ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও সাড়ে তিন হাজার রোহিঙ্গা

স্টাফ রিপোর্টার, উখিয়া থেকে

অনলাইন (৪ সপ্তাহ আগে) জানুয়ারি ২৮, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:৪০ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ২:৪২ অপরাহ্ন

ফাইল ফটো
আজ বৃহস্পতিবার এবং আগামীকাল শুক্রবার ২ দিনে আরো সাড়ে ৩ হাজার রোহিঙ্গা শরনার্থীকে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ থেকে ভাসানচরে এটি হবে তৃতীয় দফায় এবং বৃহৎ সংখ্যায় রোহিঙ্গা শরনার্থী স্থানান্তর। সংশ্লিষ্ট সুত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানাগেছে, ভাসানচরে নিয়ে যেতে বুধবার সি-লাইন সার্ভিসের ২০টি মিনিবাস ও মাল বহনকারী ১০টি ডাম্পার ট্রাকের মাধ্যমে রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প থেকে প্রায় এক হাজার রোহিঙ্গা শরনার্থীকে নিয়ে আসা হয়েছে ট্রানজিট পয়েন্ট উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠে। বুধবার যেসব রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প থেকে ভাসানচরে নেওয়ার জন্য ট্রানজিট পয়েন্টে আনা হয়েছে। সেগুলো হলো-বালুখালী ক্যাম্প নম্বর-৮ পূর্ব, ৯, ১০, ১১, ১২, ও ১৮ নম্বর ক্যাম্প। রোহিঙ্গা শরনার্থীদের এই দলটি বৃহস্পতিবার ভাসানচরের উদ্দ্যেশে বাসে করে রওনা দিয়ে চট্টগ্রাম যাবে। সোখান থেকে সমুদ্র পথে জাহাজে করে ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হবে।
শুক্রবার কুতুপালং-১ ইস্ট, ২ ইস্ট, এবং ২ ওয়েস্ট ক্যাম্প থেকে আরও প্রায় দেড় হাজার রোহিঙ্গা শরনার্থীর পৃথক একটি দল ভাসানচরে রওনা দেবে। তাদেরকে বৃহস্পতিবার বিকেলে ক্যাম্প থেকে ট্রানজিট পয়েন্ট উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠে আনা হবে।
ক্যাম্পের একজন মাঝি জানিয়েছেন, রোহিঙ্গারা ভাসানচরে যেতে দিন দিন আগ্রহী হয়ে উঠেছে।
ইতোমধ্যে স্বেচ্ছায় ক্যাম্প ইনচার্জের নিকট ভাসানচরে যেতে আগ্রহীদের তালিকা যারা জমা দিয়েছিল, তারা আজ ও আগামীকাল ভাসানচরে যাচ্ছে। তৃতীয় দফায় দুইদিনে রোহিঙ্গাদের বিশাল বহর স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যাওয়ার সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা তাদের নিরাপত্তা ও প্রয়োজনীয় সহায়তা দিচ্ছে।

উখিয়া-টেকনাফে আশ্রিত ৩৩ টি রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে কমপক্ষে এক লক্ষ রোহিঙ্গাকে নোয়াখালীর হাতিয়ার ভাসানচরে স্থানান্তর করার টার্গেট রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সুত্রমতে, আগামী ফেব্রুয়ারীর দ্বিতীয় সপ্তাহে ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গা শরনার্থীদের আরো একটি দল উখিয়া- টেকনাফ এর শরনার্থী ক্যাম্প থেকে চতুর্থ দফায় ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার প্রয়োজনে নোয়াখালীর ভাসানচরকে দেশের ৬৫০তম পূর্ণাঙ্গ একটি থানা হিসাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ইতিমধ্যে উদ্বোধন করেছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

M.Hassan

২০২১-০১-২৮ ১৮:৩৫:৩৩

"Vasan Chor" having new and very stander structures Like House, Road and landing very stander Jetty but hundred hundred years the people of the Hatia, Sandwip and other Island don't have any Jetty to go main land of the country . Millions of people of our island are suffer miserable life for road and houses and mainly for a good Jetty. Its a very sad news for them. we are requesting to government please make the Jetty for our Island as like Vasan Chor.

Kazi

২০২১-০১-২৮ ০০:২৬:৪৭

Ruhinga are entering heaven from hell refugees camps. Well built house, space around and clean air available there. They can grow some vegetables around their houses too. All together a life of liberty

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

তিন বছর পর রহস্য উদঘাটন

এক প্রেমিকের প্রতারণার বলি দুই বোন

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

পল্লবীতে যুবককে কুপিয়ে জখম

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

খুলনায় বিএনপির সমাবেশে বক্তারা-

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য রাজপথের বিকল্প নেই

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

লেখক মুশতাকের মৃত্যুতে বিক্ষোভ

৭ জনকে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status