পিতার জ্বলন্ত চিতায় ঝাঁপিয়ে পড়লেন মেয়ে

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) মে ৫, ২০২১, বুধবার, ৩:০৩ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১০:০৩ পূর্বাহ্ন

চিতায় জ্বলছে করোনা ভাইরাসে মারা যাওয়া পিতার মৃতদেহ। এ দৃশ্য দেখে আর সহ্য করতে পারলেন না মৃত ব্যক্তির এক মেয়ে। শোকাচ্ছন্ন ওই মেয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন জ্বলন্ত চিতায়। তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু মারাত্মকভাবে পুড়ে গেছে তার শরীর। ভারতের রাজস্থানের এ খবর দিয়েছে সরকারি বার্তা সংস্থা পিটিআই। পুলিশ কর্মকর্তা প্রেম প্রকাশ বলেছেন, মৃত দামোদর দাস শারদার (৭৩) তিন কন্যা আছেন। কিছুদিন আগে মারা গেছেন তার স্ত্রী।
দামোদর দাসের ছোট মেয়ে পিতাকে ভালবাসতেন জানপরাণ দিয়ে। কিছুতেই সহ্য করতে পারছিলেন না পিতার মৃত্যু। সেই পিতার দেহ আগুনে পুড়ে যখন শেষ হয়ে যাচ্ছে, তখন তিনি ঠিক থাকতে পারলেন না। লাফিয়ে পড়লেন জ্বলন্ত চিতায়। পুলিশ বলেছে, দামোদর দাসের ৩৪ বছর বয়সী ওই মেয়ে মারাত্মক পুড়ে গেছেন। এর আগে করোনা ভাইরাসে রাজস্থানের বারমার জেলায় একটি হাসপাতালে মঙ্গলবার মারা যান দামোদর দাস। তার দেহ চিতায় তোলা হয়। এ সময় তার তিন মেয়ের মধ্যে ছোট মেয়ে চন্দ্রা শারদা আকস্মিক চিতার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন। আশপাশে যেসব মানুষ উপস্থিত ছিলেন, তারাই তাকে উদ্ধার করেন। তবে তার শরীরের শতকরা প্রায় ৭০ ভাগ পুড়ে গেছে। পরে তাকে পার্শ্ববর্তী একটি হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে যোধপুরের আরেকটি হাসপাতালে। প্রেম প্রকাশ বলেছেন, করোনা ভাইরাসে পজেটিভ ধরা পড়ার পর দামোদর দাসকে রোববার ভর্তি করা হয়েছিল হাসপাতালে। তিনি মারা যান মঙ্গলবার।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status