প্রাচীনত্ব না দীর্ঘতম?

চলতে ফিরতে ৯ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:০৮ অপরাহ্ন

পৃথিবীর বুকে কোন শহর সব থেকে পুরাতন? এই নিয়ে বিতর্কের অন্ত নেই। ইতিহাসবিদরা তাদের নিজেদের ব‍্যাখা থেকে নানা যুক্তি দিয়েছেন। তবে এত যুক্তি দিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে আসা যায় কিনা তা আজও বিতর্কের বিষয়। মানুষের জীবনযাত্রা শুরু হয়েছিল ৬ হাজার বছর আগে। তবে কোন প্রাচীন শহর পৃথিবীতে প্রথম ছিল? এই প্রশ্নের উত্তরে দেখা গিয়েছে পৃথিবীতে এমন বহু শহর ছিল যেগুলো সঠিকমাত্রায় হয়তো শহরের মর্যাদা পায়নি। তবে সেখানে বহু মানুষ বসবাস করতেন।

বহু ইতিহাসবিদের মতে, জনসংখ‍্যা এবং জনঘনত্ব এই দু’টি নিয়েই শহরের ব‍্যাখা দেয়া হয়। প্রাচীন শহরের বিভিন্ন ঘরবাড়ি, মন্দির, স্থাপত‍্য শিল্পের ওপর ভিত্তি করে সেই শহরকে ইতিহাসের পাতায় স্থান দেয়া হয়। কারণ পৃথিবীর বুকে এমন বহু শহর ছিল যেগুলি একই সময় বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করলেও তাদের প্রাচীনত্ব নিয়ে আজও রয়েছে ধোঁয়াশা।

প্রত্নতত্ত্ববিদদের মতে, মেক্সিকো শহরকে অন‍্যতম প্রাচীন একটি শহর হিসাবে মনে করা হয়।

যীশুর জন্মের ৩০০ বছর আগে ৫ হাজার মানুষের জনবসতি নিয়ে তৈরি হয়েছিল এই শহরটি। তবে অন‍্য একটি সূত্রের মতে, সেই সময় মেক্সিকোতে আরও বেশি সংখ‍্যায় মানুষ বাস করতেন। তবে শহরগুলো নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন‍্য যথেষ্ট সংগ্রাম করেছিল। খাদ‍্য, বস্ত্র এবং বাসস্থান করাই ছিল তাদের প্রধান সংগ্রাম। এর পাশাপাশি ভূমিকম্প, ভূমিধসের মত ঘটনা তখনকার মানুষকে বিব্রত করেছিল। প্রাচীন বোস্টন শহরকে তাই তৈরি করা হয়েছিল সমস্ত নিয়ম মেনেই।

বহু পুরাতত্ত্ববিদরা মনে করেন, সেইযুগে শহরের প্রাচীনত্ব তাদের ধর্মের ওপরেও অনেকটাই নির্ভরশীল ছিল। শহরে মানুষের বসবাসের প্রধান আকর্ষণ হিসাবে সেটাও ছিল অন্যতম একটি কারণ। মনে করা হয়, ইন্দুস ভ‍্যালি যা বর্তমানে পাকিস্তান বলে পরিচিত এবং ভারতবর্ষের জন্ম হয়েছিল ৩ হাজার বছর আগে। সমসাময়িক বয়স হিসাবে ধরা হয় এই দুই দেশের প্রতিবেশী দেশ চীনকেও। তবে এদের সকলকে ছাপিয়ে গিয়েছিল মেসোপটেমিয়া সভ‍্যতা, যা ১০ হাজার বছরের পুরনো। এখানকার প্রাচীন ধ্বংসাবশেষ ইতিহাসবিদদের সেই প্রমাণই দিয়েছে। সেই সময় এখানে প্রায় দু’হাজার থেকে শুরু করে তিন হাজার বাসিন্দা বসবাস করতেন। সেটা ছিল এখন থেকে প্রায় ৯ হাজার বছর আগে।

ক‍্যাটালহউক- যা বর্তমানে তুর্কি দেশে রয়েছে সেখানেও হাজার হাজার মানুষের বাসস্থানের নিদর্শন মিলেছে। সেই সময় বাজারের পাশাপাশি দ্বিতল বাড়ির নিদর্শনও পাওয়া গেছে। তাদের শহরগুলোকে তারা এমনভাবে তৈরি করেছিলেন যাতে বহু মানুষ একসঙ্গে বসবাস করতে পারে। ব্রোঞ্জযুগে টাইগ্রিস এবং ইউফ্রেটিস নদী যা বর্তমানে ইরাকে রয়েছে তাকে কেন্দ্র করেও তৈরি হয়েছিল প্রাচীন সভ‍্যতা। সেখানেও তখন ৪০ হাজার মানুষ বসবাস করতেন।

তবে পৃথিবীর প্রাচীন শহরের খোঁজে আজও প্রত্নতত্ত্ববিদরা তাদের খোঁজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এই তালিকায় দামাস্কাস এবং জেরুজালেমকেও ফেলে দেয়ার মত নয়। তাই অনেক সময় প্রশ্ন ওঠে, প্রাচীন শহরের তকমা কাকে দেয়া উচিত? প্রাচীনত্ব না দীর্ঘতম। কে এই লড়াইয়ে এগিয়ে। এই তর্ক থাকবেই, সঙ্গে থাকবে ইতিহাসের সেরা হয়ে ওঠার লড়াইও।

সূত্রঃ ডিসকভার ডট কম

আপনার মতামত দিন

চলতে ফিরতে অন্যান্য খবর

দেবতাখুমে এক প্রহর

২৪ ডিসেম্বর ২০২০

কোস্ট লাইফের ছয় মাস

২৫ নভেম্বর ২০২০

কলকাতার ডায়েরি

হাওড়া সেতুতে চালু হলো লাইট অ্যান্ড সাউন্ড শো

১৩ জানুয়ারি ২০২০



চলতে ফিরতে সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status