আগামী সপ্তাহে সিদ্ধান্ত জানাবে বুয়েট

প্রকৌশল গুচ্ছ পরীক্ষা নিয়ে দ্বিমত

স্টাফ রিপোর্টার

শিক্ষাঙ্গন (১ মাস আগে) জানুয়ারি ২০, ২০২১, বুধবার, ৪:০৪ অপরাহ্ন

গুচ্ছপদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার জন্য প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ইংরেজি বানানের আদ্যক্ষর দিয়ে পর্যায়ক্রমে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান এবং ভর্তি পরীক্ষা চার বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা জানিয়েছে বুয়েট ব্যতীত অন্য তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলররা। এ দুটি বিষয়ে বুয়েট আগামী সপ্তাহে জরুরি একাডেমিক কাউন্সিলের সভা আহ্বান করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।

গুচ্ছপদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ বিষয়ে বুয়েটের একাডেমিক কাউন্সিলের দেওয়া সিদ্ধান্তের ওপর রুয়েট, চুয়েট ও কুয়েটের একাডেমিক কাউন্সিলের দেওয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে আজ বুধবার ইউজিসি’র সঙ্গে ভাইস চ্যান্সেলরদের এক ভার্চ্যুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।  বুয়েটের প্রস্তাবনা অনুসারে, প্রতি বছর কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান বুয়েট থেকে এবং পরীক্ষার কেন্দ্র শুধুমাত্র বুয়েটেই হবে। তবে, কমিটিতে অন্য প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অংশীদারিত্ব থাকবে। প্রশ্নপত্র কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির প্রণয়ন করবে।

ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর- এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম শেখ, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভিসি প্রফেসর ড. আব্দুল জব্বার খান হোসেন যুক্ত ছিলেন।

এছাড়া, সভায় ইউজিসি’র জনসংযোগ ও তথ্য অধিকার বিভাগের পরিচালক ড. শামসুল আরেফিন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ম্যানেজমেন্ট বিভাগের পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোহাম্মদ জামিনুর রহমান এবং বুয়েটের তিনজন অধ্যাপক অংশগ্রহণ করেন।

সভায় বুয়েটের প্রো-ভিসি প্রফেসর জব্বার বলেন, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ লাঘবে তারা এই পদ্ধতিতে যাচ্ছেন। বুয়েটের চলমান ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি নিয়ে কোন ধরনের প্রশ্ন নেই। গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় কোন ধরনের বিপর্যয় যাতে না ঘটে, সেদিকে আমরা সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।

সভায় ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক আলমগীর বলেন, শিগগিরই এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হবে।
ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতি নিয়ে শিক্ষার্থীরা উদ্বিগ্ন। এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ সবার জন্য মঙ্গলজনক। গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় সকল বিশ্ববিদ্যালয়কে তিনি উদারভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত এক সভায় ৪ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ও তাদের মনোনীত প্রতিনিধিরা জানান, গুচ্ছপদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিতে সবাই নীতিগতভাবে সম্মত আছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Towfiq

২০২১-০১-২৪ ২০:৫০:২৪

Mr Abul Kashem you are absolutely right.

আবুল কাসেম

২০২১-০১-২০ ০৪:৪১:৩৩

বুয়েটকে গুচ্ছ পদ্ধতির বাইরে রাখাই ভালো ছিলো এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কেও গুচ্ছপদ্ধতির অন্তর্ভুক্ত করা উচিত হবেনা। কারণ, এদুটো বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতিতে গেলে ভালো শিক্ষার্থীরা বঞ্চিত হতে পারে। অনেক বছর ধরে মেডিকেলে গুচ্ছ পদ্ধতির অনুসরণ করা হচ্ছে। সেখানে মেধা তালিকার ক্রমানুসারে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল, তারপরে সলিমুল্লাহ মেডিকেল, তারপরে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল, তারপরে ময়মনসিংহ মেডিকেল, এভাবে মেডিকেল কলেজের মান অনুযায়ী এবং শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম অনুযায়ী সকল মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। বুয়েট ও ঢাবি' র প্রতি যেহেতু শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বেশি তাই গুচ্ছ পদ্ধতিতে গেলে ইঞ্জিনিয়ারিং এর বেলায় বুয়েটের ও সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বেলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব গুলো আসন মেধাক্রম অনুযায়ী পূরণ আগে হবে কিনা এ বিষয়টি এখনো পরিষ্কার নয়। অন্যদিকে যে ১৯ টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতিতে যাচ্ছে সেগুলোর মধ্যে (SUST) শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মান অন্যগুলোর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছে। সেই ১৯ টিতে কিভাবে মেধার ক্রম অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হবে তা পরিষ্কার নয়। যেমন, এবার করোনা মহামারির কারণে এইচএসসি পরীক্ষা না হওয়াতে মেধাবী শিক্ষার্থীদের কোনো লাভ হয়নি। বরং কেউ কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরা ভালো সুযোগের ভাগিদার হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষার ক্ষেত্রেও যদি মেধাবীরা ন্যায্যতা থেকে বঞ্চিত হয় তবে তা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। সুতরাং, বুয়েটের ও অন্য সকল প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর স্বকীয়তা, মান ও ঐতিহ্য ধারণ করে শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তি করা বাঞ্ছনীয় এবং সেটা এখনই ঘোষণা করা উচিত।

Kazi

২০২১-০১-২০ ০৩:৩২:২৬

রামের সুমতি । ট্রাম্প দি থার্ডের (বরিস জনসন ) আমুল পরিবর্ত হয়েছে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর।

আপনার মতামত দিন

শিক্ষাঙ্গন অন্যান্য খবর

৩০শে মার্চ খুলছে স্কুল-কলেজ

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সাত কলেজের পরীক্ষা চলবে

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

কুবির চলমান পরীক্ষা স্থগিত

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সাত কলেজের সকল পরীক্ষা স্থগিত

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

হল খোলার দাবিতে উত্তাল ইবি

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১



শিক্ষাঙ্গন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status