তরুণীদের প্রলোভন দিয়ে নেয়া হতো দুবাইয়ের ড্যান্স বারে

স্টাফ রিপোর্টার

শেষের পাতা ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:০০ পূর্বাহ্ন

টার্গেট করা হতো সুন্দরী তরুণীদের। নানা প্রলোভন দিয়ে নিয়ে যাওয়া হতো বিদেশে। সেখানে নিয়েই ঘরবন্দি। যৌনকর্মে লিপ্ত হতে বাধ্য করা হতো। কোনো ধরনের আপত্তি জানালেই চালানো হতো নির্যাতন। এভাবে দেশ থেকে সহস্রাধিক নারীকে বিদেশে নিয়ে নির্যাতন করেছে আজম খান নামে এক ব্যক্তি। দুবাইয়ে বাংলাদেশিদের কাছে পরিচিত এই ব্যক্তি সেখানে গড়ে তুলেছে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল। এসব হোটেলে রয়েছে ড্যান্সবার।
ড্যান্সবারে নাচতে বাধ্য করা হতো দেশ থেকে নিয়ে যাওয়া তরুণীদের। এমনকি হোটেলে পতিতাবৃত্তি করানো হতো তরুণীদের দিয়ে। বিদেশে কাজ দেয়ার নামে নির্যাতনকারী এই আজম খানসহ তার তিন সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রেপ্তার অন্যরা হচ্ছে, আল আমিন হোসেন ডায়মন্ড ও আনোয়ার হোসেন ময়না।

গ্রেপ্তারের পর গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডি’র সংঘবদ্ধ অপরাধ দমন বিভাগের উপ-মহাপরিদর্শক ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, আজম খান একজন গডফাদার। সারা দেশ থেকে দালালের মাধ্যমে নারীদের সংগ্রহ করে বিদেশে নিয়ে যেতো। ন্যূনতম তাদের অর্ধলাখ টাকা বেতনের প্রলোভন দিতো আজম খান। এভাবেই দুবাইয়ে তাদের হোটেলে কাজ দেয়ার কথা বলে যৌনকর্মে এবং ড্যান্স করতে বাধ্য করতো। সহজে রাজি না হলে শারীরিক নির্যাতন করা হতো। এটি একটি চক্র। এই চক্রে আজম খান ও তার দুই ভাইসহ এই দলে ভারত ও পাকিস্তানের অনেকে যুক্ত রয়েছে। এ ছাড়াও অপকর্মে আজম খানকে সহযোগিতা করতো একাধিক ট্র্যাভেল এজেন্সি ও বিদেশি কিছু বিমান সংস্থা।

সিআইডি’র সংঘবদ্ধ অপরাধ দমন বিভাগের উপ-মহাপরিদর্শক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, দেশে ছয়টি হত্যা মামলাসহ এই আজম খানের বিরুদ্ধে ১৫টি মামলা রয়েছে। দুবাইতে চার তারকাযুক্ত তিনটি ও তিন তারকাবিশিষ্ট একটি হোটেলের মালিক এই আজম খান। আজম খানের মালিকানাধীন হোটেলগুলো হলো ফরচুন পার্ল হোটেল অ্যান্ড ড্যান্স ক্লাব, হোটেল রয়েল ফরচুন, হোটেল ফরচুন গ্র্যান্ড ও হোটেল সিটি টাওয়ার। নানা অপকর্মের কারণে সমপ্রতি দুবাই পুলিশ আজম খানের ব্যাপারে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশ দূতাবাসকে অবগত করে। দেশটি তার পাসপোর্ট বাতিল করে দেয়। পরে একটি এক্সিট পাস নিয়ে আজম খান বাংলাদেশে ফিরে আসে। দেশে ফিরেই আত্মগোপনে ছিল সে।

সিআইডি জানায়, দেশে ফেরার পর নতুন পাসপোর্ট তৈরি করে আবারো দেশ ছাড়ার পরিকল্পনা করে আজম খান। এরমধ্যেই তথ্য পায় সিআইডি। নির্যাতনের শিকার নারীদের বক্তব্য অনুসারে ২রা জুলাই সিআইডি বাদী হয়ে লালবাগ থানায় আজম খানের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে। তারপরই অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। আজম খানের বাড়ি চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে।

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

করোনায় আরো ৩৮ জনের মৃত্যু

১১ মে ২০২১

দেশে কমেছে মৃত্যু, বেড়েছে করোনার শনাক্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরো ৩৮ জনের ...

সত্যকে কখনো আড়াল করে রাখা যায় না

১১ মে ২০২১

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অবশেষে বেগম খালেদা জিয়ার করোনা টেস্ট রিপোর্টে তার ...

মুসলিম মিল্লাতের সম্মিলিত উৎসব ঈদ

১১ মে ২০২১

আজ আটাইশতম রমজান। মহান আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামীন পবিত্র কুরআনুল কারিমে ঘোষণা করেন যে, কোনো ব্যক্তি ...

ঈদে ঘরমুখো মানুষ ‘সুইসাইড’ সিদ্ধান্ত নিচ্ছে

১১ মে ২০২১

ঈদে ঘরমুখো মানুষ লকডাউনের সামান্য শিথিলতার সুযোগ নিয়ে যাতায়াত করে ‘সুইসাইড’ সিদ্ধান্তে শামিল হচ্ছে বলে ...

করোনা সহিষ্ণু গ্রাম মডেল শহরেও বাস্তবায়নের আহ্বান

১১ মে ২০২১

করোনা সহিষ্ণু গ্রাম মডেল শহরগুলোতে বিস্তৃত আকারে বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। সোমবার ‘দি হাঙ্গার ...

আস্থা ভোটে হারলেন ওলি, জটিলতা বাড়ছে

১১ মে ২০২১

নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে হেরে গেছেন। এর ফলে তার ৩৮ মাস ...

বাংলাদেশিদের আমিরাতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

১১ মে ২০২১

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশ, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার নাগরিকদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ ...



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত



বিশিষ্ট নাগরিকদের সংবাদ সম্মেলন

ঈদের আগে কারাবন্দি ছাত্রদের মুক্তি দাবি

একদিনে শনাক্ত ১৬৮২

মৃত্যু কমেছে

DMCA.com Protection Status