আকরামের লাশ দেশে আনতে কয়েক হাজার ইউরোর তহবিল

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ৭, ২০২১, বুধবার, ১:৩১ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৪২ পূর্বাহ্ন

বিদেশ বিভুঁইয়ে আবারও বাংলাদেশিরা একে অন্যের- এর প্রমাণ রাখলেন। আয়ারল্যান্ডের এক দোকানে কাজ করতেন ঢাকা, মিরপুরের আকরাম হোসেন। গত রোববার সেই দোকান থেকে কিছু চুরি করে এক ব্যক্তি। তার পিছু ধাওয়া করেন আকরাম হোসেন। এক পর্যায়ে তিনি হার্টঅ্যাটাকে আক্রান্ত হন এবং মারা যান। তার লাশ দেশে ফেরত আনার জন্য তহবিল সংগ্রহের উদ্যোগ নেয়া হয়। তাতে জমা পড়েছে কয়েক হাজার ইউরো। ফলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার মৃতদেহ দেশে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল।
এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডাবলিন লাইভ। এতে বলা হয়, আকরাম হোসেন কাজ করতেন ডাবলিনের ড্রামকোন্দ্রা এলাকার একটি দোকানে। সেখানে উদ্ভুত ওই ঘটনায় তিনি মারা গেলে তার মৃতদেহ দেশে ফেরত পাঠাতে এবং পরিবারকে কিছু সাহায্য দেয়ার জন্য একটি তহবিল গঠন করা হয়। উত্তর ডাবলিনে পুরো কমিউনিটির কাছে আকরামের মৃত্যু সংবাদ ছিল হতাশার। তাদের অনেকেই তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে অর্থ দান করেছেন ওই তহবিলে। আকরাম হোসেনের পরিবারে রয়েছে ১৪ বছর বয়সী একটি ছেলে, স্ত্রী, মা, বোন ও ভাই। তারা তার মৃতদেহ দেশে আনতে চান। এ জন্য অর্থ সংগ্রহের জন্য একটি পেজ খোলা হয়। তাতে বলা হয়,  আকরাম হোসেন লোয়ার ড্রামকোন্দ্রার সবার কাছে ছিলেন প্রিয়জন। তহবিল সংগ্রহের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে তার পরিবারকে সহায়তার জন্য।  আকরাম হোসেনকে সাংবাদিক সিয়ানান ব্রেনান একজন অতি ভদ্রলোক এবং আলোকরশ্মি বলে আখ্যায়িত করেছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোহাম্মদ আলমগীর হোসে

২০২১-০৪-১০ ১৪:৫২:৪৯

নিঃসন্দেহে মরহুম আকরাম হোসেন অতি ভদ্রলোক ও একজন দায়িত্বশীল প্রশংসনীয় ব্যাক্তি ছিলেন, আমি রুহের মাগফেরাত কামনা করছি,সে তার দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে মৃত্যু বরণ করেন,মরহুম আকরাম হোসেন পৃথিবীর একমাত্র দোকানদার যিনি মৃত্যুর আগ পযর্ন্ত দায়িত্বের সাথে পালন করেছেন,আল্লাহ রব্বুল আলামীন তার প্রতি রহম হোন, আমীন,

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

চিকিৎসকদের দাবি

যেকোন সময় মারা যেতে পারেন নাভালনি

১৮ এপ্রিল ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status