খিচুড়ি রান্নার প্রশিক্ষণ: বরাদ্দ বাতিল

স্টাফ রিপোর্টার

শিক্ষাঙ্গন ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৩

‘খিচুড়ি রান্না শিখতে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর’ বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে এ খাতে ১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ বাতিল করেছে পরিকল্পনা কমিশন।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘মিড ডে মিল’ সরবরাহের লক্ষ্যে এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনে বিদেশ সফরের জন্য চাওয়া হয় পাঁচ কোটি টাকা। ‘মিড ডে মিল’ বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে এক হাজার কর্মকর্তাকে বিদেশে পাঠানোর প্রস্তাব করেছিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)। একই বিষয়ে দেশে প্রশিক্ষণের জন্য আরও ১০ কোটি টাকা চাওয়া হয়েছিল।

পরিকল্পনা কমিশন থেকে জানা গেছে, মহামারি করোনার কারণে বর্তমানে কোনো প্রকল্পে বিদেশ ভ্রমণ খাত রাখা হচ্ছে না। গত সোমবার প্রকল্পটির মূল্যায়ন কমিটি (পিইসি) সভা করেছে। পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সচিব) আবুল কালাম আজাদ এ সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় এ প্রস্তাব বাতিল করা হয়েছে।।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

MAJUMDER SANTOSH

২০২০-০৯-১৭ ১৬:৪২:৩৯

যারা দেশের টাকা লুট করার চিন্তা করে তারা রাজাকার।

মোল্লা মো: নুরুল ইসল

২০২০-০৯-১৭ ০২:৩২:০২

আলহামদুলিল্লাহ্। এ ঘোষনায় আমরা জনগণ মহাখুশি। যারা কুট কৌশলে এ ধরনের প্রকল্পে বিভিন্ন কারন দেখিয়ে দেশের টাকা লুট করার চিন্তা করে তারা রাজাকার। দেশকে বাচানোর কোন চিন্তা তাদের মধ‍্যে নেই। এদের জন‍্যই আমাদের জননেত্রী বংগবন্ধু কন‍্যা দেশের উন্নয়ন করতে হোচট খান। কিন্তু আমাদের নেত্রীর সাথে জনগন আছেন।

sohel

২০২০-০৯-১৭ ১৩:৫৭:২৩

obsheshe jonogon-er joy holo. Amlara kinto ete kono vhavai mane nite parbe na. onno name prokolpo pass korie nibe. tai sobai sojag thakun. oniom hole aa-waz din.

ওয়াছি উদ

২০২০-০৯-১৭ ০০:৫২:১৩

কিভাবে প্রকল্পের টাকার ভাগ বাটোয়ারা করতে হয় এই জন‍্য বিশ্বের সব দেশের মনন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তারা আসবে এদেশে।

maya

২০২০-০৯-১৭ ১৩:৪৮:৫৯

This saved amount should be spent on reconstruct/repair hundreds of flood-damaged primary schools across the country and equip the schools with essential - class room furniture and learning materials. This is unfortunate that after 50 years of liberation, we failed to prioritize our issues. Shame on to those who think public money is for fulfilling their wishes!

ঝলক চৌধুরী

২০২০-০৯-১৭ ০০:৩১:০৮

আমরা আম জনতা, চাপলেই রস! চাপ; চাপ ; হায় স্রষ্টা! মূর্খরা তো মূর্খই, শিক্ষিতরা যে আরও কত বড় তা তুমিই জান!

নেছার আহমেদ

২০২০-০৯-১৭ ১৩:০৩:১৯

খিচুরি রান্নার প্রশিক্ষণ নেয়ার প্রয়োজন অবশ্যই আছে। তবে সেটা হল ভারতীয়রা বাংলাদেশ থেকে প্রশিক্ষণ নিবে, কারন খিচুড়িতে বাংলাদেশই সেরা। অতয়েব এই প্রশিক্ষণ বন্ধ না করে বরং ভারতীয়দের গলায় গামছা বেধে এদেশে এনে শিখিয়ে দিতে হবে খিচুড়ি কত প্রকার ও কিকি !! কারন তাদের উৎসাহেই সরকারের পক্ষে সম্ভব হয়েছে এই পুরো দেশটাকেই খিচুড়ি বানিয়ে ফেলা। অতয়েব ভারতীয়দের গলায় গামছা দিয়ে বেধে এনে বেধরক খিচুড়ি খাইয়ে এবং তার প্রশিক্ষণ দিয়ে তবেই তাদের ফেরত পাঠাতে হবে।

Kazi

২০২০-০৯-১৬ ২২:৩১:৩৪

পরিকল্পনা মন্ত্রীর কথায় ও কাজে মিল ছিল না। কিছু দিন আগেও অপচয় রোধের জন্য বড় বড় সাবধান বাণী দিয়ে খিচুড়ি রান্নার জন্য ভারত সফরের বরাদ্দ কিভাবে দিয়ে ছিলেন ? গ্রামের অভাব গ্রস্থ মহিলাদের ডেকে রান্না করান। যারা যেত তারা ফিরে এসে কি কোনদিন খিচুড়ি রান্না করত ? প্রতিটি প্রজেক্ট থেকে বিদেশের প্রশিক্ষণ নামের বরাদ্দ ও লুটপাট বন্ধ করুন। পুকুর খননের জন্য বিদেশ সফর। নোয়াখালি গেলেই তা শিখা শিখা যেত। ড্রেইন পাইপের নামে উগাণ্ডা সফর। উগাণ্ডার লোক কি আমাদের দেশের চাইতে বেশী পারদর্শী ? তা হলে মেনে নিতে হবে কি বাংলাদেশে সব বুদ্ধু সরকারী কর্মচারীতে অফিস ভর্তি। Thank for realizing.

Md. Harun al-Rashid

২০২০-০৯-১৭ ১১:০৯:৪২

বোধোদয় হওয়ার জন্য ধন্যবাদ। মাঝে মাঝে ঢেঁকি গিললেও জনমতের প্রতি সমীহ প্রদর্শনের রেয়াজ তৈরী হয় বৈকি।

আপনার মতামত দিন

শিক্ষাঙ্গন অন্যান্য খবর



শিক্ষাঙ্গন সর্বাধিক পঠিত