কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় নারী লাঞ্ছিত, ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথ অবরোধ

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

অনলাইন ১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৮:২৮

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় পৌরসভার সাবেক মেয়র যুবলীগ নেতার বাড়ির কেয়ার টেকারের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছে রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগের এক কর্মজীবী নারী। এই ঘটনার প্রতিবাদে ও বিচারের দাবিতে রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগের কর্মচারীরা প্রায় ৪৫ মিনিট ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথ অবরোধ করে রাখে। ঘটনাটি ১৭ই অক্টোবর  শনিবারের।
রেলওয়ে থানায় দায়ের করা অভিযোগ ও ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথের ধামাইল এলাকায় সাবেক পৌর মেয়র যুবলীগ নেতা এডভোকেট কায়সার আহম্মেদের বাড়ির সামনে রেললাইনের ওভারহেলিং এর কাজ করছিল রেলওয়ের প্রকৌশল শাখার দুইজন নারী কর্মচারীসহ ৪/৫ জন কর্মচারী। এ সময় সাবেক মেয়রের বাড়ির কেয়ার টেকার  লিটন ওরফে বাশু লিটন (৪৮) এই দুই কর্মজীবী নারীকে অশ্লীল কথাবার্তা বলে উত্ত্যক্ত করতে থাকে এবং কুপ্রস্তাব দেয়। লিটন ওই দুই নারীকে মেয়রের বাড়ির ভিতর হাফিজুলের কাছে যেতে বলে। এ সময় কেয়ারটেকার বাশু লিটন রেলের পুরুষ কর্মচারীদের লাঠি ও অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধাওয়া দেয়। রেলের প্রকৌশল বিভাগের মেইড মো. শহীদ মিয়া (৩২), ওয়েম্যান আজিজুল (৩৩), কমলা আক্তার (২৮) প্রাণভয়ে দৌড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে পারলেও ওয়েম্যান আকলিমা বেগম (২৮) কে আটকিয়ে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে সন্ত্রাসী বাশু লিটন। ঘটনা দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে বাশু লিটন ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
এ ঘটনার প্রতিবাদে রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগের কর্মচারীরা বিকাল সাড়ে চারটা থেকে বিকাল সোয়া পাঁচটা পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথ অবরোধ করে রাখে।
এ সময় দেওয়ানগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী দেওয়ানগঞ্জ কমিউটার ট্রেন গফরগাঁও রেল স্টেশনের ইনার সিগন্যালের কাছে আটকা পড়ে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে রেলকর্মীরা অবরোধ তুলে নেয়। লাঞ্ছিত কর্মজীবী নারী আকলিমা বেগম বলেন, আমরা দরিদ্র নারী। পেটের দায়ে চতুর্থ শ্রেণির চাকরি করি। চাকরি করতে এসে কুপ্রস্তাবের শিকার হলাম এবং লাঞ্ছিত হলাম।
রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগের গফরগাঁওয়ের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রেলের ঊর্ধ্বতন মহল বিষয়টি অবগত আছে। মামলা করার জন্য লাঞ্ছিত নারী বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।
গফরগাঁও রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শহিদুল্লাহ হিরু জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আবু বকর

২০২০-১০-১৭ ২২:৩৪:৩৩

এতদিন দেখে আসলাম, আগে গ্রেফতার, পরে তদন্ত। এখানে আগে তদন্ত, গ্রেফতার নয় কেন?

Farid Ahmed

২০২০-১০-১৮ ০৯:১৩:৫৯

এরা কারা??? দেশ স্বাধীনের সময় ও এত ধযর্ণ হয় নাই।

Farid Ahmed

২০২০-১০-১৮ ০৯:১৩:৫৩

এরা কারা??? দেশ স্বাধীনের সময় ও এত ধযর্ণ হয় নাই।

Kazi

২০২০-১০-১৭ ০৭:৫৪:২৩

যুবলীগ নেতার যৎসামান্য কেয়ার টেকারের এত প্রতাপ ? দেশে মানুষের বসবাস ই অসম্ভব হয়ে পড়ছে।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

মার্কিন নির্বাচন: আর ৭ দিন

বদলাচ্ছে রণকৌশল, ডলার উড়ে বেড়াচ্ছে বাতাসে

২৬ অক্টোবর ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত