প্রেসিডেন্ট নির্বাচন: অন্যরকম এক গণতন্ত্র যুক্তরাষ্ট্রে

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৪০

সারাবিশ্বের চোখ এখন ৩রা নভেম্বরের দিকে। এদিনই হতে যাচ্ছে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এতে নির্ধারিত হবে ক্ষমতাসীন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পই টিকে থাকবেন, নাকি তাকে হটিয়ে হোয়াইট হাউজের টিকিট হাতে পাবেন ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী জো বাইডেন। অবশ্য এখন পর্যন্ত পোল অব পোলসের হিসাবে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন জো বাইডেন। তাকে সমর্থন করছেন শতকরা ৫১ ভাগ মার্কিন ভোটার। অন্যদিকে ডনাল্ড ট্রাম্পকে সমর্থন করছেন শতকরা ৪৪ ভাগ। বিভিন্ন জরিপের ওপর ভিত্তি করে এই ফল প্রকাশ করেছে অনলাইন সিএনএন। এতে দেখা গেছে এনপিআর/পিবিএস/মারিস্টের জরিপে জো বাইডেনকে সমর্থন করছেন শতকরা ৫২ ভাগ মানুষ।
ট্রাম্পকে সমর্থন করছেন শতকরা ৪৩ ভাগ। ফক্স নিউজের জরিপে বাইডেনকে সমর্থন করছেন শতকরা ৫১ ভাগ। ট্রাম্পকে শতকরা ৪৪ ভাগ। ইপসোস/রয়টার্সের জরিপে বাইডেনকে সমর্থন করছেন শতকরা ৫২ ভাগ ভোটার। ট্রাম্পকে ৪০ ভাগ। সিবিএস/ইউগভ-এর জরিপে বাইডেনকে সমর্থন করছেন শতকরা ৫২ ভাগ মানুষ। ট্রাম্পকে ৪২ ভাগ। সিএনএন/এসএসআরএসের জরিপে বাইডেনের সমর্থন শতকরা ৫১ ভাগ। ট্রাম্পের ৪৩ ভাগ। নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে এমন আরো জরিপ প্রকাশিত হবে। তাতে হিসাবে উত্থান-পতন হতে পারে।

এ নির্বাচন নিয়ে সারাবিশ্বের রয়েছে কৌতুহল। কারণ, অত্যন্ত জটিল প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয় নির্বাচন। দলীয় মনোনয়ন পাওয়া থেকে শুরু করে চূড়ান্ত ভোটের লড়াই- প্রতিটি পদে একজন প্রার্থীকে দিতে হয় পরীক্ষার পর পরীক্ষা। যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কে কোন দলের প্রধান তা বিবেচ্য নয়। দলের প্রধান হলেও তাকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে হলে দল থেকে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আসতে হয়। যে নির্বাচনকে প্রাইমারি নির্বাচন বলে আখ্যায়িত করা হয়। বিষয়টি এমন নয় যে, আপনি দলীয় প্রধান, ব্যাস বড় টিকিটটি আর কেউ কাটার এক্তিয়ার রাখেন না। সেখানে রাজনৈতিক দলগুলোর ভিতরে এই গণতান্ত্রিক চর্চা অবাক করার মতো। দলীয় ভোটাররা প্রত্যক্ষ ভোট দিয়ে রায় দিয়ে দেন, কে হবেন হোয়াইট হাউজের প্রার্থী।
আমরা যারা এসব প্রক্রিয়ার অনেক কিছুই জানি না, তাদের জন্য এ প্রক্রিয়াগুলো একবার একটু ঝালিয়ে নেয়া যেতে পারে। প্রশ্ন হতে পারে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন কখন শুরু হয়? উত্তরটা হলো প্রতি চার বছর পর পর নভেম্বরে। নভেম্বর মাসের প্রথম সোমবারের পর যে মঙ্গলবার আসে সেইদিনই নির্বাচন হয়। সেই হিসাবে এ বছর প্রথম সোমবার হলো ২রা নভেম্বর। ফলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হবে ৩রা নভেম্বর। তবে আগাম বা ইমেইলেও অনেক ভোটার ভোট দিয়ে থাকেন। এ বছর করেনা মহামারির কারণে এসব ভোট বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

রয়টার্সের প্রতিবেদন

করোনার আঘাতে এশিয়ায় দ্বিতীয় ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশ

২৪ অক্টোবর ২০২০

আল জাজিরার প্রতিবেদন

গ্রে লিস্টেই থাকবে পাকিস্তান

২৪ অক্টোবর ২০২০

ট্রাম্পের ঘোষণা

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করছে সুদান

২৪ অক্টোবর ২০২০



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



বিচারপতি ব্যারেটকে অনুমোদন

ট্রাম্পের উল্লাস, ডেমোক্রেটদের বয়কট

আল জাজিরার প্রতিবেদন

গ্রে লিস্টেই থাকবে পাকিস্তান