ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আইন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত চাইছেন রিপাবলিকান পদস্থ সদস্য

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) জানুয়ারি ১৬, ২০২১, শনিবার, ১১:৪৫ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৫১ অপরাহ্ন

ক্যাপিটল হিলে হামলার সময় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের আচরণ সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে আইন মন্ত্রণালয়ের কাছে তদন্তের দাবি জানাবেন তারই রিপাবলিকান দলের প্রতিনিধি পরিষদের  পদস্থ এক সদস্য। গত ৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উস্কানিতে সর্মথকরা নারকীয় তান্ডবলীলা চালায় ক্যাপিটল হিলে। এ সময় সেখানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনকে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া নিয়ে শুনানি চলছিল। ভেতরে অবস্থান করছিলেন  ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স, প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ও কংগ্রেসের সদস্যরা। আকস্মিকভাবেই অধিবেশন চলাকালে সেখানে হামলা চালায় ট্রাম্পের সমর্থকরা। ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। কংগ্রেস সদস্য এবং অন্যরা তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়েন করার জন্য প্রেসিডেন্টের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন। কিন্তু ট্রাম্প কোন আহবানে সাড়া দেননি।

ফলে তার সমর্থকরা সেখানে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে তাতে দেখা গেছে, ট্রাম্পের সমর্থকরা প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি চেয়ারে বসে তার টেবিলের উপরে পা উঠিয়ে দিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় বসে আছে। ফলে বিবেককে বিক্রি করে দেননি রিপাবলিকান এমন সদস্যরা  এরই মধ্যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন প্রস্তাবে ভোট দিয়েছেন। এবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তদন্ত দাবি করেছেন টেক্সাসের প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য মাইকেল ম্যাকল। তিনি বলেছেন, ডেমোক্রেট এবং প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ট্রাম্পের অভিশংসনের যে প্রস্তাব এনেছেন আমি তার থেকেও বেশি গভীরে প্রবেশ করতে চাই। ম্যাকল বলেছেন, ক্যাপিটল হিলে নিয়ম লঙ্ঘন করে যে তান্ডবলীলা চালানো হয়েছে তার পরবর্তীতে কি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে সেটা জানতে চাই।  তিনি প্রশ্ন রাখেন-  যখন প্রেসিডেন্ট জানতে পারেন ক্যাপিটাল হিল দখল হয়ে গেছে এবং সেখানে দেশের ভিতরকার সন্ত্রাসীরা আগ্রাসন চালিয়েছে, তখন তিনি কী ব্যবস্থা নিয়েছেন?

তিনি আরো বলেন, যদি এই হামলা আল-কায়েদা চালাতো তাহলে আমি মনে করি প্রেসিডেন্ট তাৎক্ষণিকভাবে এই হামলাকে নির্মূল করতে ন্যাশনাল গার্ড নিয়োগ করতেন এবং এই হামলা বন্ধ করতেন। কিন্তু তিনি ক্যাপিটল হিলে তার সমর্থকদের চালানো তাণ্ডবলীলার সময় কোনো কথা বলেননি।

এখানে উল্লেখ্য মাইকেল ম্যাকল হলেন সাবেক একজন ফেডারেল প্রসিকিউটর। তিনি এর আগে  হাউজ হোমল্যান্ড সিকিউরিটি কমিটির চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করেন । বর্তমানে হাউস ফরেন অ্যাফেয়ারস কমিটিতে তিনি একজন রিপাবলিকান পদস্থ কর্মকর্তা। তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এমন আচরণের কারণে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আইন মন্ত্রণালয়ের কাছে একটি চিঠি পাঠাবেন। সেই চিঠিতে তিনি অনুরোধ করবেন ৬ জানুয়ারি সংঘটিত ঘটনা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে।  সিনিয়র যেসব কর্মকর্তা জড়িত রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে তদন্তেরও আহ্বান জানাবেন তিনি। এ বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের কোন  মুখপাত্রের মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এখন পর্যন্ত ক্যাপিটল হিলে সংঘটিত নারকীয় তাণ্ডবলীলার বিষয় ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনে বিলম্বের কারণ নিয়ে সাংঘর্ষিক এবং অসম্পূর্ণ রিপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে। ওয়াশিংটন পোস্ট তার রিপোর্টে বলেছে , ওই সময়ে ক্যাপিটাল পুলিশ প্রধান কমপক্ষে ৫ বার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনের জন্য জরুরী আহ্বান জানিয়েছিলেন। ঘটনার পরবর্তীতে তিনি পদত্যাগ করেছেন। কিন্তু তার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনের আহ্বান প্রথমেই প্রত্যাখ্যান করেন আর্মি সেক্রেটারি রাইয়ান ম্যাকার্থি । পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মিলার ক্যাপিটল হিলে মৌখিকভাবে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনের সিদ্ধান্ত দেন।  ঐদিন স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটা চল্লিশ মিনিটের আগে সেখানে ন্যাশনাল গার্ড এর কোন সদস্য যাননি। ততক্ষণে দাঙ্গাকারীরা তাদের তাণ্ডবলীলা চালিয়ে চলে গেছে। কিন্তু ওইদিন এক ভিডিও বার্তায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, তিনি তাৎক্ষণিকভাবে ন্যাশনাল গার্ড-এর সদস্যদের মোতায়েন করেছেন। কিন্তু নিউইয়র্ক টাইমস রিপোর্ট করেছে যে, প্রথমেই ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন ট্রাম্প। পরবর্তীতে সেখানে ন্যাশনাল গার্ড অনুমোদন করেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স।  তবে এ বিষয়ে সাক্ষাতকারে পরে বিস্তারিত বলেছেন ম্যাকল । তিনি বলেছেন, কংগ্রেসের ভেতর থেকে কিছু সদস্য সরাসরি ট্রাম্পকে ফোন করেছিলেন এবং তার প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন- আমাদেরকে রক্ষা করুন,  যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই সহিংসতা বন্ধ করান। এখানে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করুন ।

 

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান দহরম-মহরম

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status