মুক্তিযুদ্ধের দুই চলচ্চিত্র নিয়ে মাহফুজুর রহমান খান

স্টাফ রিপোর্টার | ২০১৪-১২-১৯ ৮:১১
উপমহাদেশের প্রখ্যাত সিনেমাটোগ্রাফার মাহফুজুর রহমান খান নায়করাজ  রাজ্জাক পরিচালিত ‘অভিযান’ চলচ্চিত্রের সিনেমাটোগ্রাফির কাজ করে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত মোট নয়বার সিনেমাটোগ্রাফির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। গুণী এই মানুষটির সিনেমাটোগ্রাফিতে নতুন দু’টি চলচ্চিত্র আসছে অচিরেই। চলচ্চিত্র দু’টি হচ্ছে শাহ আলম কিরণ পরিচালিত ‘৭১-এর মা জননী’ ও মান্নান হীরা পরিচালিত ‘৭১-এর ক্ষুদিরাম’। চলচ্চিত্রগুলো নিয়ে মাহফুজুর রহমান খান বলেন, দু’টি চলচ্চিত্রই অসাধারণ হয়েছে। সাধারণত কোন চলচ্চিত্রের গল্প আমার মন না ছুঁয়ে গেলে আমি কাজ করি না। এ দু’টি চলচ্চিত্রেরই গল্প দারুণ ভাল লেগেছে আমার। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ঘটনা নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র। আশা করি নতুন প্রজন্মকে ভাবতে শেখাবে। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করবে। উল্লেখ্য, সিনেমাটোগ্রাফিতে মাহফুজুর রহমান খানের গুরু আবদুল লতিফ বাচ্চু। আবুল বাশার পরিচালিত ‘কাচের স্বর্গ’ চলচ্চিত্রের সিনেমাটোগ্রাফির কাজ দিয়ে ১৯৭২ সালে পেশাাদার সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে মাহফুজুর রহমান খানের যাত্রা শুরু হয়। সেই থেকে এখন পর্যন্ত শতাধিক চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন তিনি। ‘অভিযান’ ছাড়া যেসব চলচ্চিত্র থেকে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন সেগুলো হলো আজহারুল ইসলাম খানের ‘সহযাত্রী’, আখতারুজ্জামানের ‘পোকামাকড়ের ঘরবসতি’, কোহিনূর আক্তার সুচন্দার ‘হাজার বছর ধরে’, গোলাম রব্বানী বিপ্লবের ‘বৃত্তের বাইরে’ এবং হুমায়ূন আহমেদের ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’, ‘দুই দুয়ারী’, ‘আমার আছে জল’ ও ‘ঘেটুপুত্র কমলা’। উল্লেখ্য, ‘৭১-এর মা জননী’ মুক্তি পাবে ২৬শে ডিসেম্বর এবং ‘৭১-এর ক্ষুদিরাম’ মুক্তির তারিখ এখনও চূড়ান্ত হয়নি।