বিপদের ঘণ্টা বাজছে কঙ্গনার, ড্রাগ নেয়ার অভিযোগ মহারাষ্ট্র স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা

ভারত ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:১৭

একদিকে কেন্দ্রীয় সরকার ওয়াই ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দিচ্ছে অন্যদিকে তার বিরুদ্ধেই ড্রাগ নেয়ার অভিযোগ। বলিউড এর ড্রাগ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে সরব হওয়া অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত নিদারুণ সংকটে। মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ অভিযোগ জানিয়েছেন যে, কঙ্গনা নিয়মিত ড্রাগ নিতেন। মুম্বাই পুলিশ এ ব্যাপারে তদন্ত করবে।

অন্যদিকে শিবসেনার দুই বিধায়ক প্রতাপ সামায়িক এবং সুনীল প্রভু টুইট করেছেন যে, কঙ্গনা নিয়মিত ড্রাগ নিতেন এবং তার তখনকার বয়ফ্রেন্ড সুমনকে ড্রাগ নিতে বাধ্য করতেন। সুমন নিজেই এই কথা জানিয়েছেন।

কঙ্গনা পাল্টা টুইট করেছেন, মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের প্রস্তাবে স্বাগত। মুম্বাই পুলিশ আমার ব্যাপারে তদন্ত শুরু করুক।
যদি আমার কোনো চ্যাটে ড্রাগ সিন্ডিকেটের সঙ্গে যোগাযোগ থাকার কথা প্রমাণিত হয় অথবা আমি ড্রাগ নিতাম তার প্রমাণ হয় তাহলে চিরতরে আমি বলিউড ছেড়ে চলে যাবো।

উল্লেখ্য, কঙ্গনা নিয়মিত বলিউড এবং ড্রাগ সিন্ডিকেটের যোগাযোগ নিয়ে রীতিমতো সরব এবং অভিযোগ জানাচ্ছেন। ইতিমধ্যে মুম্বাই মিউনিসিপাল করেপোরেশন কঙ্গনাকে নোটিশ পাঠিয়েছে তার বান্দ্রার বাসভবন নিয়ে। চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশের জবাব না দিলে তার বাসভবনের বেআইনি নির্মাণ ভেঙে ফেলা হবে বলে নোটিশ এ বলা হয়েছে।

কঙ্গনা রানাউত হিমাচল প্রদেশে তার বাবার বাড়ি থেকে আজ মুম্বাই রওনা হয়েছেন।  মোহালি বিমানবন্দরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন,  মুম্বাই আজ পাক অধিকৃত কাশ্মীর হয়ে গেছে।  আমার বাড়ি মহারাষ্ট্র সরকার ভাঙলে তা দ্বিতীয় রাম জন্মভূমি ভাঙার মতো ঘটনা হবে।

ইতিমধ্যে কঙ্গনার বান্দ্রার বাংলোর সামনে বি এম সির বড় বড় বুলডোজার এবং ক্রেন  এর  সমাহার ঘটানো হয়েছে।  আছে ফুল পাঞ্জাব ট্রাকও।  এদিনই পুরসভা কারণ দর্শাবার নোটিশ দিয়েছে কঙ্গনাকে,  কেন তার ছবি মণিকর্ণিকার জন্যে তার অফিস প্রেমিসেসে বেআইনি নির্মাণ ভাঙা হবে না?

আপনার মতামত দিন

ভারত অন্যান্য খবর

রাহুল গান্ধী যা বললেন...

১৪ অক্টোবর ২০২০



ভারত সর্বাধিক পঠিত