ইতালির গণমাধ্যমে জনসনের গোপন সফরের প্রতিবেদন, অস্বীকার বৃটিশ মন্ত্রীদের

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার

বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন চলতি মাসে ইতালিতে গোপনে সফর করেছেন। ইতালির স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাত্র দুই সপ্তাহ আগেই দেশটিতে সফর করেছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী। এক বিবৃতিতে ইতালির আমব্রিয়া অঞ্চলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরও তার সফরের কথা নিশ্চিত করেছে। তবে ইতালির গণমাধ্যমের এমন দাবি অস্বীকার করেছেন বৃটিশ মন্ত্রীরা। বৃটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বলেছে, জনসনের ইতালি সফরের খবর ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’। এ খবর দিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

খবরে বলা হয়, ইতালির গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন নিয়ে বৃটিশ পরিবহণ মন্ত্রী গ্র্যান্ট শ্যাপসের কাছে জানতে চেয়েছিল স্কাই নিউজ। তাদের প্রশ্নের উত্তরে শ্যাপস বলেন, আমি এ বিষয়ে অবগত নই। আমি যতদূর জানি, তার ভিত্তিতে আমার মনে হয় কোথাও ভুল হয়েছে।

ইতালির লা রিপাবলিকা পত্রিকার এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, বার্সেলোনার ফুটবল খেলোয়ার লুইস সুয়ারেজ ১৭ই সেপ্টেম্বর পেরুগিয়া শহরে ভ্রমণ করার পরপরই সেখানে যান জনসন।
শহরটির বিমানবন্দর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, সুয়ারেজের পাশাপাশি জনসনও সাম্প্রতিক দিনগুলোয় শহরটিতে সফর করেছেন।
লা রিপাবলিকা জানান, জনসনের সফর সম্পর্কে খতিয়ে দেখেছে তারা। পেরুগিয়ার সান ফ্রানসেসকো ডি’আসিসি বিমানবন্দর জানিয়েছে, সুয়ারেজের আগের সপ্তাহেই সেখানে অবতরণ করেন জনসন। বিমানবন্দরের এক কর্মীকে উদ্ধৃত করে লা রিপাবলিকা জানায়, ১১ই সেপ্টেম্বর বা তার আগের দিন শহরটিতে পৌঁছান বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী। অপর এক সূত্রও জানিয়েছে, ১১ই সেপ্টেম্বর দুপুর ২টায় সেখানে অবতরণ করেন জনসন। সেখান থেকে বৃটেনে ফেরত যান ১৪ই সেপ্টেম্বর।

এদিকে, বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় ডাউনিং স্ট্রিটের এক মুখপাত্র বলেন, এই প্রতিবেদন সম্পূর্ণ অসত্য। প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রতিক মাসগুলোয় ইতালি সফর করেননি। এই প্রতিবেদনগুলো অন্যকেউ প্রকাশ করা মানে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো।

জনসনের গোপন পেরুগিয়া সফরের খবর অত্যন্ত কৌতুহল সৃষ্টি করেছে। কেননা, এর আগেও এমনটা করেছেন তিনি। ২০১৮ সালের এপ্রিলে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে সেখানে গোপনে সফর করেছিলেন তিনি। সান ফ্রানসেসকো ডি’আসিসি বিমানবন্দরে তার অবস্থানের ছবি প্রকাশ পেয়েছিল সে সময়। ছবিতে তাকে কিছুটা উষ্কখুষ্ক দেখাচ্ছিল। পরবর্তীতে জানা যায়, মিডিয়া বিলিয়নায় ও সোশ্যালাইট ইভগেনি লেবেদেভের মালিকানাধীন পালাজ্জো টেরানোভা প্রাসাদে অবস্থান করেছিলেন তিনি। টেরানোভা বিলাসবহুল আয়োজনের জন্য পরিচিত।
২০১৮ সালের সফরের ওই ছবি থেকে প্রতীয়মান হয় যে, পুলিশি নিরাপত্তা ছাড়াই সেখানে গিয়েছিলেন জনসন। সে সময় তার সঙ্গের এক যাত্রী জানিয়েছিলেন, জনসন একাই যাত্রা করেছেন। তার সঙ্গে কোনো লাগেজও ছিল না।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

রয়টার্সের প্রতিবেদন

করোনার আঘাতে এশিয়ায় দ্বিতীয় ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশ

২৪ অক্টোবর ২০২০

আল জাজিরার প্রতিবেদন

গ্রে লিস্টেই থাকবে পাকিস্তান

২৪ অক্টোবর ২০২০

ট্রাম্পের ঘোষণা

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করছে সুদান

২৪ অক্টোবর ২০২০



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



বিচারপতি ব্যারেটকে অনুমোদন

ট্রাম্পের উল্লাস, ডেমোক্রেটদের বয়কট

আল জাজিরার প্রতিবেদন

গ্রে লিস্টেই থাকবে পাকিস্তান