খেলা

নাটকীয় জয়ে সেমিফাইনালে আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার

৯ নভেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:০৭ পূর্বাহ্ন

ইনজুরি সময়ের গোলে আরামবাগ ক্রীড়া চক্রকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালে উঠলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী। গতকাল বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ৩-২ ব্যবধানে আসরের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালের নিষ্পত্তি হয়। ম্যাচে দুবার পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত নাটকীয় জয় কুড়ায় রেকর্ড ১০ বারের চ্যাম্পিয়নরা। আর একরাশ হতাশা সঙ্গী হয় গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টার ফইনালে ওঠা আরামবাগের। রোমাঞ্চকর প্রথমার্ধ শেষ হয় ২-২ সমতায়। আবাহনীর বিপক্ষে খেলা শুরুর ৭ মিনিটেই শাহরিয়ার বাপ্পীর গোলে লিড নেয় আরামবাগ। নাইজেরিয়ার চিনেডু ম্যাথিউয়ের বাড়ানো বল ক্যামেরুনের পল এমিল বুক দিয়ে নামিয়ে দেয়ার পর জোরালো শটে নিশানাভেদ করেন তিনি। ত্রিশ মিনিটের মাথায় আবাহনীকে সমতায় ফেরান সানডে চিজোবা। ডান দিক থেকে আক্রমণে ওঠা বেলফোর্টের শট গোলরক্ষক ফেরানোর পর চিজোবার হেড প্রতিহত করেন এক ডিফেন্ডার। ফিরতি শটে বল জালে পাঠান এই নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড। এর তিন মিনিট বাদেই পেনাল্টি থেকে আবারো এগিয়ে যায় আরামবাগ। এমিলের থ্রু পাস অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে নিয়ন্ত্রণে নেয়া বাপ্পীকে ডি-বক্সের মধ্যে ফাউল করেন আবাহনী গোলরক্ষক শহীদুল আলম। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আর স্পট কিক থেকে ফিনিশিং টানেন উজবেকিস্তান ফরোয়ার্ড বোবোজনোভ ইকবালজন নরমাতোভিচ। প্রথমার্ধের এক মিনিট আগে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন আবাহনীর সোহেল রানা। তার ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেয়া বুলেট শটে পরাস্ত হন আরামবাগ গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেল। আর দ্বিতীয়বার সমতায় ফিরে বিরতিতে যায় আবাহনী। নির্ধারিত ৯০ মিনিট পর্যন্ত আর কেউ জালের দেখা পাননি। ম্যাচ যখন টাইব্রেকারের দিকে এগোচ্ছে তখনই আরামবাগকে দুঃস্বপ্ন উপহার দেন কেরভেন্স ফিলস বেলফোর্ট। ইনজুরি সময়ের তৃতীয় মিনিটে নাবীব নেওয়াজের ফ্রি-কিকে তপু বর্মণের হেড থেকে পায়ের টোকায় জয়সূচক গোল করেন এই হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড। শেষ বাঁশি বাজার পর অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। আরামবাগের ডাগআউট থেকে কয়েকজন গিয়ে সহকারী রেফারিদের ওপর চড়াও হন। দ্রুত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।
আগামী ২১শে নভেম্বর প্রথম সেমিফাইনাল মাঠে গড়াবে। আজ দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের মধ্যকার জয়ী দল আবাহনীর মুখোমুখি হবে। এবারের আসরে টাইব্রেকারে জয় দিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয় আরামবাগ ক্রীড়া চক্র। আর জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরুর পর গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে হার দেখে আবাহনী। ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রহমতগঞ্জকে ৩-১ গোলে হারায় আরামবাগ। গ্রুপ সেরা হওয়ার ম্যাচে চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও ২-২ সমতায় ফেরে তারা। আর টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে জয় কুড়ায় আরামবাগ। টানা দুই ম্যাচ হেরে আগেই বিদায় নেয় রহমতগঞ্জ। নিজেদের প্রথম ম্যাচেও চট্টগ্রামের কাছে ৩-১ গোলে হার দেখে তারা। ‘সি’ গ্রুপেও এক ম্যাচ হাতে রেখে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে ঢাকা আবাহনী ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে ১-০ গোলে হারানোর পর গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ম্যাচে শেখ রাসেলের কাছে একই ব্যবধানে হার দেখে আবাহনী। আর টানা দুই হারে গ্রুপ পর্বে বাদ পড়ে মুক্তিযোদ্ধা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে তারা শেখ রাসেলের কাছে ২-০ গোলে হার দেখে।
Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status