হৃদয়বিদারক: মোটরসাইকেলে মায়ের লাশ বাড়ি নিলেন পুত্র ও জামাই (ভিডিও)

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২৮, ২০২১, বুধবার, ৪:১০ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন

এম্বুলেন্স বহন করতে রাজি হয়নি। তাই করোনায় মারা যাওয়া মায়ের মৃতদেহ তার ছেলে এবং জামাই মোটর সাইকেলে করে বাড়ি নিয়ে গেলেন। পথে তাদেরকে থামিয়েছিলেন একজন পুলিশ সদস্য। তাদেরকে লাশ এভাবে নিতে দেখে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। কিন্তু সহায়তায় এগিয়ে আসেননি। তিনি কোনো গাড়িও ডেকে দেননি। এমন হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে। এ দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।
এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভারতকে হতাশায় ডুবিয়েছে। একের পর এক মৃত্যু সেখানে হতাশা বাড়াচ্ছে। সারাদেশে মানুষ কতো অসহায় হয়ে পড়েছে তার চিত্র ক্রমশ ফুটে উঠছে। রাস্তার পাশে লাইন দিয়ে রাখা হয়েছে মৃতদেহ। এগুলো দাহ করা হবে। মারাত্মক অসুস্থ মানুষ হাসপাতালের বাইরে রাস্তায় শুয়ে আছেন চিকিৎসার জন্য। হাসপাতালের বাইরে যেন খোলা আকাশের নিচে আরেক হাসপাতাল। গণহারে চিতায় জ্বলছে দেহ। কয়েক সপ্তাহ ধরে এমন সব বীভৎস দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে অন্ধ্র প্রদেশের ওই ঘটনা। সেখানে করোনায় মারা যান এক নারী। তার ছেলে এবং জামাই মৃতদেহ বাড়ি নেয়ার জন্য এম্বুলেন্স খুঁজেছেন। কিন্তু কোনো এম্বুলেন্সের চালক লাশ পৌঁছে দিতে রাজি হয়নি। তাই তার ছেলে এবং জামাই মৃতদেহ স্যান্ডউইচের মতো পাঁজাকোলা করে মোটর সাইকেলে তুলে নিয়েছেন দু’জনের মাঝখানে। ঘটনাটি ওই প্রদেশের শ্রীকাকুলামের পালাসা এলাকার। মৃত নারী সেখানকার চেঞ্চু উপজাতির। তার করোনার লক্ষণ দেখা দেয়ার পর নীলামনি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে পাঠানো হয় সিটি স্ক্যান করতে শ্রীকৃষ্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। কিন্তু স্ক্যান রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে করতে তিনি মারা যান। কান্নায় ভেঙে পড়েন তার ছেলে। উপায়হীন হয়ে এম্বুলেন্স বা অন্য কোনো যান খুঁজতে থাকেন, লাশ বাড়ি নেয়ার জন্য। কিন্তু মৃতদেহ থেকে করোনা ছড়িয়ে পড়বে এই আশঙ্কায় কেউই তাতে রাজি হয়নি। এমন অবস্থায় মৃত নারীর ছেলে এবং জামাই সিদ্ধান্ত নেন তাদের মোটরসাইকেলে করেই লাশ নিয়ে যাবেন গ্রামে। ভাবনা অনুযায়ী তারা তাই করেন। এ বিষয়ে শ্রীকাকুলামের এসপি অমিত বাহাদুর বলেন, ওই পরিবারটি জরুরি প্রয়োজনে ১০৮ নম্বরে কল করেনি। এটা সরকারি এম্বুলেন্স সার্ভিসের নম্বর। করোনা ভাইরাসে মৃতদের জন্য ভাল সেবা দিয়ে থাকে অন্ধ্র প্রদেশ। কিছু বেসরকারি অটোও এক্ষেত্রে ওই নারীর মৃতদেহ নিয়ে যেতে অস্বীকৃতি জানাতে পারে। এটা হতে পারে তাদের আতঙ্কের কারণে। ফলে বাধ্য হয়ে মৃত নারীর ছেলে এবং জামাই মোটরসাইকেলে করে লাশ বাড়ি নিয়ে গেছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

palashbishwas

২০২১-০৪-৩০ ০৮:৩৩:৩৬

অনেকে লিখেছেন যেখানে ইসলাম নেই সেখানে মানবতা নেই। আসলে মানবতা মানুষের ভেতর থেকে আসে। একটু খেয়াল করলে দেখবেন পশ্চিমা দেশগুলোতে তো ইসলাম নেই অথচ আপনার দেশের মানবাধিকার সংগঠনগুলো পশ্চিমা দেশ থেকে মানবিক সহায়তা নিয়ে থাকে। আগে নিজের দেশের কথা ভাবুন। ভারতে 30 কোটি মুসলমানের বসবাস। হয় আপনি সাচ্ছা মুসলমান নয় অথবা ভারতের মুসলমানদের আপনি মুসলমান মনে করেন না। কোন বিষয়ে মতামত দিতে কখনওই ধরমকে ব্যবহার করবেন না। কেননা আজ পর্যন্ত কোন ধর্ম পাওয়া যায় নি যেখানে অমানবিক আচরণ করতে বলা হয়েছে। একজন মুসলমানের উচিৎ সারা পৃথিবীর জন্য তার পন্থায় দোয়া করা। দ্বীনের নবী যেখানে অমানবিকতা বা লাঞ্ছিত হয়েছেন সেখানে বলেছেন “ এদের ক্ষমা কর প্রভু, এদের জ্ঞান দাও”। আপনি কি বলেন একটু জানাবেন।

abul Hashem

২০২১-০৪-২৯ ১৫:১০:০৮

মানবিক মুল্যবোধহীন স্বার্থপর লোকদের আবাস ভূমি ইন্ডিয়া ।

Moriom

২০২১-০৪-২৮ ০৫:১৪:৫৮

Sotti khub kharap desh india

abdul barek

২০২১-০৪-২৮ ১৭:১০:০২

Very very very sad

Kazi

২০২১-০৪-২৮ ০৪:০০:৩৯

হিন্দু ধর্মে অনেক কুসংস্কার আছে। তা ভারতে প্রবল। সেই কুসংস্কার মূল্যবোধ ধ্বংস কালকের ভূমিকা রাখে।

নেছার আহমেদ

২০২১-০৪-২৮ ১৬:৪৫:২৩

সত্য বললেইতো কেওকেও বলবেন সাম্প্রদায়িক, তারপরেও সত্য বলবো। আমার এ কমেন্ট পাবলিশ হোক আর নাহোক আমি একথা বোলবই যে, যেখানে ইসলাম নেই সেখানে মানবতাও নেই। যেখানে ইসলামের উপস্থিতি যতটুকু সেখানে মানবতার উপস্থিতিও ঠিক ততটুকুই !

Aftab Chowdhury

২০২১-০৪-২৮ ০৩:২৬:১৯

মানবিক মুল্যবোধহীন স্বার্থপর লোকদের আবাস ভূমি ইন্ডিয়া ।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status