্মী ও মনোবিদরা। ভারতীয় আইন অনুযায়ী স্ত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে উপগত হওয়া ধর্ষণের সমতুল্য অপরাধ। কিন্ত শতকরা নিরানব্বই শতাংশ ক্ষেত্রে অভিযোগ লিপিবদ্ধ হচ্ছেনা বলে আইন এ ক্ষেত্রে অসহায়। রিপোর্টে বলা হয়েছে, কোভিড-কালে পুরুষদের মধ্যে পর্ণ দেখার প্রবণতা বাড়ছে। এর ফলে স্ত্রীর সঙ্গে সহবাসে নারীর ইচ্ছা অনিচ্ছার আর কোনও মূল্য থাকছেনা। বিশিষ্ট সমাজকর্মী ডঃ মিরাতুন নাহার এর জন্যে কোভিড কাল কে দায়ী করতে নারাজ।
তাঁর  মতে, পুরুষ শাসিত সমাজে দীর্ঘদিন ধরেই এই ঘটনা ঘটে আসছে। মনোবিদ রত্নাবলী রায় তা স্বীকার করেও বলছেন, কোভিড-কালে প্রবণতা বেড়েছে। বিনোদনের অন্য সব মাধ্যম বন্ধ থাকায় মানুষ যৌন আনন্দে মত্ত হতে চাইছে। বিপরীতে সঙ্গিনী ইচ্ছুক না অনিচ্ছুক তা বিচার না করেই। অন্যদিকে কোভিড কালে মানসিক নির্যাতন বেড়েছে। মানুষ বেশিরভাগ সময়ই ওয়ার্ক ফ্রম হোম করায় বাড়িতে সময় কাটাচ্ছে বেশি। একে অন্যের দোষ ত্রুটি সম্পর্কে অনেক বেশি ওয়াকিবহাল হয়ে যাচ্ছে। ফলে, মানসিক পীড়ন, নির্যাতনের সংখ্যাও বাড়ছে। ইমোশন এর  জায়গায় খিল পড়ে যাওয়ার ফলে আবেগ বিষয়টি আর কাজ করছেনা। তাই, মানুষ আগের থেকে অনেক নির্মম হয়ে গেছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আব্দুল আলীম

২০২১-০৫-১৭ ২০:৪৩:৪৪

ফালতু পোস্ট। পুরুষ সহবাস বা যৌনসংগম করতে চাইলে মেয়েদের অনিচ্ছা হবে কেন? পরিশ্রম তো পুরুষরাই করে, মহিলারা শুধু আনন্দ সাগরে অবগাহন করে। তাই এধরণের অভিযোগ মেয়েদের জন্য বুমেরাং হবে।

আহাদ

২০২১-০৫-১৭ ১৫:১৬:৩১

এসব নিউজ অর্থ হতে পারে না। এসব নিউজ দিয়ে 'পরকীয়াকে' উৎসাহিত করা হচ্ছে।

mamun

২০২১-০৫-১৭ ১৪:১০:৩৬

সাংবাদিকের মাথা খারাপ হয়েছে।

Jewel

২০২১-০৫-১৭ ০০:৫৯:১৯

খুবই অদ্ভুত লাগে এসব নিউজ গুলো। স্বামী ও স্ত্রী একজন আরেকজনের পরিপূরক। ভালো লাগা খারাপ লাগা উভয়ের আলোচনা করার সুযোগ আছে,এর মধ্যে আইন/কোর্ট খুবই ছোটোলোকি বিষয়। সবকিছুতে আইন আদালত ভালো না।

Abdul hamid

২০২১-০৫-১৭ ০০:৫২:২৮

স্বামী জদি স্ত্রীর কচে খুশি হতে নাপারে অথবা স্ত্রী জদি স্বামীর কাচে খুশি হতে নাপারে তাহলে দোজন-ই পরকীয়া করবে, আর এই খবরটা পরকীয়াকে উৎসাহিত করা হয়েছে, যতসব

abu basher

২০২১-০৫-১৭ ১১:৪২:৩৯

Couldn't it be possible that those married ladies were already tired from the [virtual or in-person] orgasms that they had with their boyfriends? We should refrain from stereotyping married men - it's high time now that we call a spade a spade.

জামশেদ পাটোয়ারী

২০২১-০৫-১৭ ১১:০৭:৫৯

স্ত্রীরা দৈহিক সম্পর্ককে স্বামীর কাছে হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করে। প্রাকৃতিকগত ভাবেই নারীর চেয়ে পূরুষরা স্ত্রীকে বেশী কাছে পেতে চায়। আর নারীরা তাকে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করে। উভয়েরই একই সময়ে কাছে পেতে চাওয়ার আখাঙ্খা হবে এমন কোন কথা রাই। নারী এবং পুরুষ একজনের প্রয়োজনে অন্যজন সারা দিলে পরকীয়া নামক অপকর্মটি থাকতোনা। পরকীয়া না থাকলে সংসারে অশান্তি উল্লেকযোগ্য হারে কমে যেত।

আপনার মতামত দিন

কলকাতা কথকতা অন্যান্য খবর



কলকাতা কথকতা সর্বাধিক পঠিত



ইনস্টাগ্রামে নুসরাতের স্বামী

পুরোনো কথা মনে পড়লে এখন হাসি পায়

DMCA.com Protection Status