প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ, লাঠিচার্জ, টিয়ার শেল নিক্ষেপ (ভিডিও)

সটাফ রিপোর্টার

অনলাইন (১ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১, রোববার, ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সমাবেশকে ঘিরে পুলিশ ও সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। ছাত্রদল নেতাকর্মীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাল্টা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। রোববার সকাল এগারোটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ সংঘর্ষে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সহ-সভাপতি মামুন খান, সাজিদ হাসান বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, যুগ্ম সম্পাদক করিম প্রধান রনি, সহ সাধারণ সম্পাদক ইসা মমতাজ ইজাজ, আক্তারুজ্জামান আক্তার, মহানগর পূর্বের সহ-সভাপতি আরমান হোসেন বাপ্পি, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সাবেক সদস্য ওমর ফারুক শাকিল চৌধুরী, ইডেন কলেজ ছাত্রদলের সদস্য সচিব সানজিদা ইয়াসমিন তুলিসহ অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।
জানা গেছে, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর খেতাব বাতিলের প্রতিবাদে এ সমাবেশ করার কথা ছিল ছাত্রদলের। সমাবেশ শুরুর আগেই প্রেস ক্লাবের সামনে এবং বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অবস্থান নেয়। আর সমাবেশে আসা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রেস ক্লাবের ভেতরে অবস্থান নেয়। বেলা এগারোটার দিকে প্রেস ক্লাবের মূল গেট দিয়ে নেতাকর্মীরা বের হওয়ার চেষ্টা করলে এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে বাকবিত-া হয়।
পরে সংঘর্ষে জড়ায় পুলিশ এবং ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশ দলটির নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে এবং টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের। সংঘর্ষে আহত ছাত্রদল নেতা ওমর ফারুক শাকিল জানান, আহত হাবিব উন নবী খান সোহেলকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার পিঠে লোহার পাইপ ঢুকে গিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। যে কারণে ক্ষতস্থানে অনেকগুলো সেলাই করতে হয়েছে।
ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেছেন, পুলিশের হামলায় ছাত্রদলের ৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তারা ঢাকা মেডিকেল ও ইসলামি ব্যাংক হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের ৬/৭ জন আহত হয়েছেন। এছাড়া একজন ক্যামেরাপারসন আহত হয়েছেন।  পুলিশ বলছে, এখন পর্যন্ত ছাত্রদলের ৩/৪ নেতাকর্মী তাদের কাছে আটক আছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

ডিএমপির রমনা জোনের উপপুলিশ কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান বলেন, আমরা আগে থেকেই জানতাম প্রেস ক্লাবের সামনে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা জড়ো হবে। অনুমতি না নিয়ে সমাবেশ করতে চাইলে আমরা তাদের বাধা দেই। কিন্তু তারা বাধা উপেক্ষা করে রাস্তায় নামতে চাইলে টিয়ার শেল ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেই।






































পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

ফরিদ আহম্মেদ

২০২১-০২-২৮ ০৫:২৫:৫১

পুলিশ পাকিস্তানী হানাদারের চেয়ে বেশি নিস্টুর আচরন করছে।

K.M B Hossain

২০২১-০২-২৮ ১৭:২০:৩৯

গণতন্ত্র মুক্তি পাক !

Khan

২০২১-০২-২৮ ১৪:২৩:২২

পাকিস্তানি হানাদার-বাহিনীরুপী পুলিশ ছাত্রদের কিভাবে অত্যাচার করছে, বাঙ্গালী দেখে রেখো

Md. Harun al-Rashid

২০২১-০২-২৮ ১৩:২১:২৭

সম্পাদ্যটি বহু বছর আগে অন্য দলের উপর সম্পাদিত হয়েছিল। এখন একই সম্পাদ্য প্রতিপক্ষের পিঠে অনুশীলন হচ্ছে। সিদ্ধান্তে উপনীত হতে এমন উপপাদ্য হাত ও পিঠের চামড়ার সক্ষমতা দিয়ে প্রমান করুন।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



রণক্ষেত্র বাঁশখালী বিদ্যুৎকেন্দ্র

শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ৫

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে হেফাজত নেতাদের বৈঠক-

গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তি ও হয়রানি বন্ধের দাবি

করোনায় আক্রান্ত পুরো পরিবার

২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু

DMCA.com Protection Status