হ্যারি, মেগানের অভিযোগ, প্রত্যাখ্যান সাবেক প্রেস সেক্রেটারির

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) মার্চ ৯, ২০২১, মঙ্গলবার, ৮:১৯ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৪৬ অপরাহ্ন

বৃটিশ রাজপরিবারের বিরুদ্ধে এন্তার অভিযোগ এনেছেন প্রিন্স হ্যারি ও ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল। তারা যুক্তরাষ্ট্রের টকশো তারকা অপরা উইনফ্রেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তাদের ছেলে আর্চি’র জন্মের আগেই তার গায়ের রঙ নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছিল রাজপরিবারে। এমনতরো বিভিন্ন ঘটনায় তিনি রাজপরিবারের সঙ্গে থাকার দিনগুলোতে আত্মহত্যারও চিন্তা করেছিলেন। তবে বৃটিশ রাজপরিবারে বর্ণবাদের কোনো স্থান নেই বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের সাবেক প্রেস সেক্রেটারি চার্লস অ্যানসন। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের সাক্ষাৎকারভিত্তিক দুই ঘণ্টার ওই অনুষ্ঠান ‘অপরা উইথ মেগান অ্যান্ড হ্যারি: এ প্রাইমটাইম স্পেশাল’ প্রচার করা হয়েছে। সোমবার রাতে তা বৃটিশ দর্শকরা দেখতে পাবেন বলে খবরে বলা হয়েছে। এসব খবর দিয়েছে অনলাইন স্কাই নিউজ এবং বিবিসি। এতে বলা হয়, হ্যারি ও মেগান মার্কেল রাজপরিবারের বিরুদ্ধে ধারাবাহিকভাবে বোমশেল অভিযোগ এনেছেন।
প্রিন্স হ্যারি বলেছেন, তার পিতা প্রিন্স চার্লস এক সময় তার ফোনকল রিসিভ করা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। তিনি আরো অভিযোগ করেন, রাজপরিবারের অন্যদের মতো সিস্টেমের ফাঁদে আটকা পড়েছিলেন তিনিও। উইনফ্রেকে সাক্ষাৎকারে মেগান বলেছেন, তিনি নির্লজ্জভাবে রাজপরিবারে বিবাহ করেছিলেন। কারণ, তিনি জানতেন না রাজপরিবারের রীতি। তবে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছেন এই দম্পতি। মেগান মার্কেল তার সম্পর্কে বলেছেন, তিনি সব সময়ই তার প্রতি চমৎকার আচরণ করেছেন। প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে বিয়ের সময় মেগান এমন কিছু করেছিলেন যার জন্য বিয়েকে সামনে রেখে প্রিন্স উইলিয়ামের স্ত্রী কেট মিডলটনকে কাঁদতে হয়েছিল। এমন অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছেন মেগান মার্কেল। তিনি দাবি করেছেন বরং এর উল্টোটা ঘটেছিল। এখন তারা একটি মেয়ে সন্তানের আশা করছেন।

 

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status