বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) জানুয়ারি ২৬, ২০২১, মঙ্গলবার, ৫:১৬ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫২ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে নাগরিকদের ভ্রমণের ক্ষেত্রে সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ভ্রমণ সতর্কতা বিষয়ক এক আপডেটে মার্কিন নাগরিকদের পাকিস্তান ও বাংলাদেশ ভ্রমণ পুনর্বিবেচনা করতে এবং আফগানিস্তানে ভ্রমণ না করতে বলা হয়েছে। সোমবার মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট এই তিন দেশের জন্য আলাদা ভ্রমণ সতর্কতা জারি করে। এ খবর দিয়েছে দ্য ইকোনোমিক টাইমস।

খবরে জানানো হয়, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে বাংলাদেশ ভ্রমণে নাগরিকদের সাবধান করেছে যুক্তরাষ্ট্র। একইসঙ্গে বলা হয়েছে, অপরাধ, সন্ত্রাসবাদ ও অপহরণের ঝুঁকি থাকায় বাংলাদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে মার্কিন নাগরিকদের অতিরিক্ত সাবধানতা গ্রহণ করতে হবে। নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান জেলায় ভ্রমণ বিপজ্জনক। কারণ হিসেবে সেখানকার গোষ্ঠিগত সহিংসতা এবং অন্যান্য নিরাপত্তা ঝুঁকির কথা বলা হয়েছে।  

এদিকে, কোভিড-১৯, সন্ত্রাসবাদ এবং সাম্প্রদায়িক সহিংসতার কারণে পাকিস্তান ভ্রমণে নাগরিকদের সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র।
একইসঙ্গে সন্ত্রাসবাদ ও অপহরণের ঝুঁকি রয়েছে জানিয়ে নতুন আপডেটে বালুচিস্তান ও খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে সফর না করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নির্দেশনায় সন্ত্রাসবাদ ও সশস্ত্র সংঘাতের কারণে লাইন অব কন্ট্রোলের কাছাকাছি না যাওয়ার কথাও উল্লেখ করা হয়। সেখানে বলা হয়, ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে জঙ্গি সংগঠনগুলো সক্রিয় রয়েছে। এছাড়া, সেখানে ভারত ও পাকিস্তান উভয় রাষ্ট্রেরই ব্যাপক সেনা মোতায়েন রয়েছে। প্রায়ই দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি চলে। তাই এই এলাকায় ভ্রমণ অত্যন্ত বিপজ্জনক।

আরেক নির্দেশনায় মার্কিন নাগরিকদের আফগানিস্তান ভ্রমণ না করার নির্দেশ দিয়েছে স্টেট ডিপার্টমেন্ট। কারণ হিসেবে কোভিড-১৯, সন্ত্রাসবাদ, অপরাধ, বিশৃঙ্খলা, অপহরণ ও সশস্ত্র সংঘর্ষের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। মার্কিন নাগরিকদের সাবধান করে বলা হয়- অপহরণ, জিম্মি করা, আত্মঘাতি বোমা হামলা, সামরিক অভিযান, ল্যান্ডমাইন, জঙ্গি হামলা, গ্রেনেড ও গাড়ি হামলার কারণে আফগানিস্তানের যে কোনো স্থানেই ভ্রমণ করা অনিরাপদ।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

SM Aminul Islam Hira

২০২১-০১-২৭ ১০:৫৬:৫১

কি আর বলবো।

মুকুল

২০২১-০১-২৭ ০৮:৫৩:০০

ঠিকই বলছে!!!! তবে এমন দেশ থেকেও বিরত খাকা উচিৎ জেই দেশের প্রশাসনিক ভবনও সন্ত্রাসিদের থেকে নিরাপদ না এবং যে দেশের কভিড১৯ এ মৃত্যু সবচেয়ে বেশি।।।। তবে এটা ঠিক বাংলাদেশ এ গুম, অপহরন ওপেন সিক্রেট

Bidhan Barua

২০২১-০১-২৭ ০৬:৩৮:২৯

পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মুসলিম জঙ্গি গোষ্ঠীর আতুরঘর হিসাবে বিশ্বের বিখ্যাত।

রশীদ

২০২১-০১-২৭ ০৫:০৯:৪৭

ভবিষ্যতের জন্য দূসংবাদ। ব্যবসায়ীরা আসবে না। ধর্মীয় মৌলবাদীদের সাথে আপোষ সমঝোতা করে সরকার দেশের বারোটা বাজিয়ে দিয়েছে।

মনিরুল ইসলাম

২০২১-০১-২৭ ০৪:২৮:০৮

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রাস্ট্রীয়ভাবে মিথ্যাবাদী দেশ হচ্ছে আমেরিকা ও ভারত। এদের সকল স্টেটমেন্ট তাদের মনগড়া। তাদের মিডিয়া রিপোর্ট একই মিথ্যাচার। এই দেশ দুটি বেঁচে থাকা শ্রেয়।

ইনামুল হোসেন

২০২১-০১-২৬ ২৩:০৪:৩৫

ভারত সরকারেরও উচিত অনুরূপ নিষেদ জারি করা যেন তাদের নাগরিক বাংলাদেশ ভ্রমণে না আসেন।

Sagor

২০২১-০১-২৬ ২৩:০৩:৫৭

Khub valo....

মোহাম্মদ কায়েদ উদ্দ

২০২১-০১-২৬ ১৭:৫৬:২১

ভারত কিভাবে বিদেশী ভ্রমনকারীদের জন্য নিরাপদ যেখানে প্রতি মিনিটে একাধিক নারী ধর্ষিত হচ্ছে। ভারত বিশ্বে সর্বোচ্চ নারী ধর্ষনের দেশ। অথচ ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের হস্তক্ষেপে অনিরাপদ দেশের তালিকায় ভারতকে অন্তর্ভূক্ত করা থেকে বাইদেন প্রশাসন বিরত থেকেছে। এর থেকে কমলা হ্যারিসের ভারত ঘেষা নীতিরই প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে।

তারেক এস.

২০২১-০১-২৬ ১৭:৩৭:১০

"অপরাধ, সন্ত্রাসবাদ ও অপহরণের ঝুঁকি থাকায়" ... সবাই জানে বাংলাদেশে এখন অপহরণ কারা করে, সাধারণ মানুষ তো বটেই- অনেক বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত বিদেশী নাগরিক বাংলাদেশে বেড়াতে এসে ওদের হাতে অপহৃত হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা

২৭ বছর আগে ধর্ষণ, মামলা এখন

মিস পানামা প্রতিযোগিতা

অংশ নিতে পারবেন হিজড়াও

DMCA.com Protection Status