আমরাও কিন্তু দায় এড়াতে পারবো না!

রাশেদা রওনক খান

ফেসবুক ডায়েরি ৬ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৩০

মাদক, মোবাইল ও ইয়াবা যখন অপ্রাপ্তবয়স্কদের হাতে, এলাকার ক্ষমতা যখন বখাটে বর্বরদের কব্জায়, রাজনীতি যখন রাজনীতিবিদের আওতার বাইরে, মানবিকতা যখন উধাও, অর্থনৈতিক দুবৃত্তায়নই যখন সমাজের মুল চালিকা শক্তি, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী যখন নানা কারণে নিজের অস্তিত্ব সংকটে, আর 'আমরা' সচেতন সমাজ যখন অসচেতন, তখন এমন সব ঘটনাই ঘটার কথা, যা ঘটছে এখন...প্রতিদিন!
ভিডিও দেখে যারা লজ্জিত হয়েছি, আমাদের আসলে প্রতিদিনই যতবার একেকটি ধর্ষণের কথা শুনি, নারী নির্যাতনের কথা পড়ি পত্রিকায়, ততবারই লজ্জিত হবার কথা... কিন্তু আমরা হইনা, আমরা সয়ে যাই, মেনে নেই, মানিয়ে নেই, আমাদের কি আসে যায় অজপাড়াগাঁয়ের কোন এক বালিকা ধর্ষিত হলে? যখন এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের কর্মীবাহিনী ধর্ষণ করে তখন আমাদের কিছুটা নড়ে চড়ে বসতে দেখি...আর আজ যখন ভিজ্যুয়ালাইজেশনের কারণে পুরো সমাজ উলঙ্গ হয়ে যায়, তখন আরেকটু বেশি ধাক্কা লাগে .. আজ যখন তা ভিজ্যুয়ালি চোখের সামনে এসে পড়লো, তখন হটাৎ আমাদের সচেতন বিবেক জাগ্রত হয়ে উঠলো, এভাবে নারী নির্যাতন হয়? সত্যি, এভাবেই হয়? এতোটা পাশবিক, নির্মম বর্বরতায়?
প্রতিদিন কত শত নারী বাংলাদেশের কোন না কোন প্রান্তে এভাবেই নিপীড়িত নির্যাতিত হচ্ছে, তা কি আমরা খবর রাখি? কতো নির্যাতক-নিপীড়কও আজ ফেসবুকে এসে বলবেন, কি মর্মান্তিক ঘটনা! কি হল দেশটার! এই হল আমাদের ফেকবুক! তাই আজকাল ফেসবুক ব্যবহারও খুব অপ্রয়োজনীয় মনে হয়|
আমরা যারা প্রতিদিন ধর্ষণের খবর পড়ার জন্যই পড়ি, ধর্ষণকে সয়ে যাওয়া একটি বিষয়ে পরিণত করেছি নিতান্ত অবহেলায়, প্রতিদিনের স্বাভাবিক ঘটনা বানিয়ে ফেলেছি - দিনের পর দিন এইধরণের অন্যায়ের বিরুদ্ধে নিরব থেকেছি, এই আমরাও কিন্তু এই দায় এড়াতে পারবো না!
সময় হয়েছে যার যার জায়গা হতে দায় নেবার! সময় হয়েছে পরিবর্তিত এই সমাজ ব্যবস্থায় বিদ্যমান বিচার ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে স্বাধীন সত্তা হিসেবে কাজ করার পরিবেশ তৈরি করা! নয়তো ধ্বংস হবে এই যুব সমাজ, বর্বরতায় ছাড়িয়ে যাবে সকল সীমা-পরিসীমা, নিপীড়িত হবে নারীরা, ধর্ষিত হবে পুরো সমাজ!
(লেখকের ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া)

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

MD.NASRUL ISLAM RIPO

২০২০-১০-০৬ ১৭:২৮:২৭

সময় হয়েছে পরিবর্তিত এই সমাজ ব্যবস্থায় বিদ্যমান বিচার ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে স্বাধীন সত্তা হিসেবে কাজ করার পরিবেশ তৈরি করা! নয়তো ধ্বংস হবে এই যুব সমাজ, বর্বরতায় ছাড়িয়ে যাবে সকল সীমা-পরিসীমা ।পুলিশ বাহিনীকে সংস্কার করতে হবে। তত্তবধায়ক সরকারের আমলে পুলিশ কে সংস্কার করতে চেয়েছিল কিন্তু সরকার তা আজো করনি ...। রাজনৈতিক নেতা -কর্মী নির্বাচনে সৎ- শিক্ষিত আদর্শবান নাগরিকদের দলে আনতে হবে। অপকর্মকারীদের রাজনৈতিক শেল্টার দেয়া বন্দ করতে হবে।

Md. Harun al-Rashid

২০২০-১০-০৬ ১৪:২৬:২০

দায়তো এড়িয়েই গেলেন ।কই সংঘবদ্ধ নারী নেতৃগন পুলিশ প্রধান বা সরকরের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী মহোদয়ের নিকট জোরালে আবেদন পর্যন্ত করতে ইতস্তত হতে দেখা গেলা। যে পুলিশ,RAB বা আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যদের প্রয়োজনে জীবন পর্যন্ত উৎসর্গ করতে দেখা গেছে দ্বিধাহীন চিত্তে। মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতর পথে পড়ে থাকা মাকে পুলিশ সদস্যই তো তুলে নিলো পরম যত্নে ও মমতায়। সেই শততকর্মনিষ্ঠ পুলিশ কী করে এতো বেপরোয়া হয়ে উঠা ধর্ষকবাহিনীদের খোঁজ পায়না। এটাই প্রশ্ন।

Fazlu

২০২০-১০-০৬ ১৪:২০:০১

সুযোগ থাকলে কার উপর দায় চাপাতেন? এখন আমরা যতই মোগল বাবাজি বা ব্রিটিশ বাবাজিদের ডাক পাড়ি না কেন, কেহই আমাদের কথা শুনতে আসবে না। কারণ আজকের এই সমাজের সকল আবর্জনা আমরাই তিলে তিলে জমা করেছি। সেটা জেনেই হোক আর না জেনেই হোক। এর সকল ধকল আমাদেরকেই ভোগ করতে হবে। আর হ্যাঁ, যেটা দেখছেন, এটা সবে মাত্র শুরু; এর সবটা আরো তীব্র হবে।

আপনার মতামত দিন

ফেসবুক ডায়েরি অন্যান্য খবর

সমস্যা কি তাইলে বোরকায়?

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

শাইখুল হাদিস থেকে আল্লামা আহমদ শফী:

আল্লামা আহমদ শফীর পাশে একজন‌ও কি ভালোবাসার মানুষ নেই?

৪ সেপ্টেম্বর ২০২০



ফেসবুক ডায়েরি সর্বাধিক পঠিত

DMCA.com Protection Status