সর্ষের মধ্যে ভূত থাকতে নেই: হাইকোর্ট

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:২৬

সর্ষের মধ্যে সর্ষে থাকাই ভালো, ভূত থাকতে নেই বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এফ. আর. এম. নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। গতকাল বিনাদোষে কারাভোগকারী জাহালমের বিরুদ্ধে করা ভুল মামলায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে দুদকের নেয়া পদক্ষেপ আদালতে প্রতিবেদন আকারে দাখিল করেন। দাখিল করা প্রতিবেদনের শুনানির এক পর্যায়ে হাইকোর্ট এই মন্তব্য করেন। কিন্তু প্রতিবেদনে কোন কোন তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, কী অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে,  এসব না থাকায় প্রতিবেদন গ্রহণ করেননি হাইকোর্ট। পরে ওই ১১ তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আগামী বুধবার দুপুরের মধ্যে বিভাগীয় মামলার বিবরণ ও নামসহ পূর্নাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করার আদেশ দেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে আগামী বুধবার পরবর্তী শুনানি ও আদেশের জন্য দিন ধার্য করেন আদালত।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান, ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষে আসাদুজ্জামান শুনানি করেন।
রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন এবিএম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। শুনানিতে আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, দুদক ১১ তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করেছে। তখন আদালত বলেন, প্রতিবেদনেতো তাদের নাম নেই। কি জন্য তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হলো। প্রতিবেদন পূর্ণাঙ্গ নয়। পুরো প্রতিবেদন জমা দিন। তখন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, আমি কাল প্রতিবেদনটি হাতে পেয়েছি। নামগুলো দুদক আমাকে দেয়নি, তাই প্রতিবেদনে নামগুলো উপস্থাপন করতে পারছি না। দুদক যথেষ্ট গুরুত্বসহকারে কাজ করছে। আন্তরিকতার ঘাটতি নেই। তখন আদালত বলেন, আমরাতো এটিই দেখতে চাই।  সরষের মধ্য সরষে থাকাই ভালো, ভূত থাকতে নেই। এতে করে আপনাদের ভাবমূর্তি বাড়বে। তখন খুরশিদ আলম খান বলেন, আমাদের নয়। পুরো দেশের ভাবমূর্তি বাড়বে। দুদকের আইনজীবী আদালতকে আরো বলেন, যে ৩৩ মামলায় জাহালমকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছিল, তার মধ্যে ৬টিতে অধিকতর তদন্ত চলছে। বাকি ২৭টি মামলায় অধিকতর তদন্তের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। তখন আদালত বলেন, পুনঃতদন্ত আপনাদের নিজস্ব ব্যপার। আমরা জানতে চেয়েছিলাম এ ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কী ববস্থা নেয়া হয়েছে। যাই হোক এসব তদন্ত শেষ হতে কতদিন লাগবে? তখন দুদক আইনজীবী বলেন, যত তাড়াতিাড়ি সম্ভব। তখন বিচারক বলেন, তাড়াতাড়ি করেন। আমাদের রুলের দুইটা টার্ম। একটা টার্ম হল জাহালমের মুক্তির বিষয়ে, সেটা তো হয়ে গেছে। আরেকটা টার্ম ছিল ক্ষতিপূরণের বিষয়ে। আমরা দেখতে চাই কারা দায়ী, ক্ষতিপূরণ দেয়ার থাকলে বিষয়টি আমরা বিবেচনা করব। এরপর আদালত বলেন, আপনারা প্রতিবেদনটা যথাযথভাবে দেননি। এটা অস্পষ্ট রিপোর্ট দিয়েছেন। আমরা এই রিপোর্ট গ্রহণ করতে পারছি না। তখন দুদকের আইনজীবী আদেশ চাইলে বিচারক বলেন, নতুন করে অদেশ দিতে হবে কেন? আদেশ তো আগেই দেয়া হয়েছে। নতুন করে আদেশ দিলে তো আগের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন না করার জন্য তাদের কোর্টে তলব করতে হবে। এরপর আদালত আগামী বুধবার ফের পূর্নাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন।

গত ১১ই জুলাই, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা ভুল মামলায় ‘ভুল আসামি’ হিসেবে তিন বছর কারাভোগ করা পাটকল শ্রমিক জাহালমের ঘটনায় নিজেদের ভুল স্বীকার করে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করে। ২৪ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, তদন্ত কর্মকর্তা, সরকারের পিপির সঙ্গে সমন্বয়হীনতার অভাবে এ ভুলের ঘটনা ঘটেছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩৩ মামলার তদন্ত কর্মকর্তারা সিরিয়াস/সঠিকভাবে মামলার তদন্ত করেননি। দুদকের কর্মকর্তারা প্রত্যেকেই একে অন্যের উপর নির্ভরশীল ছিলেন। প্রত্যেকেই আশায় ছিলো অন্যরা তদন্তে কোন অগ্রগতি করলে তারা সেটি কপি করবে এবং সেটিই তারা করেছে। সেই প্রতিবেদন নিয়ে আদালত সন্তোষ প্রকাশ করলেও যাদের দোষে জাহালমকে কারাভোগ করতে হল, তাদের বিরুদ্ধে দুদক কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা ২৮শে জুলাইয়ের মধ্যে জানাতে বলা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় দুদক গতকাল  প্রতিবেদন দিলেও তাকে অস্পষ্ট হিসেবে বর্ণনা করে নতুন করে প্রতিবেদন দিতে বলেন হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, একটি জাতীয় দৈনিকে ‘৩৩ মামলায় ‘ভুল’ আসামি জেলে’, ‘স্যার, আমি জাহালম, সালেক না’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুরের ডুমুরিয়া গ্রামের জাহালম ‘ভুল আসামি’ হয়ে বিনা দোষে তিন বছর জেল খাটার ঘটনায় প্রকাশিত ওই প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের  আইনজীবী অমিত দাসগুপ্ত।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

এনডিটিভি’র রিপোর্ট

ত্রিপুরা-মিজোরাম সীমান্ত থেকে বিপুল অস্ত্র আটক

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

এমসি কলেজে গণধর্ষণ

তদন্তে কমিটি গঠন করলেন হাইকোর্ট

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনার দায় নিরূপণে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে অনুসন্ধানের নির্দেশ ...

আসামিদের দম্ভোক্তি

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

পাপের সদর দপ্তর ২০৫

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ডিসেম্বরে

আজ জেসিসি বৈঠক, উঠবে তিস্তা-সীমান্ত হত্যা ইস্যু

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত



নির্যাতিতার জবানবন্দি

হাতে-পায়ে ধরলেও মন গলেনি ধর্ষকদের

অপকর্মের কেন্দ্র ২০৫ নম্বর কক্ষ

কলঙ্কিত এমসি ক্যাম্পাস ধর্ষকদের ‘উল্লাস’

গ্রেপ্তার হয়নি অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীরা

ক্ষোভে উত্তাল সিলেট সড়ক অবরোধ

বিশিষ্টজনদের প্রতিক্রিয়া

অপরাধীকে অপরাধী হিসেবে সাজা দিতে হবে

করোনা পরীক্ষায় ধীরগতি

নতুন বিড়ম্বনায় সৌদি প্রবাসীরা