চট্টগ্রামে বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী, দম্পতি আটক

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে

অনলাইন ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার, ১১:০৯ | সর্বশেষ আপডেট: ৭:৫০

চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে সুপারিওয়ালা পাড়ায় রোববার রাতে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সোমবার ভোরে একই এলাকা থেকে নুরী আক্তার ও তাঁর স্বামী মোহাম্মদ অন্তর নামে দুইজনকে আটক করেছে ডবলমুরিং থানা পুলিশ।  
ডবলমুরিং থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম বলেন, ২০ বছর বয়সী এক তরুণী ফেনী থেকে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে তাঁর চাচার বাসায় বেড়াতে আসেন। সেখান থেকে চাচাতো বোনের এক বান্ধবীর সাথে রোববার রাতে সুপারিওয়ালা পাড়ায় বাসায় বেড়াতে যায়। পরে ওই বান্ধুবীর পাশের বাসার চান্দু মিয়া বেড়াতে আসা তরুণীকে জোরপূর্বক তার বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করেন। রাতে বাসায় গিয়ে ওই তরুণী তাঁর চাচাকে ঘটনা বললে তাকে অসুস্থ অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান শুরু করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

NARUTTAM KUMAR BISHW

২০২০-০৯-২৯ ১১:৫৪:৫০

এই দেশের হল টা কি, চারদিকে ধর্ষণ আর ধর্ষণ এর খবর। এ থেকে আমরা কি নিস্তার পাব। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে আমাদের প্রশ্ন, এত লেখাপড়া করে আপনারা চাকুরীতে যোগদান করেছেন আজও ধর্ষণ প্রতিহত কিভাবে করতে হয় কোন বইয়েই কি কোন নির্দেশনা ছিল না?

এমদাদুলহক

২০২০-০৯-২৮ ০৬:১৪:৩২

ধর্ষণের দায় পুরোপুরি ধর্ষণকারীর। ধর্ষণকারী পুরুষ বা নারী যে কেউ হতে পার। এখানে ধর্ষণকারীর লজ্জাহীনতা, আত্মসম্মান বোধের অভাব অনেকাংশে দায়। একজন নারী উলঙ্গ চলে সেটা পুরুষের ধর্ষণ সংগঠনের কোনো যুক্তি সংগত কারণ হতে পারে ন। নারী তার শরীর অনাবৃত রাখলে যদি পুরুষের পদস্খলিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তবে পুরুষ সে পথ বলা স্হান হতে দূরে থাকব। কারণ নারী এখানে সমস্যা তৈরী করছে না। সমস্যা তৈরী করছে পুরুষ। নারী উলঙ্গ হয়েও স্বাভাবি, অথচ পুরুষ উলঙ্গ দেখেই উত্তেজিত হচ্ছে। সুতরাং এখানে ধর্ষণ ঘটনায় কোনো ভাবেই ধর্ষিত বা ধর্ষিতা কে কারণের সহায়তাকারী বানিয়ে ধর্ষণকারীর অন্যায়কে ছোট করার কোনো অবকাশ নেই।

খোকন

২০২০-০৯-২৭ ২৩:২২:৪৭

মেয়েদের বেপরোয়া চলা ফেরা ও কিন্তু বর্তমান সমাজে ধর্ষনের শিকার অনেকেই। আবার অনেকেই আছে willness ধর্ষনের শিকার। পরে হোয় হয় তো প্রেম প্রীতির বনিবনা না হওয়ায় কারণে ভালোবাসার মানুষ টিকে হয়রানি করা র জন্যই ধর্ষণ নামে ফ্যাশন করে। এতে করে ছোট খাটো ধর্ষণ কেস সমাজের একশ্রেণীর লোকের ও পুলিশ বাহিনীকে টাকা পইসার লোভ লালসার দিকে ঠেলে দেয়।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

মার্কিন নির্বাচন: আর ৭ দিন

বদলাচ্ছে রণকৌশল, ডলার উড়ে বেড়াচ্ছে বাতাসে

২৬ অক্টোবর ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত