রংপুরে বধ্যভূমির কুয়ায় মিললো মানুষের হাড় ও দাঁত

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে

অনলাইন (১ মাস আগে) ডিসেম্বর ১, ২০২০, মঙ্গলবার, ৮:০৯ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৬:০০ পূর্বাহ্ন

মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর ব্যবহৃত রংপুর টাউন হল টর্চার সেলের পাশে বধ্যভূমির কুয়া থেকে মানুষের হাড় ও দাঁতের অংশ বিশেষ পাওয়া গেছে। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের জন্য খনন কাজে শ্রমিকরা দেহের এসব অংশ পান। এ খবর চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষরা বধ্যভূমিতে ছুটে আসেন হাড় ও দাঁতের অংশগুলো দেখার জন্য। গত ১৬ই নভেম্বর টাউন হলের পাশে বধ্যভূমিতে স্মৃতি সংরক্ষণ ও সৌন্দর্য বর্ধনের লক্ষ্যে ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ে  মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়।
খনন কাজের সময় উপস্থিত সংবাদকর্মী রেজাউল করিম জীবন বলেন, ‘আমার মতো তরুণ যুবরা মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি। কিন্তু ইতিহাস থেকে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর নির্মমতা, হত্যাযজ্ঞ ও তাণ্ডবের কথা শুনেছি। টাউন হল টর্চার সেলে এনে মানুষদের হত্যা করার ইতিহাস শুনেছি। কিন্তু সেই নির্মমতার শিকার হওয়া মানুষের হাড়-হাড্ডি ও দাঁতের অংশ বিশেষ স্বচক্ষে দেখতে পেলাম।
ইতিহাস ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বাঁচিয়ে রাখতে এসব হাড়গোড় সংরক্ষণ করা জরুরি। একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির রংপুর সভাপতি ডা. মফিজুল ইসলাম মান্টু বলেন, মুক্তিকামী বাঙালি, মুক্তিযোদ্ধা ও নিরীহ মানুষদের ধরে এনে টাউন হল টর্চার সেলে নির্যাতন ও হত্যা করেছিল। মা-বোনদের ইজ্জত লুটসহ তাদের হত্যা করে ফেলে দেয়া হয়েছিলো টাউন হলের পাশের কুয়াতে। এই ইতিহাসের কথা এতোদিন আমরা সবাই বলছিলাম। হায়েনাদের হাতে মারা যাওয়া মানুষের আজ হাড়গোড় মিলেছে। আমরা মুক্তিযুদ্ধের মহান ইতিহাস সংরক্ষণ করে অমরগাথা ও স্মারক চিহ্ন জীবন্ত রাখতে চাই।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

পাচারকারীদের টার্গেট নারী ও শিশু

রোহিঙ্গাদের সোনার হরিণ মালয়েশিয়া !

২০ জানুয়ারি ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



কক্সবাজারের ‘পাওয়ার আলী’

গৃহপরিচারক থেকে হাজার কোটি টাকার মালিক

DMCA.com Protection Status