দুবাই যাওয়া হলো না সুভাষের, ফ্লাইওভারে মিলল গামছা পেঁচানো লাশ

ঢাকা মেডিকেল রিপোর্টার

অনলাইন (১ মাস আগে) মে ৬, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:৫২ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৫৫ অপরাহ্ন

রাজধানীর খিলক্ষেতের কুড়িল ফ্লাইওভারে দুবাই ফেরত সুভাষ চন্দ্র সূত্রধর (৩২) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে খিলক্ষেত থানা পুলিশ। তার গলায় গামছা পেঁচানো ও রক্তাক্ত অবস্থায় ছিলো। গেলো বছর বিয়ে করেছেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার কুড়িল ফ্লাইওভারে ভোর সাড়ে ৫ টার দিকে গলায় গামছা পেঁচানো রক্তান্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

খিলক্ষেত থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহিনুর রহমান নিশ্চিত করে জানান, আমরা আজ ভোরে খবর পেয়ে খিলক্ষেত ওভার ব্রিজে গলায় গামছা পেছানো রক্তাক্ত অবস্থায় একটি  মরদেহ পড়ে আছে। আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যাই, গিয়ে দেখি গামছা পেঁচানো অবস্থায় উপুড় হয়ে পড়ে আছে এক যুবক। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আমরা তার কাছে থেকে একটি পাসপোর্ট পেয়ে তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করি জানতে পারি সে দুবাই থাকতো। গত বছরের ১৩ই নভেম্বর সে বাংলাদেশে আসে। তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি গলায় গামছা পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করেছে। আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি।
তদন্তের প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

নিহতের ভায়রা কৃষ্ণ বাবু জানান, প্রায় পাঁচ বছর সে দুবাইতে থাকতেন। গত বছরের ১৩ই নভেম্বরে  ছুটিতে বাংলাদেশ আসেন। ওই বছরেই তিনি বিয়ে করেন তিনি। তার ছুটি শেষ হওয়ায়, গতকাল রাতে সে বগুড়ার শিবগঞ্জ থেকে মাইক্রো বাসে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করেন। পরে আমার শাশুড়ি তাকে ফোনে না পেয়ে আমাকে ফোন করে। আমি রাত চারটার সময় এয়ারপোর্ট ও খিলক্ষেতে তাকে খুঁজতে যাই। পরে একটি নম্বর থেকে খিলক্ষেত থানার পুলিশ আমাকে ফোন করে কুড়িল ফ্লাইওভারে আসতে বলে। আমি ভোর পাঁচটার দিকে দ্রুত ছুটে যাই গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় গলায় গামছা পেঁচানো আমার ভায়রাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। তার কাছে নগদ ৬০ হাজার টাকাও ছিল বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো জানান, নিহতের আরো তিন ভাই দুবাইতে থাকে। নিহতের, গ্রামের বাড়ী বগুড়া জেলার, শিবগঞ্জ থানার, বড় নারায়নপুর গ্রামের মৃত সুবীর চন্দ্র সূত্রধরের সন্তান। পাঁচ ভাই তিন বোনের মধ্যে সে ছিল সবার ছোট।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Quazi M. Hassan

২০২১-০৫-০৭ ১১:১৭:০৮

we are mourn for remittance fighter

Xyz

২০২১-০৫-০৬ ০৩:২৪:২২

ছিনতাইয়ের ভাগ যারা পায় তারা ছিনতাই বন্ধ করার জন্য কেন৷ব্যাবস্থা নিবে?

মাহফুজ

২০২১-০৫-০৬ ১৫:৫৭:১৫

এ পর্যন্ত একই স্থানে একই রকম অনেক মৃত্যুর সংবাদ পড়লাম। কিন্তু আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারীদের কি কোন ভূমিকা নেই। একটি মৃত্যু হলেই তো ব্যবস্থা নেয়ার কথা। কিন্তু এতগুলো মৃত্যু হলো তারপরও প্রতিকার নেই?

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

ক্যাপশন নিউজ

১৮ জুন ২০২১

শনাক্তের হার ১৮.৫৯

একদিনে আরও ৫৪ জনের মৃত্যু,শনাক্ত ৩৮৮৩

১৮ জুন ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা মামলা

নাসির উদ্দিনসহ গ্রেপ্তার ৩

DMCA.com Protection Status