গোয়াইনঘাটে মুসল্লিদের ওপর হামলা, উত্তেজনা

বাংলারজমিন

গোয়াইনঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি | ১৬ জুন ২০১৯, রোববার
সিলেটের গোয়াইনঘাটের আমস্বপ্ন গ্রামে হামলা ও মামলায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মসজিদের সামাজিক মাসিক বেতন চাওয়া এবং পাওনা টাকার ধার্যকৃত তারিখে টাকা চাওয়ায় হামলার ঘটনা ঘটিয়ে উল্টো সাজানো মামলা দায়ের করে জনসাধারণকে পুলিশি হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। থানা পুলিশ হামলাকারীদের গ্রেপ্তার না করে উল্টো আক্রান্ত মানুষজনের ওপর সাজানো মামলা রেকর্ড করেছেন। এ ঘটনায় গোয়াইনঘাটে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে সচেতন মহলে। পুলিশের ভূমিকা নিয়েও জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন- গত ২৫ শে মে ভোররাতে ৩নং পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের আমস্বপ্ন জামে মসজিদের নামাজ শেষে সমাজের মসজিদের ইমামের বেতন সংক্রান্ত ঘটনায় একই গ্রামের বাসিন্দা আলাউদ্দিনের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই আলাউদ্দিনের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম হন খলিলুর রহমান।
এ সময় তাকে রক্ষার্থে এগিয়ে আসলে ভাতিজা ফরিদ ও ফারুকসহ অপরাপর কয়েকজন গ্রামবাসী আহত হন। এ ব্যাপারে থানা পুলিশ কিংবা আইনি উদ্যোগ নিলে জড়িত সবাইকে অনুরূপ কুপিয়ে জখম করবে বলে হুমকি দিয়ে হামলাকারীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। ধারালো দায়ের কোপে মারাত্মক আহত খলিলুর রহমানের মাথা ও শরীরে একাধিক স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে উদ্ধার করে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় আহত খলিলুর রহমানের বড় ভাই হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে ২৬শে মে সিলেটের গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে- এ ঘটনায় মামলা করায় বাদী হাবিবুর রহমান জখমী খলিলুর রহমানসহ তাদেরকে সহায়তাকারী গ্রামের সাধারণ মানুষদের প্রাণে হত্যাসহ মামলা-হামলায় হয়রানির ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে আলাউদ্দিনসহ তার লোকজন। এদিকে- আমস্বপ্ন গ্রামের আলাউদ্দিনের ভাই মনছুরের কাছে ধার্যকৃত সময়ের পর পাওনা বকেয়া ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা চাইতে গত ২৭শে মে তার বাড়িতে যান নলজুরী গ্রামের মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেনের ছেলে জয়দুল হোসেন জমির ও তার ভাই রাসেল আহমদ। তার বাড়িতে গিয়ে মনছুরের কাছে পাওনা টাকা পরিশোধের অনুরোধ করলে মনছুরের নির্দেশে আলাউদ্দিন, মনাই মিয়া, মাদক ব্যবসায়ী হিরন মিয়া, ছাদ্দাম, খুরশেদ, ওহাব আলী বাড়ির মহিলা শিউলি বেগম, আবদুর রশিদ ভেন্দাই অজ্ঞাতনামা আরো ৪-৫ জন ধারালো দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হইয়া একযোগে পাওনাদার জমির উদ্দিন ও তার ভাই রাসেলের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা গলা টিপে জমিরকে হত্যার চেষ্টা করে। তার ভাই রাসেলকে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি শরীরের বিভিন্ন স্থানেসহ তলপেটে আঘাত করে। তাদের আক্রমণে জমির উদ্দিন ও তার ভাই রক্ষার্থে আশপাশের বাড়িঘরের লোকজন ছুটে যান এবং তাদেরকে হামলাকারীদের হাত থেকে কোনো রকমে উদ্ধার করে আত্মরক্ষার্থে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করার জন্য অনুরোধ করলে তারা দু’ভাই জমির ও রাসেল ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। আলাউদ্দিন ও তার লোকজনের হামলার শিকার খলিলুর রহমান জানান- আলাউদ্দিন ও তার পরিবারের প্রতিটা সদস্য মাদক ব্যবসায় জড়িত। তাদের অপকর্মে কেউ বাধা দিলেই তারা হামলা নির্যাতন করে। সমাজের মসজিদের ইমামের বকেয়া বেতন চাওয়ায় আলাউদ্দিন আমাদের সঙ্গে অশ্রাব্য গালিগালাজ করে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রংপুরেই এরশাদের সমাধি

লক্ষাধিক বিও অ্যাকাউন্ট বন্ধ

যে কারণে পুঁজিবাজারে পতন থামছে না

মিন্নি গ্রেপ্তার

হাসপাতালে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

ছুরি নিয়ে কীভাবে গেল তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে

সব আদালতে নিরাপত্তা বাড়ানো হবে

ঘাতকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, মামলা ডিবিতে

উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হচ্ছে

বাসর হলো না নবদম্পতির

১১ কোম্পানির দুধে সিসা ও ক্যাডমিয়াম

চীনা ডেমু ট্রেন আর কেনা হবে না

বিচারকদের নিরাপত্তা চেয়ে রিট

আসাদকে পাল্টা জবাব আরিফের

৩ মাস পর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু

বাঁচানো গেল না সার্জেন্ট কিবরিয়াকে