ব্রুনাইয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন

স্টাফ রিপোর্টার

প্রবাসীদের কথা ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:২১ অপরাহ্ন

এবারই প্রথম ব্রুনাইয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করে সেখানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ হাই কমিশন, ব্রুনাই দারুসসালামের উদ্যোগে ব্রুনাই প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে দিনটি পালন করা হয়। দিনটি উপলক্ষে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়।
সকালে শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশির ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলিতে সিক্ত হয় নবনির্মিত শহিদ মিনারের বেদি। শুরুতেই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেনের পক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন হাই কমিশনার নাহিদা রহমান সুমনা। শ্রদ্ধাঞ্জলির একপর্যায়ে ভাষা শহিদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। শেষে হাই কমিশন সম্মেলন কক্ষে একটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রেরিত বাণী পাঠ করা হয়।

দুপুরে বাংলাদেশ হাই কমিশন বহুজাতি ও বহুভাষীদের নিয়ে একটি ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান আয়োজন করে। ব্রুনাইতে ’আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ উপলক্ষে এ ধরণের আয়োজন প্রকৃত অর্থেই মহান একুশকে আন্তর্জাতিক রুপ দিয়েছে বলে আমন্ত্রিত কূটনীতিকগণ মন্তব্য করেন।


বাংলাদেশ হাই কমিশনের হাই কমিশনারের সভাপতিত্বে বন্দর সেরি বেগাওয়ানের হোটেল মুলিয়ায় আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে ছিলেন ব্রুনাই সংস্কৃতি ও যুব মন্ত্রণালয়ের পরিচালক পিজি রসলি পিজি এইচজে হালুস, তার সহধর্মীনি টুনকু জুয়ানা বিনতে ইয়াহাইয়া। ব্রুনাইতে নিয়োজিত জাপান, কম্বোডিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ইরান, ভিয়েতনাম মিশনের মিশন প্রধানগণ এবং রাশিয়া, ভারত, তিমুর লেসেথোর মিশন উপপ্রধানসহ ব্রুনাই সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, সিভিল সোসাইটির সদস্যবৃন্দ এবং প্রবাসী বাংলাদেশিরা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, পররাষ্ট্রসচিব ভার্চুয়াল মাধ্যম ব্যবহার করে অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথি ও বিভিন্ন ভাষাভাষীদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

হাই কমিশনার নাহিদা রহমান সুমনার অনুরোধে ভারত, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, জাপান, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, তিমুর লেসেথো, জার্মানি, কানাডা, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, ইরান, ফিলিপিন্সসহ সুদূর ব্রাজিল থেকে কূটনীতিকগণ নিজ নিজ ভাষায় ও কণ্ঠে ভিডিও বার্তা দিয়ে ’আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ উপলক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। ব্রুনাই মিউজিক সোসাইটির শিল্পীবৃন্দ এবং বন্দর সেরি বেগাওয়ানের একটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের দুটি পৃথক পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি পৃথিবীর সকল ভাষাভাষীকে একসূত্রে গেঁথে ফেলে। বহুমাত্রিক এ সাংস্কৃতিক আয়োজনে বাংলাদেশি শিশুরা একুশের গান গেয়ে সকল মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করে। কানাডার একটি শিশু শিল্পীগোষ্ঠী বিভিন্ন ভাষায় ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছা জানায়।

ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি ব্রুনাই-এর প্রফেসর ড. মালয় জেইটির সঞ্চালনায় ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বাংলা ও মালয় ভাষা-সাহিত্য’ নিয়ে একটি গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রফেসর ড. ইফতেখার ইকবাল, সহযোগী অধ্যাপক, ইউনিভার্সিটি ব্রুনাই দারুসসালাম, খ্যাতনামা চিত্রশিল্পী পেনগিরান আব্দুল ওয়াহাব এবং ড. সোফিনা চুয়া আব্দুল্লাহ বাংলা ও মালয় ভাষা-সাহিত্য সম্পর্কে আলোচনায় অংশ নিয়ে উভয় ভাষাও সংস্কৃতির বিভিন্ন সাধারণ দিক নিয়ে আলোচনা করেন। হাই কমিশনারের অনুরোধে স্থানীয় বিখ্যাত চিত্রকর পেঙ্গিরান আব্দুল ওয়াহাবের পরিকল্পনা ও পরিচালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল অতিথি একটি সুবৃহৎ ক্যানভাসে নিজের ভাষায় ’ভাষা স্মারক’ রচনা করেন। বিভিন্ন রঙে, বর্ণে, হরফে বিশাল ক্যানভাসটি মুহূর্তেই হয়ে ওঠে একটি অমূল্য চিত্রকলা।

আপনার মতামত দিন

প্রবাসীদের কথা অন্যান্য খবর



প্রবাসীদের কথা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status