ফুডস্ট্যাম্প বর্ধিতসহ দুই নির্বাহী আদেশে বাইডেনের স্বাক্ষর

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) জানুয়ারি ২৪, ২০২১, রোববার, ৮:৫৯ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রের অনগ্রসর এবং অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে পড়া লোকজনের জন্য নতুন দুই নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা  লোকজনকে অভুক্ত থাকতে দিতে পারি না। দেশের অর্থনৈতিক বিপর্যস্ত  লোকজনের প্রতি সহমর্মিতার বাণী উচ্চারণ করে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, দেশে করোনায় চার লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আরো কয়েক লাখ মানুষের মৃত্যু আসন্ন হয়ে উঠেছে। দেশে জরুরি অবস্থা বিরাজ করছে। নতুন স্বাক্ষরিত দুই নির্বাহী আদেশে আমেরিকার অল্প আয়ের  লোকজনের মধ্যে খাদ্য সহযোগিতা (ফুড স্ট্যাম্প) বৃদ্ধি করা হয়েছে। যেসব  লোকজন স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে কাজে ফিরতে পারছে না তাদের কর্মহীন ভাতা সুবিধা বৃদ্ধি করা হয়েছে। নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করার আগে দেয়া বক্তৃতায়  প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, লোকজন কর্মহীন হয়ে পড়েছে, আমরা তা নীরব দর্শক হয়ে দেখতে পারি না।
আমাদের অবশ্যই দ্রুত সক্রিয় হতে হবে। প্রেসিডেন্ট বাইডেন তার বক্তৃতায় বলেন, ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে উঠে দাঁড়ানোর জন্য সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে সব ফেডারেল কর্তৃপক্ষকে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। বাড়ি ভাড়া দিতে না পারার জন্য ভাড়াটে উচ্ছেদ স্থগিত রাখার নির্দেশ  দেয়া হয়েছে। গৃহঋণ পরিশোধ না করার কারণে কোনো ব্যাংককে বাড়ি জব্দ না করার নির্দেশ দেয়া হয়। ভিন্ন এক নির্বাহী আদেশে প্রেসিডেন্ট বাইডেন ফেডারেল নাগরিক প্রণোদনা দ্রুত নিশ্চিত করা ও জনগণের হাতে পৌঁছানো সহজ করার জন্য অর্থ বিভাগের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন। দীর্ঘ চার বছরের বেশি সময় পর আমেরিকার লোকজন আবারো সহমর্মিতার কথা শুনতে পারছে তাদের  প্রেসিডেন্টের মুখ থেকে। ওয়াশিংটনের রাজনীতিতে প্রায় অর্ধ শতাব্দী থেকে জো বাইডেনকে কর্মজীবী পরিবার থেকে উঠে আসা এক রাজনীতিবিদ হিসেবেই দেখা হয়েছে। নিজের দরিদ্রতা তিনি কখনো আড়াল করেননি। আমেরিকার মধ্যবিত্ত কর্মজীবীদের মনের কথাই উচ্চারিত হচ্ছে  প্রেসিডেন্ট বাইডেনের পক্ষ থেকে। বাইডেন প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমেরিকার অভ্যন্তরীণ সহিংসতা ও চরমপন্থা সামাল দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট বাইডেনের দ্বিতীয় পূর্ণ কর্মদিবসেই জাতীয় গোয়েন্দা বিভাগের সমন্বয়ে একটি পরিচালকের পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। আমেরিকার জেগে ওঠা চরমপন্থি এবং তাদের নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের ওপর এখন নজরদারি করবে আলাদা দপ্তর। নতুন মার্কিন ফার্স্টলেডি জিল বাইডেন শুক্রবার বিকালে হঠাৎ করেই  হোয়াইট হাউসের বাইরে পাহারারত ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের অভিনন্দন জানাতে এগিয়ে যান।
প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ছেলে প্রয়াত বিউ বাইডেনের নাম উল্লেখ করে জিল বাইডেন বলেন, ন্যাশনাল গার্ডে একসময় দায়িত্ব পালন করেছেন বিউ। তাদের হৃদয়ে সব সময় ন্যাশনাল গার্ডের কথা জাগ্রত থাকে উল্লেখ করে জিল বাইডেন তাদের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা

২৭ বছর আগে ধর্ষণ, মামলা এখন

মিস পানামা প্রতিযোগিতা

অংশ নিতে পারবেন হিজড়াও

DMCA.com Protection Status