বিশেষ সম্পাদকীয়

আল জাজিরা ও এপি’র পাশে মানবজমিন

প্রথম পাতা ১৭ মে ২০২১, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:৪৯ অপরাহ্ন

আক্রান্ত মিডিয়া। আক্রান্ত আল জাজিরা, এপি। কী অবলীলায় একটি মিডিয়া ভবন গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে তার সাক্ষী পুরো দুনিয়া। ঘটনাটি সরাসরি সম্প্রচার করেছে আল জাজিরা। কয়েকটি মুহূর্ত। বহুতল ভবনটি চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে মিশে গেল মাটিতে। যেন একটি প্রতীকী দৃশ্য। বাকস্বাধীনতা আর গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে ধুলায় মিশিয়ে দেয়ার প্রচেষ্টা।
মেসেজ  লাউড অ্যান্ড ক্লিয়ার। তোমরা চুপ হয়ে যাও।
১১ বছর ধরে ভবনটিতে অফিস করতেন আল-কাহলাউত। গাজায় ইসরাইলি বর্বরতার খবর দিয়ে এরইমধ্যে বিশ্বব্যাপী এক পরিচিত মুখ। আল জাজিরার এই সংবাদদাতা গতকাল বিবরণ দিচ্ছিলেন তার দীর্ঘ দিনের স্মৃতি বিজড়িত অফিসটি কীভাবে নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। তিনি বলেন, এই ভবন থেকে আমি অনেক খবর প্রচার করেছি। এখানে সহকর্মীদের সঙ্গে আমাদের অনেক সুখ-স্মৃতি রয়েছে। কিন্তু মাত্র দুই সেকেন্ডে এটিকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়া হয়েছে।
ক’দিন ধরেই অশান্ত গাজা। আকাশে ইসরাইলি বোমারু বিমানগুলো উড়ছে। মুহুর্মুহু ক্ষেপণাস্ত্রের হানা। মারা যাচ্ছে মানুষ। নারী-শিশু রেহাই মিলছে না কারোরই। ঈদের নতুন জামা পরে ঘুমিয়েছিল শিশুগুলো। পরক্ষণেই মিলেছে তাদের লাশ। ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে উদ্ধার হয়েছে পাঁচ মাস বয়সী একটি শিশু। জীবিত। কিন্তু তার পরিবারের কেউ বেঁচে নেই। বাঁচার জন্য কী করছেন তারা? দুটি মাত্র কৌশল। পরিবারের সবাই এক রুমে ঘুমাচ্ছেন। যেন মরলে সবাই একসঙ্গেই মরেন। আবার কেউ কেউ আলাদা আলাদা রুমে ঘুমাচ্ছেন। পরিবারের কেউ একজন বেঁচে থাক। দাফনটা যেন ভালোমতো হয়। ক’দিনে এটাই গাজার কাহিনী।
এই বাস্তবতার খবরই দুনিয়ার সামনে তুলে ধরছিল আল জাজিরা। পশ্চিমা মিডিয়া বরাবরই ফিলিস্তিন সংকটের খবর প্রচার করতে গিয়ে কিছুটা দ্বিধাগ্রস্ত। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। হামাস তাদের চোখে সন্ত্রাসী। কারণ তারা রকেট ছোড়ে। কিন্তু ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যারা মানুষ হত্যা করে তাদের ব্যাপারে তারা নীরব। তবুও মিডিয়া যতটুকু সরব সেটাও যেন পছন্দ নয় ইসরাইলের। যে কারণে এভাবে প্রকাশ্যে মিডিয়া ভবন গুঁড়িয়ে দেয়া হলো। ১০ মিনিট বাড়তি সময় চেয়েছিলেন ভবনের মালিক। তাতেও সাড়া দেয়নি ইসরাইলি বাহিনী। ইসরাইলের পক্ষ থেকে ওই ভবনে হামাসের কার্যক্রম চালানোর অভিযোগ করা হয়েছে। যা একবাক্যে নাকচ করে দিয়েছেন ভবনটির মালিক ও গণমাধ্যম কর্তৃপক্ষ। বার্তা সংস্থা এপি এ ব্যাপারে প্রমাণ চেয়েছে ইসরাইলের কাছে। এপি’র প্রেসিডেন্ট গ্যারি প্রুইত এক বিবৃতিতে বলেন, এই ভবনটিতে ১৫ বছর ধরে এপি’র ব্যুরো অফিস। কিন্তু এ সময়ে ভবনটিতে হামাসের কোনো অস্তিত্ব বা সক্রিয়তা আমরা দেখিনি। এ ব্যাপারে ইসরাইলকে প্রমাণ দিতে হবে।
কেন এই হামলা? আগেই বলেছি, বার্তা পরিষ্কার। গাজায় বর্বরতার ছবি যেন আড়ালে চলে যায়। মিডিয়া যেন চুপ হয়ে যায়। আল জাজিরার জেরুজালেম ব্যুরো প্রধান অবশ্য সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘এটা কখনো সম্ভব নয়। আমরা চুপ করবো না।’
আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় গাজায় মিডিয়া ভবনে এই হামলার নিন্দা জানাই। আমরা দাবি করছি, পুরো ঘটনার আন্তর্জাতিক তদন্তের। দোষীদের যেন বিচারের আওতায় আনা হয়। আর এই কঠিন সময়ে মানবজমিন সহমর্মিতা ও সমর্থন প্রকাশ করছে আল জাজিরা ও এপিসহ আক্রান্ত গণমাধ্যমের প্রতি। সত্যের জন্য এ লড়াই ইতিহাসে নতুন কিছু নয়। আপনাদের এই ত্যাগ নিশ্চয়ই মানব জাতি স্মরণ করবে, বহুদিন। সত্যের জন্য লড়াই চলবে। বোমারু বিমান যতোই গর্জাক না কেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Citizen

২০২১-০৫-১৭ ১১:৫৪:১৩

How many media houses/newspapers wrote editorial condemning the Israeli atrocities on media houses-Al Jazeera and AP ??

Mustafa Ahsan

২০২১-০৫-১৬ ২২:২৬:০৭

মুসলিম বিশ্বে একমাত্র পাকিস্তানের কাছে আনবিক বোমার মজুদ আছে ,এবং তার তৈরির পেটেন্ট আছে।এখন সময় হয়েছে ইরানকে এই টেকনোলজি দিয়ে সর্বাত্মক ভাবে আনবিক বোমা দুরতোতম সময়ে তৈরি করে এই মানবতা বিরোধি শক্তিকে কোন প্রকার মানবতার ধার না ধরে কঠোর ভাবে পারমানবিক বোমা দিয়ে মাটির সাথে গুডিয়ে দেওয়ার ।এই জানোয়ারদের জন্য জার্মানির হিটলারই সঠিক ছিলো তা এখন বিশ্বের মুসলমানরা অনুধাবন করতে পারছে। কিন্ত অতি পরিতাপের বিষয় এখন পর্যন্ত সৌদি আরব কুয়েত আবুধাবী মিশর বাহরাইন সহ আরব আফ্রিকানরা নিরব দর্শকদের ভূমিকা নিয়েছে আমি অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাকে -তার সময়উপযোগি সাহসি বকতব্য প্রদান এর জন্য ,যে বাংলাদেশ সবসময় ফিলিসতিনি সংগ্রামের পাশে আছে এবং থাকবে তা বলার জন্য। পাকিস্তান যদি কঠোর পদক্ষেপ নেয় ,পারমানবিক বোমার হুমকি দিয়ে এবং কার্যকর ব্যাবসতা গ্রহন করে তবে আরব গাদ্দারের দল ছাড়াই তুরস্ক ইরান এবং পাকিস্তানের এবং বাংলাদেশের নেত্রীতে নূতন মুসলিম জাহানের গোডা পত্তন সম্ভব। ইহুদি রাস্ট্রের মুসলমান নিধন ঠেকানোর একমাত্র রাস্তা হামাস এবং হেজবুললাহর হাতে নূতন প্রজন্মের পারমানবিক ওয়্যার হেড তুলে দেওয়া না হলে কিছুদিন পর পরই আমাদের এই করুন হদয়বিদারক মুসলমানদের প্রতি নিষ্ঠুর আচরন আর মিরততু শুধু দেখে যেতে হবে।এখন পর্যন্ত তুরস্ক এবং পাকিস্তান বাংলাদেশের মতোই কঠোর ভাষায় এই বর্বরতার নিন্দা জানিয়েছে।আজ পশ্চিমা মানবতা কোথায় ? কোথায় বিশ্বের সভ্য সমাজের মোড়লরা। অত্যন্ত দুখ্য ভারাকারানত মনে এই কঠোর পদক্ষেপের অমানবিক রিদয়হীন আবেদন রাখছি (পারমানবিক বোমার ব্যবহার)যা সাভাবিক শান্তিপূর্ণ পিরথিবীতে কারো কাম্য নয় ,কিন্তু ইসরায়েল সমস্ত সভ্যতার সীমা অনেক আগেই লংঘন করেছে।আজ ইটালিয়ান সমুদ্র বন্দরের সাধারন স্টাফরা বন্দরের কর্ম বিরতি দিয়েছে ইসরাইল এর জন্য অস্ত্র জাহাজে যাতে না উঠাতে হয়। সারা দুনিয়ার সাধারন মানুষ আজ বুঝতে পারছে ইসরাইলের বর্বরতা ,লন্ডনেও বিক্ষোভ হয়েছে কিন্ত প্যেলেসটাইন এর পার্শ্ব বরতি আরব নেইভাররা নিশ্চুপ হয়ে কাপুরুষের মতো নিরব দর্শকদের ভুমিকায় আছেন।

Mohammad Kabir

২০২১-০৫-১৭ ০৯:৪৩:২৭

দোষীদের কোন দিন বিচার হবে না। The only solution is to apply Newton's Theory of " To every action there is equal and opposite reaction."

শহীদুল্লাহ

২০২১-০৫-১৬ ১৩:৩১:৪২

এইত গেল গাজা ও ফিলিস্তিনের গন মাধ্যমের খবর। এখন একটু দেশের গনমাধ্যমের স্বাধীনতার খবর বলেন। কতটুকু স্বাধীন দেশের গনমাধ্যম? দেশের গনমাধ্যম গুলো হল সরকার এবং আমলাদের পা চাটা

এ,টি,এম,তোহা

২০২১-০৫-১৬ ১১:১৫:১৭

আলকায়দার টুইন টাওয়ার আর আল জাজিরার অফিস ধ্বংস করার পার্থক্য কী? দুটোই সন্ত্রাসী হামলা।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

অনুমোদন পেলো জনসনের টিকা

১৬ জুন ২০২১

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বেলজিয়ামে উৎপাদিত জনসনের টিকা দেশে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। ...

রহস্যঘেরা অমির কর্মকাণ্ড

নাসিরকে নিয়ে বিব্রত স্বজনরা

১৬ জুন ২০২১

৫৩ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

১৬ জুন ২০২১

দেশে সীমান্তবর্তী জেলায় করোনার সংক্রমণ দিন দিন বাড়ছে। এসব জেলায় মৃত্যুর সংখ্যাও বেশি। দেশে একদিনে ...

পরীমনির মামলায় নাসিরসহ গ্রেপ্তার ৫, বিচার দাবি সংসদে

কী ঘটেছিল বোট ক্লাবে

১৫ জুন ২০২১

বাসায় যেমন আছেন

১৫ জুন ২০২১

মৃত্যু বেড়ে ৫৪

ফের শনাক্ত ৩০০০ ছাড়িয়েছে

১৫ জুন ২০২১

দেশে মৃত্যু ও শনাক্ত দুটোই বেড়েছে। শনাক্ত আবার ৩ হাজার ছাড়িয়েছে। একদিনে শনাক্তের হার প্রায় ...

সংক্রমণ বাড়ছে, হাসপাতালে খালি নেই শয্যা

সীমান্তে অবাধে পারাপার

১৪ জুন ২০২১



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত



রহস্যঘেরা অমির কর্মকাণ্ড

নাসিরকে নিয়ে বিব্রত স্বজনরা

পরীমনির মামলায় নাসিরসহ গ্রেপ্তার ৫, বিচার দাবি সংসদে

কী ঘটেছিল বোট ক্লাবে

সর্বাত্মক লকডাউন, ট্রেন চলাচল বন্ধ

রাজশাহীতে ঘরে ঘরে সর্দি, জ্বর

সিলেট-৩ উপনির্বাচন

হাবিবের চমক

যুক্তরাষ্ট্রে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ব্লিনকেন ব্যস্ত, দেখা হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ

ছড়াচ্ছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ৪২ জেলায় টিকাদান বন্ধ

ভ্যাকসিনে অচলাবস্থা কাটবে কবে?

সংক্রমণ বাড়ছে, হাসপাতালে খালি নেই শয্যা

সীমান্তে অবাধে পারাপার

DMCA.com Protection Status