সার্ক নীতিমালার আওতায় চলচ্চিত্র বিনিময় শুরু হচ্ছে নতুন বছরেই

কলকাতা প্রতিনিধি | ২০১৫-১২-৩১ ৯:৩৫
সার্ক নীতিমালার আওতায় আগামী বছর থেকেই বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সঠিক নিয়ম মেনে বাণিজ্যিকভাবে চলচ্চিত্র বিনিময় হতে চলেছে। এ নতুন উদ্যোগের আওতায় শিহাব শাহীন পরিচালিত বাংলাদেশের ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ চলচ্চিত্রটি কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে মুক্তি পাবে আগামী ফেব্রুয়ারিতেই। এ ছবিটি ভারতে যৌথভাবে পরিবেশনায় রয়েছে পিয়ালি ফিল্মস ও জিরোনা এন্টারটেইনমেন্ট। একই দিনে বাংলাদেশে মুক্তি পাবে নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘বেলাশেষে’। এর পরবর্তী পর্যায়ে কলকাতায় মুক্তি পাবে শাকিব খান অভিনীত চলচ্চিত্র ’আরো ভালোবাসব তোমায়’। পশ্চিমবঙ্গের দেবেশ চট্টোপাধ্যায় পরিচালিত ‘নাটকের মতো’ চলচ্চিত্রটিও মুক্তি পাবে বাংলাদেশে। তবে প্রাথমিকভাবে বছরে ৬টি চলচ্চিত্র বিনিময়ের কথা ভাবা হয়েছে। এ ব্যাপারে উদ্যোগী সংস্থা জিরোনা এন্টারটেইনমেন্ট টেকনোলজি প্রাইভেট লিমিটেডের কর্ণধার শুভজিৎ রায় জানিয়েছেন, এ প্রথমবার বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের বাণিজ্যিক প্রদর্শন হবে ভারতে। একই দিনে একটি ভারতীয় চলচ্চিত্রেরও বাণিজ্যিক প্রদর্শন শুরু হবে বাংলাদেশে। তিনি দাবি করেছেন, এ প্রথম দুদেশের চলচ্চিত্র বিনিময় হচ্ছে সঠিক পদ্ধতিতে। সার্ক দেশের ক্ষেত্রে যে নীতিমালা রয়েছে সেই অনুযায়ীই সব হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের প্রথম চলচ্চিত্র হিসেবে ‘ছুঁয়ে দিলে মন’-এর মুম্বইয়ে সেন্সরের কাজ করা হয়েছে। আর ‘বেলাশেষে’র সেন্সরের কাজ ঢাকায় ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। জিরোনা সংস্থার সঙ্গে কলকাতার পিয়ালি ফিল্মস ভারতে বাংলাদেশের ছবি ডিস্ট্রিবিউট করবে। অন্যদিকে জিরোনার সঙ্গে মিলে বাংলাদেশের এশিয়াটিক ধ্বনীচিত্র লিমিটেড ভারতের চলচ্চিত্র ডিস্ট্রিবিউটের দায়িত্ব পালন করবে। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির উপদেষ্টা কমিটির আহ্বায়ক ও সেন্সর বোর্ডের সদস্য নাসিরউদ্দিন দিলু মানবজমিনকে বলেন, ‘বেলাশেষে’ ছবিটি ৪-৫ দিন আগে আমরা সেন্সর বোর্ডে দেখেছি। সেখানে উপস্থিত থাকা সবাই ছবিটির প্রশংসা করেছেন। এ ধরনের ছবির বিনিময় হলে খারাপ হবে না বলে আমি মনে করছি। সার্ক নীতিমালার আওতায় ভালো ছবি দুদেশেই আদান-প্রদান বা প্রদর্শনের সুযোগ থাকা উচিত। এদিকে পরিচালক গৌতম ঘোষ বলেছেন, বাংলাদেশের চলচ্চিত্র যাতে ভারতে সঠিকভাবে প্রমোশন পায় সেটা দেখতে হবে। সেক্ষেত্রে টালিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রির দিক থেকে সাপোর্টটা জরুরি।