র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা পাঁচে ‘রোমাঞ্চিত’ মিরাজ

স্পোর্টস রিপোর্টার

খেলা ২৮ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

৪৪ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ার। তাতে মেহেদী হাসান মিরাজ মাত্র ২ বারই পেয়েছেন ৪ উইকেট। প্রথমটি ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮ আর অন্যটি এ বছর ২২শে জানুয়ারি। এই দুই প্রাপ্তির মধ্যে  কেটে গেছে ২ বছর ১ মাস। শুধু তাই নয় শেষ ২২ ইনিংসে এই দুই অর্জন ছাড়া বাকি সময়টা ৫০ ওভারের ফরমেটে নিজের যোগ্যতার তেমন প্রমাণ রাখতে পারেননি মিরাজ। তাই এই তরুণ অফ স্পিনারের ওয়ানডে দলে জায়গা পাওয়া নিয়েও ছিল সংশয়। তবে ভরসা রেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেই আস্থার প্রতিদানও দিয়েছেন ৩ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে।
এতে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়েও বেশ উন্নতি দেখছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। গতকাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল প্রকাশিত হাল নাগাদ বোলিং র‌্যাঙ্কিংয়ে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছেন বাংলাদেশি এ অফস্পিনার। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দারুণ পারফরম্যান্সের কারণে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৯ ধাপ এগিয়েছেন তিনি। মিরাজ ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এবারই সর্বোচ্চ রেটিং পয়েন্ট ৬৯৪ অর্জন করেছেন। সেরা পাঁচে থাকার এমন প্রাপ্তিতে ভীষণ রোমাঞ্চিত মিরাজ। গতকাল সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ খুব ভালো লাগছে। আমি আসলে চিন্তাও করতে পারিনি সেরা পাঁচে থাকব। আল্লাহর অশেষ রহমতে খুব ভালোই লাগছে যখন শুনতে পেরেছি এবং সবাই যখন টিম মেটরা উইশ করেছে এবং খুব ভালো লাগছে।’

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক মিরাজের জাতীয় দলে যাত্রা দারুণ রোমাঞ্চের। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেকেই বল হাতে ১২ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়েন তিনি। দুই ম্যাচে সিরিজে তার শিকার দেশের সেরা ১৯ উইকেট। ওই ম্যাচে ইংলিশদের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয় পায় বাংলাদেশ। তবে এই অফ স্পিনার নিজের বোলিং ক্যারিশমা শুধু লাল বলেই সীমাবদ্ধ রাখতে চাননি। তার স্বপ্ন ছিল সাদা বলেও দেখাবেন সমান দাপট। এই জন্য করেছেন অক্লান্ত পরিশ্রমও। আইসিসির  ওয়ানডে বোলিং র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা পাঁচে উঠে আসা তার সেই পরিশ্রমের অর্জন বলে মনে করেন মিরাজ। তিনি বলেন, ‘টেস্ট খেলা শুরু করার পর আমার চিন্তা ছিল যে শুধু আমি লাল নয় খেলব  সাদা বলেও। চেষ্টা করেছি ওয়ানডে ক্রিকেট খেলতে হলে কিভাবে ভালো করতে হবে এবং আমার কোন কোন জায়গায় ডেভলপ করতে হবে। চিন্তা করেছি ওয়ানডে ক্রিকেট খেলতে হলে আমার  বোলিং ইকোনমিটা ঠিক রাখতে হবে এবং ব্রেক থ্রু দিতে হবে মাঝে মধ্যে যখন টিমের প্রয়োজন। ঐটা নিয়েই চেষ্টা করছি এবং আমি যখন বোলিং করি চেষ্টা করি দলের প্রয়োজনে ইকোনমিটা ঠিক রাখার জন্য। এবং যদি টিমের প্রয়োজন হয় ব্রেক থ্রু এনে দেয়ার জন্য। এটাই আমি সবসময় চেষ্টা করি এবং ঐ অনুযায়ী বল করি।’

১০ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেই টাইগাররা ওয়ানডে সিরিজে হোয়াটওয়াশ করেছে সফরকারী উইন্ডিজকে। দলের এমন পাফরম্যান্সে মিরাজ দারুণ খুশি। তিনি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহর কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া আদায় করছি যে আমারা ভালো ক্রিকেট খেলেছি। এবং টিমের প্রত্যেকটা মানুষই ভালো খেলেছে। ১০/১১ মাস পর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটে ফিরে আমরা যেভাবে ক্রিকেট খেলেছি তাতে আমার মনে হয়নি আমরা এত মাস ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটের বাইরে ছিলাম। মেন্টালি সবাই সবাইকে ব্যাক আপ করেছে সাপোর্ট দিয়েছে। শেষ এক সপ্তাহ আমাদের সবারই খুব ভালো গিয়েছে। আমরা সিরিজটাও জিতেছি এবং আমরা বেশ পয়েন্টও পেয়েছি।’

শুধু মিরাজই নয় ওয়ানডের বোলিং র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা ১০ জায়গা পেয়েছেন দেশের সেরা  পেসার মোস্তাফিজুর রহমানও। তিনি আছেন অষ্টম স্থানে। সতীর্থ বন্ধুকে নিজের সঙ্গে পাওয়ায় উৎফুল্ল মিরাজ। তিনি বলেন, ‘আমাদের সবার জন্য এটা অনেক ভালো যে মোস্তাফিজুর টপ টেনের মধ্যে আছে। সে ওয়ার্ল্ড ক্লাস বোলার। অনেক দিন ও ছন্দে ছিল না বাট এই সিরিজে অনেক ভালো বল করেছে এবং আমার মনে হয় যে টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে প্রত্যেক প্লেয়ারই হ্যাপি ওর পারফরম্যান্সে। আমার অনেক ঘনিষ্ঠ বন্ধু, আমরা ছোটবেলা থেকেই একসঙ্গে ক্রিকেট খেলছি। অনূর্ধ ১৬, ১৭, ১৮, ১৯ সবই খেলেছি।’  

আপনার মতামত দিন

খেলা অন্যান্য খবর

বাংলাদেশ দলের নিউজিল্যান্ড সফর

অবশেষে মাঠের সুবাস নিচ্ছেন টাইগাররা

৪ মার্চ ২০২১



খেলা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status