১০ দিন ধর্মঘটেও চালের বাজারে প্রভাব পড়বে না: খাদ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার

দেশ বিদেশ ২১ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩৭

বাজারে চালের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেন, কেউ যদি কারসাজি না করে, তাহলে চালের দাম বাড়ার কোনও কারণ নেই। গতকাল সচিবালয়ে চাল ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধি, কৃষি, স্বরাষ্ট্র ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের বাজারে যে পরিমাণ চাল আছে, সেখানে পরিবহন ধর্মঘট যদি আট থেকে ১০ দিনও চলে তাতেও কোনও প্রভাব পড়বে না। কেউ যদি এমন পরিস্থিতিতে অনৈতিকভাবে চালের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করে, তাহলে ছাড় দেয়া হবে না। তা সহ্যও করা হবে না। তিনি বলেন, কারসাজি করে চালের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করা হলে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বরাষ্ট্র, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে চিঠি দেয়া হয়েছে। প্রয়োজন হলে তাদের ব্যবস্থা নিতে বলেছি, নিজেরাও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবো বলে জানান মন্ত্রী।
তার মতে, যে মজুত আছে, সেখানে আমরা চাল আমদানি নয়, রপ্তানির চিন্তা করছি। এমন পরিস্থিতিতে চালের দাম বাড়াটা অযৌক্তিক ও অনৈতিক।  খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বাবুবাজারে চালের যে স্টক থাকে, বড় বড় বাজারে যে স্টক থাকে, ঢাকার বাজারে বিন্দুমাত্র দাম বাড়ার কারণ নেই। ৩ থেকে ৪ দিন কেন, ১০ দিন বন্ধ থাকলেও প্রভাব পড়বে না গ্যারান্টি দিলাম, আমার সোজা কথা। বাজার পরিস্থিতি নিয়ে মন্ত্রী জানান, মোটা চাল ওএমএস ডিলাররা লোকসানের কারণে তুলতে পারছে না। কারণ রেট হচ্ছে ৩০ টাকা, সেই চাল বাজারে ২৬ থেকে ২৭ টাকা। খুচরা বাজারে ৪ থেকে ৫ টাকা বেশি দামে বিক্রি করছে, যেটা সাধারণ ভোক্তাদের আতে ঘা লাগে, আমরা এটি ছাড় দেবো না, এটি চলতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, পাইকাররা কেজিতে ৫০ পয়সার বেশি লাভ করতে পারেন না, এটাও সহ্য করা হবে না। খুচরা বাজার আপনাদের কন্ট্রোল করতে হবে, মনিটরিং করতে হবে। ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, চালের দাম আর বাড়বে না, এটি শপথ করতে হবে। সরকারিভাবে চাল-গম মিলে ১৪ লাখ ৫৯ হাজার টন মজুদ আছে, যা অন্য দেশের তুলনায় বেশি। সরকারি গোডাউনে ১১ লাখ ১২ হাজার ৬৭৪ টন চাল মজুদ আছে। দাম বাড়ালে ভোক্তা অধিকার আইনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। চাল ব্যবসায়ীদের পক্ষে মিল মালিক ওনার্স অ্যাসোসিয়শনের সভাপতি আব্দুর রশিদ  সভায় উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন

দেশ বিদেশ অন্যান্য খবর

চট্টগ্রামে ব্যাংক এশিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা

২৮ নভেম্বর ২০২০

প্রায় ৩০০ কোটি টাকা পাওনা দাবি করে ব্যাংক এশিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন চট্টগ্রামের গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ...

চট্টগ্রামে সড়কে স্বঘোষিত ভিআইপিদের দাপট

২৮ নভেম্বর ২০২০

চট্টগ্রাম মহানগরীর সড়কে যানজটে শোনা যায় সাইরেন ও হুটারের তীব্র শব্দ। তাকালে দেখা যায় এটি ...

তরুণীকে গণধর্ষণ শেষে পতিতাপল্লীতে বিক্রি, আটক ২

২৮ নভেম্বর ২০২০

বাগেরহাটের মোংলায় বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক তরুণী। টানা ৫ দিন ধরে বিভিন্ন স্থানে ...

সিঙ্গাপুরে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে গ্রেপ্তার তরুণের তথ্য চাইবে বাংলাদেশ

২৮ নভেম্বর ২০২০

চলতি মাসের শুরুতে সিঙ্গাপুরে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশি তরুণের বিষয়ে তথ্য জোগাড়ের চেষ্টা করছে ...

ইসরাইলের কারণে ১০ বছরে গাজার ক্ষতি ১৭০০ কোটি মার্কিন ডলার

২৮ নভেম্বর ২০২০

ইসরাইলের অবরোধে গাজা উপত্যকায় ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১৭০০ কোটি মার্কিন ডলার। ২০০৭ সালে ওই অবরোধ ...

বিভেদ সৃষ্টির অপচেষ্টার বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহ্বান ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের

২৭ নভেম্বর ২০২০

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতার নামে জনমনে বিভ্রান্তি ও বিভেদ সৃষ্টির ...

চিকিৎসা না পেয়ে দুই নবজাতকের মৃত্যু

হাইকোর্টে তিন হাসপাতালের প্রতিবেদন

২৬ নভেম্বর ২০২০

তিন হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে দুই নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালগুলো ব্যাখ্যা সম্বলিত প্রতিবেদন জমা ...

সিপিপিকে স্বাধীনতা পদকে মনোনয়নের প্রস্তাব

২৬ নভেম্বর ২০২০

ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি)কে ২০২১ সালের স্বাধীনতা পুরস্কারের জন্য মনোনয়নের প্রস্তাব করেছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ...

অবৈধ মোবাইল ফোন ধরতে চুক্তি স্বাক্ষর

২৬ নভেম্বর ২০২০

অবৈধ মোবাইল ফোন চিহ্নিত করতে ও ধরতে প্রযুক্তিগত সহায়তা নিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন-বিটিআরসি’র সঙ্গে ...



দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত

DMCA.com Protection Status