ভাস্কর্য নিয়ে অনাহূত বিতর্কের ভিন্ন উদ্দেশ্য আছে

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ২৯ নভেম্বর ২০২০, রোববার

যারা ভাস্কর্য নিয়ে অনাহূত বিতর্ক সৃষ্টি করছে তাদের ভিন্ন কোনো উদ্দেশ্য আছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল সরকারি বাসভবন থেকে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে একটি ধর্মীয় সামপ্রদায়িক গোষ্ঠী ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে ধর্মপ্রিয় মানুষের মনে বিদ্বেষ ছড়ানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এ দেশে ইসলাম সম্পর্কে গবেষণা ও চর্চা এগিয়ে নিতে বঙ্গবন্ধু প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন।
বঙ্গবন্ধু ধর্মীয় শিক্ষা প্রসারে মাদ্রাসা বোর্ড পুনর্গঠনসহ ইসলাম প্রচারে তাবলীগ জামাতকে জমি দিয়েছিলেন জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা পবিত্র ধর্মের একজন নিবেদিতপ্রাণ ও অনুসারী হিসেবে ইসলামের সঙ্গে জ্ঞান-বিজ্ঞানের সমন্বয় করে প্রকৃত ইসলামের চর্চা এগিয়ে নিতে দেশের প্রতিটি উপজেলায় নির্মাণ করেছেন মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স।
ওবায়দুল কাদের বলেন, একজন ধর্মপ্রাণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন সরকার পরিচালনার দায়িত্বে তখন এ দেশে ইসলামবিরোধী কোনো কার্যক্রম হবে, তা বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই।
সেতুমন্ত্রী বলেন, ভাস্কর্যকে যারা মূর্তি বলে অপপ্রচারে নেমেছে তারা নিজেরাই ভ্রান্তিতে আছে, দেশের আলেম সমাজ এবং বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যেই বারবার বলেছেন- মূর্তি আর ভাস্কর্য এক নয়।
তিনি বলেন, ইসলাম আমাদের ধর্ম, এ ধর্মের বিধি-বিধানে ধর্মীয় ইস্যুতে বাড়াবাড়ি করার সুযোগ নেই। ধর্মীয় বিষয়ে বিতর্ক করতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে, নিষেধ করা হয়েছে ফিতনা-ফ্যাসাদ সৃষ্টিতে।
পবিত্র কোরআনের সূরা সাবার ১৩ নম্বর আয়াতে বর্ণিত ‘তামাসিলা’ এবং সুরা ইব্রাহিমের ৩৫ নম্বর আয়াতে বর্ণিত ‘আসনাম’ শব্দ দু’টি এক নয়। কাজেই মুফাসসিররা মনে করেন তামাসিলা মানে ভাস্কর্য আর আসনাম মানে প্রতিমা পূজা। এ দু’টি শব্দকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে বলে জানান ওবায়দুল কাদের।
প্রকৃত ইসলাম চর্চার আহ্বান জানিয়ে ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করা থেকে সবাইকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।
ধর্মকে রাজনৈতিক ইস্যুতে ব্যবহার না করারও আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের সরলতাকে দুর্বলতা ভাববেন না, জনগণের শান্তি বিনষ্ট করার যেকোনো অপচেষ্টা জনগণই রুখে দাঁড়াবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, সংবিধান ও রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য বরদাশত করা হবে না।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, সরকার প্রধান আগেই বলেছেন, দেশে কোরআন-সুন্নাহবিরোধী কোনো আইন হবে না। তাই অন্য কোনো পথ না পেয়ে ধর্মীয় ইস্যুকে সামনে এনে ধর্মীয় সহনশীলতা বিনষ্টের যেকোনো অপচেষ্টা সরকার কঠোর হস্তে দমন করবে। যারা দেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে, বিশ্বাস করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তাদের সবাইকে এক হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

বাইডেনের শপথ কাল

ট্রাম্প সমর্থকদের সশস্ত্র মহড়া

১৯ জানুয়ারি ২০২১

সিরামের ভ্যাকসিন আসছে কাল

১৯ জানুয়ারি ২০২১

ঐকমত্য গড়তে সম্মিলিত উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান প্রেসিডেন্টের

১৯ জানুয়ারি ২০২১

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তুলতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রেখে দেশ থেকে দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস ...

কর্মস্থলে যাওয়া হলো না ইকবাল-মায়ার

১৯ জানুয়ারি ২০২১

প্রতিদিনের মতোই বাসা থেকে বের হয়েছিলেন তারা। উদ্দেশ্য যার যার কর্মস্থলে যাওয়া। সাজ সকালে বাইকে ...

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ঢাকা সফর বাতিল

৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পাসপোর্টে সৌদিতে

১৮ জানুয়ারি ২০২১



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত

DMCA.com Protection Status