বিজয়ের মাসেই নির্বাচন করতে চায় সরকার: ওবায়দুল কাদের

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২২ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার
বাংলাদেশে নির্বাচন এগিয়ে আনার জল্পনা খারিজ করে দিয়ে বাংলাদেশের সড়ক ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের কলকাতায় বলেছেন, সরকার বিজয়ের মাসেই নির্বাচন করতে চায়। গত বুধবার তার সম্মানে বাংলাদেশ উপদূতাবাসে আয়োজিত এক সংবর্ধনা সভায় মন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন, সময়ে নির্বাচন করাটা সরকারের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা। ২০১৪’র ২৯শে জানুয়ারি এই সরকার কাজ শুরু করেছিল। নিয়ম অনুযায়ী তার তিন মাস আগে নির্বাচন করতে হবে। অর্থাৎ ২০১৮-র অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে কোনো এক সময়ে সাধারণ নির্বাচন করতে হবে। আমরা এক্ষেত্রে বিজয়ের মাস ডিসেম্বরকেই বাছাই করব।
আর এই নির্বাচনে ভারতের মানুষের শুভেচ্ছাও চেয়েছেন তিনি। এদিনের সংবর্ধনা সভায় কলকাতার বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কলকাতার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ও উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হোসেন। এদিনের সভায় ওবায়দুল কাদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে খোলামেলা তার মত জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, মৌলবাদকে রুখে বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরে বলেছেন, একমাত্র পরমাণু অস্ত্র তৈরি ছাড়া সব বিষয়ে পাকিস্তানকে হারিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশে। তবে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলমান। বাংলাদেশকে পাকিস্তান তৈরির চক্রান্ত আইএসআই চালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের ব্যবহার করে উপমহাদেশে অস্থিরতা তৈরির চক্রান্তের খবর বাংলাদেশ সরকারের কাছে রয়েছে। উগ্র মুসলিম এই সমপ্রদায়ের মধ্যে জঙ্গি সংগঠন গড়ে তুলতে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই তাদের প্রশিক্ষণ ও অস্ত্রশস্ত্র দিচ্ছে বলে তারা খবর পেয়েছেন। মৌলবাদী বলে পরিচিত হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে বাংলাদেশের আওয়ামী লীগ সরকারের যোগসাজশ নিয়ে প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেছেন, যেটুকু করা হয়েছে, তা একেবারেই ভোটের দিকে তাকিয়ে। তাদের কিছু দাবি-দাওয়া সরকার মেনে নিয়েছে, এর বেশি কিছু নয়। কাদের এদিন স্পষ্ট করে বলেছেন, মৌলবাদ-বিরোধিতার মৌলিক বিষয়টি আওয়ামী লীগের শিকড়। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা তার দলকে এই শিকড় থেকে বিচ্যুত হতে দেবেন না, এ বিষয়ে সবাই নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ভারতের মোদি সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেছেন, মনমোহন সিং যে বন্ধুত্বের নীতি নিয়ে এগোচ্ছিলেন, মোদি অতিরিক্ত উদ্যোগের মাধ্যমে তাকে নতুন উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছেন। ছিটমহল বিনিময়ের মতো জটিল কাজ সুষ্ঠুভাবে শেষ হয়েছে। তিস্তার পানি বণ্টন বিষয়েও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যে আশ্বাস দিয়েছেন, বাংলাদেশের মানুষ তার উপরে শতভাগ আস্থা রেখেছে। এদিকে কলকাতায় বিজয় উৎসবে যোগ দিতে আসা বাংলাদেশের বিশিষ্ট অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী মিডিয়াকে জানিয়েছেন, তিনি ফেনী ৩ আসনে আ্‌ওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চান। এজন্য এলাকায় প্রচারণার কাজও শুরু করেছেন। তবে তিনি জানিয়েছেন, দল তাকে মনোনয়ন না দিলেও তিনি দলীয় প্রতীকে যাকে প্রার্থী করা হবে তার জয়ের কাজ চালিয়ে যাবেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

হ্যান্ডকাফসহ পালালো আসামি

‘ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত সরকারেরই নীল নকশার অংশ’

২৪ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার না করলে আন্দোলন

সাক্ষ্য দেবেন না স্টিভ ব্যানন

‘সবকিছুতে সরকারের যোগসাজশ খোঁজেন কেন?’

রাখাইনে বৌদ্ধদের দাঙ্গা, গুলিতে নিহত ৭

৬ মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের আদেশ হাইকোর্টের

ভয়াবহ বিপদজনক চুক্তি

যুক্তি তর্ক শুনানি চলছে, আদালতে খালেদা

ঢাকা উত্তরের মেয়র উপনির্বাচন স্থগিত

উত্তরা মেডিকেলের ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রমে বাধা নেই

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তির বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের গভীর উদ্বেগ

মিয়ানমার অনুমতি দেয় নি, কাল বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর

‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন অবৈধ’

‘তেমন ভালো কাজ তো এখন হচ্ছে না’

আইভী-শামীম মুখোমুখি, সংঘর্ষ