অক্সিজেন উৎপাদনে এগিয়ে এলেন টাটা, আম্বানি, জিন্দালরা, সালমান খান-সোনু সুদরা মানুষের পাশে

বিশেষ সংবাদদাতা

ভারত (১ মাস আগে) এপ্রিল ২৪, ২০২১, শনিবার, ৯:৫৬ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৩:২৮ অপরাহ্ন

ভারতে করোনা রুখতে এগিয়ে এলেন দেশের শীর্ষ শিল্পপতি গোষ্ঠীরা। টাটা, মুকেশ আম্বানি এবং জিন্দাল গোষ্ঠী সিদ্ধান্ত নিল তাদের প্লান্টে ইন্ডাস্ট্রিয়াল অক্সিজেনের উৎপাদন কমিয়ে তারা বাড়াবেন জীবনদায়ী অক্সিজেন। দেশে অক্সিজেনের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে তিন সংস্থা। ভারতে অক্সিজেনের চাহিদা উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে।  চাহিদার তুলনায় জোগান কম। এই ঘাটতি কিছুটা পূরণের জন্যে উদ্যোগী হয়েছে এই শিল্পপতি গোষ্ঠীগুলি। পিছিয়ে নেই বলিউডও। সালমান খান বরাবরই নিভৃতে দান ধ্যান করেন। এবার তিনি স্বাস্থ্য কর্মীদের পাশে এসে দাঁড়ালেন।
মুম্বইয়ে কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াই করা কয়েকহাজার স্বাস্থ্য কর্মীর খাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন সালমান। গরিবের ভগবান,  বলিউডের আর এক তারকা সোনু সুদ করোনা আক্রান্তদের হাসপাতালে পৌঁছে দিতে উদ্যোগী ভূমিকা নিয়েছেন। সোনু সুদের চেষ্টাতেই হায়দরাবাদে করোনার কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত এক মহিলাকে উড়িয়ে আনা হল দিল্লিতে। সোনু সুদ অবশ্য নিরন্তর করোনা আক্রান্তদের সেবা করে চলেছেন। প্রথমবার লকডাউনের সময় সালমান মুম্বই এর রাজপথে ট্রাক ট্রাক খাবার বিলি করেছিলেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আনিস উল হক

২০২১-০৪-২৩ ২৩:৪৫:৩৫

বিল গেটস, টাটা, আম্বানি এঁদের জীবনী আমাদের মাদ্রাসা পাঠ্য বইয়ের অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন। এঁরা ইসলামধর্মালম্বী না হওয়া সত্ত্বেও বর্তমান পৃথিবীর জাতি-ধর্মের বাছবিচার না করে পুরো মানবজাতীর কল্যাণে কত অবদান রাখছেন ! অর্থ সম্পদ জ্ঞানে তাদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করছে যে, জ্ঞান-বিজ্ঞানের জ্ঞান দানে স্রষ্ঠা কোন কোন একক ধর্মবিশ্বাস কে প্রাধান্য না দিয়ে তিনি আস্তিক নাস্তিক সহ ইহুদী হিন্দু খৃষ্টান পার্সি জৈন ইয়াজিদি শিখ বাহাই বৌদ্ধ শিন্টো ইসলাম সব ধর্মের বিশ্বাসী মানুষের জন্যই জ্ঞান আহরণের ব্যবস্হা চালু রেখেছেন। তাঁর অসীম ইলম হিকমত ভাণ্ডার হতে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে মানুষ এই জ্ঞান আত্নস্হ করে নিতে পারে। বর্তমান বিশ্বে জ্ঞান বিজ্ঞানের চর্চায় ইহুদী খৃষ্টান বৌদ্ধদের এগিয়ে থাকা যা প্রমাণ করছে। আমাদের মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের আর কুপমুন্ডক করে রাখা যাবে না।

SJ

২০২১-০৪-২৩ ২২:০৮:৫৮

সঠিক এবং সত্যি যে, বিশ্বের অক্সিজেন বৃদ্ধি পেলেই মানুষ সুস্থ হয়ে উঠবে ইহাই করোনার সমাধান কারন করোনা ভাইরাসের টার্গেট পয়েন্ট ফুসফুস। জানো কি তোমরা ফুসফুসের কাজ কি? জানো কি ফুসফুস কেনো দুর্বল হয়?করোনা থেকে বাঁচতে সহজ সমাধান তিন রকম 1. পোল্টি মুরগি 2. কোমল পানি 3.চিনি এই তিন খাদ্য পরিহার অতঃপর শরীর অক্সিজেন বেশী গ্রহন করায় মনোযোগী হওয়া । ন্যাচারাল দিয়েই ন্যাচারালের সমাধান ইহার বাইরে অলটাইম মাস্ক পরে মৃত্যুকে নিকটবর্তী করার সমান । নিরাপদ দূরত্ব ও সান্তনা মাত্র কারন নিরাপদ দূরত্বে না থেকেও কিছু মানুষ সুস্থ আছেন বিপরীত দিকে নিরাপদ দূরত্বে থেকেও শুন্য থেকে কিছু মানুষ করোনা রুগী হইছে ।

আপনার মতামত দিন

ভারত অন্যান্য খবর



ভারত সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status