শাশুড়ি-স্ত্রীকে হত্যার পর লাশের পাশেই বসেছিল ঘাতক

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন (৩ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১, বুধবার, ১০:২১ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৭:০৫ অপরাহ্ন

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের হালগাঁও গ্রামে শাশুড়ি ও স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশের পাশেই বসেছিল ঘাতক লোকমান হোসেন। নিহতরা হলেন- শাশুড়ি শাশুড়ি বানু বিবি (৫০) ও স্ত্রী ফারজানা আক্তার (২৫)। মঙ্গলবার বিকেলে ওই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক লোকমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের হালগাঁও গ্রামের লোকমান হোসেন ও ফারজানা স্বামী স্ত্রী। লোকমান হোসেন (৩৫) পেশায় রিকশাচালক। তাঁদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে লোকমান মাদকাসক্ত।
এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে অনেক ঝগড়া হয়। এরই মধ্যে লোকমান সন্দেহ করেন, তাঁর স্ত্রী ফারজানা কারও সঙ্গে পরকীয়া প্রেম করছেন। এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে কয়েক দিন ধরে কলহ চলে আসছিল। মঙ্গলবার সকালে তাঁর শাশুড়ি জেলার আদর্শ সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের বল্লভপুর গ্রামে আসেন। লোকমান পরকীয়ার বিষয়টি উত্থাপন করেন। অন্যদিকে ফারজানা মাদকাসক্তের বিষয়টি জানান। একপর্যায়ে শাশুড়ি বানু বিবি উভয়পক্ষকে বকা দেন। একই সঙ্গে লোকমান হোসেনকে ভালো হয়ে চলার পরামর্শ দেন। এতে উত্তেজিত হয়ে লোকমান শাশুড়িকে খাটের মধ্যে এবং ঘরের মেঝেতে স্ত্রী ফারজানাকে কুপিয়ে হত্যা করেন। ঘটনাস্থলে তাঁরা মারা যান। হত্যাকা- ঘটিয়ে লোকমান লাশের পাশে বসা ছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশ দুটি উদ্ধার করে ও লোকমানকে আটক করে। ফারজানার প্রতিবেশী মনির হোসেন বলেন, লোকমান মাদকাসক্ত। একাধিক মাদক মামলার আসামি। স্ত্রীকে মারধর করতেন। নেশা করেই স্ত্রী ও শাশুড়ি খুন করেন। বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাম্মেল হক বলেন, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে এই জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে। লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

আলোচিত মিতু হত্যাকাণ্ড

সাবেক এসপি বাবুলকে প্রধান আসামি করে মামলা

১২ মে ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status