মোদির কর্মকাণ্ডকে ‘অমার্জনীয়’ বললো দ্য ল্যানসেট

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) মে ৯, ২০২১, রোববার, ১০:০৮ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৪:১৩ অপরাহ্ন

করোনাকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কর্মকাণ্ডকে অমার্জনীয় (ইনএক্সকিউজ্যাবল) বলে অভিহিত করেছে বৃটেনের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মেডিকেল জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট’। শনিবার প্রকাশিত তাদের সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, মোদির কর্মকাণ্ডের উদ্দেশ্য হলো করোনা সঙ্কটকালে সমালোচনা ও উন্মুক্ত আলোচনাকে গলাটিপে ধরা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি। এতে বলা হয়েছে, করোনা মহামারির প্রথমদিকে নিয়ন্ত্রণের সফলতা নিয়ে বিভ্রান্তিতে ছিল ভারত। এ সময়ে জাতীয় বিপর্যয় সৃষ্টির মতো একটি সঙ্কটে নেতৃত্ব দিয়ে থাকতে পারে মোদির সরকার। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এই জার্নালে করোনা মহামারি মোদি সরকার যেভাবে মোকাবিলা করছে তার কড়া সমালোচনা করা হয়েছে। ভারতের এই সঙ্কট থেকে উত্তরণ নির্ভর করবে প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রশাসনের তার ভুলগুলো ধরে রাখা বা স্বীকার করার ওপর। দ্য ল্যানসেট লিখেছে, করোনা নিয়ন্ত্রণের বেলায় আগেভাগেই সফলতা দাবি করে এক বিভ্রান্তির সৃষ্টি করে ভারত।
এপ্রিল মাসের পূর্ব পর্যন্ত সরকারের কোভিড-১৯ টাস্কফোর্স কয়েক মাস ধরে কোনো বৈঠকে বসেনি। এই সিদ্ধান্তের পরিণতি আমাদের সামনে পরিষ্কার। এখন যখন সঙ্কট ভয়াবহ অবস্থায়, এরই মধ্যে ভারতকে তার গৃহীত পদক্ষেপ পুনর্গঠন করতে হবে। এমন প্রচেষ্টার সফলতা নির্ভর করবে সরকারের ভুলগুলো মেনে নিয়ে তার ওপর গৃহীত পদক্ষেপের ওপর। তাদেরকে দিতে হবে দায়িত্বশীল নেতৃত্ব, স্বচ্ছতা এবং বাস্তবায়ন করতে হবে জনস্বাস্থ্য বিষয়ক পদক্ষেপ বাস্তবায়ন। এ প্রচেষ্টার মূলে থাকতে হবে বিজ্ঞান।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আলতাফ

২০২১-০৫-০৯ ২০:০৭:১০

মুদির লক্ষ্য ক্ষমতা রক্ষার, কিন্তু তার করোনার কাছেও হার,মমতার কাছেও হার ।

কাজি

২০২১-০৫-০৯ ০২:৩৩:৫৭

আজ ই মানবজমিন এ পড়লাম। বিজেপির বিধায়ক অমোঘ চিকিত্সা ব্যবস্থা দিয়েছেন। গো মূত্র পান । মোদি সহ ঘটা করে পান করেছিল এখন ও পান করে যাচ্ছে। তাহলে এত মৃত্যু কেন। কুসংস্কারাচ্ছন্ন মানুষের সমর্থনে মোদি এখন ও ক্ষমতায়। কোন সুস্থ লোক বিজেপির সমর্থন করে না করবে ও না।

আনিস উল হক

২০২১-০৫-০৮ ২৩:২২:২২

ধর্ম ও বিজ্ঞান কখনও এক বিষয় নয় বা সমান্তরালে চলতে পারেনা। বিজ্ঞান সতত গতিশীল ও পরিবর্তনশীল কিন্তু সব ধর্মের গতি সহস্র বছর আগেই থেমে গেছে। মহাপবিত্র কোন জল বা পানি বা পঞ্চগব্য(গোবর গোমূত্র দুগ্ধ দধি ঘৃতের মিশ্রন) বা বিশেষ কোন ফল বা কোনো বিশেষ ধর্ম বা কোন দৈবশক্তির প্রার্থনা-আরাধনা অর্থাৎ কোন দৈববিশ্বাসই করোনাকে রোধ করতে পারছেনা। বরঞ্চ করোনাক্রান্ত মানবজাতি এই মহা দুঃসময়ে তাদের প্রধানতম প্রার্থনা গৃহগুলো তালাবদ্ধ করে ফেলেছে।সেখানে এখন কোন প্রার্থনাগীতি ধ্বনিত হচ্ছে না। মানবজাতিকে এই মহাদুর্যোগে শুধুমাত্র বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানীদের উপরই ভরষা করতে হচ্ছে। ধর্ম বা ধর্মাচার ফলদায়ক হচ্ছে না।তাই আমাদের প্রত্যেকের ধর্মবিশ্বাসকে ব্যক্তিগত আচরণের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখে বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানীদের উপরেই পূর্ণ আস্হা রাখতে হবে। বিজেপি/মোদি সাহেবের ধর্মাশ্রয়ী রাজনীতি আমাদের চক্ষুষ্মান করে দিল যে,ব্যক্তি বা গোষ্ঠীগত কোন ধর্মবিশ্বাস রাজনীতি বা সামাজিক আচরণে প্রয়োগযোগ্য নয়। তাতে রাষ্ট্রকাঠামোতে বিকৃতি এনে রাষ্ট্রের সার্বজনীন মানব সুরক্ষানীতিকে দূর্বল করে মাত্র। তাতে কোন মানব কল্যাণ নেই।

Md. Harun al-Rashid

২০২১-০৫-০৯ ১০:৪৮:২৮

গো-বরে যারা 'বর বা আশীর্বাদ' খোঁজে তাদের বিজ্ঞান বুঝানো অত সহজ নয়!

Samsulislam

২০২১-০৫-০৮ ২১:৩৫:৩৮

অন্য ধর্মের হলে তার ধর্মীয় রাষ্ট্র বানায় ,তখন কেউ কিছু বলে না।আর মোদি হন্দু রাষ্ট্রের দিকে যাচ্ছেন তাই অমার্জনীয় ।তাই নয় কি?মোদি কি বিধর্মীদের কল্লা কাটার কথা বলে?

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

টিকটকের আয় কত?

১৯ জুন ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status