বিতর্কিত সাবেক বিচারপতি কারনান কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২১ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০৯
ছয় মাস কারাবাসের পর মুক্তি পেয়েছেন সেই বিতর্কিত সাবেক বিচারপতি সি এস কারনান। এই ছ’মাস তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে ছিলেন। আদালতের গেটে তাকে নিতে এসেছিলেন তার স্ত্রী ও পুত্র। তিনি আগামী এক সপ্তাহ কলকাতায় কাটিয়ে ফিরে যাবেন চেন্নাইয়ে। কারনান কারাগারে বন্দিদের আইনি সহায়তা দেবার ব্যাপারে তার আগ্রহের কথা জানিয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে কারনানের আইনজীবী জানিয়েছেন, সাবেক বিচারপতি আত্মজীবনী লেখার কাজ শুরু করেছেন।
তাতে তিনি বিচারপতি হওয়া থেকে শুরু করে কারাবাসের দিনগুলি নিয়ে সমস্ত বিষয়ে লিখবেন।  আদালত অবমাননার দায়ে তাকে ছ’মাস কারাদন্ডের নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। বিতর্কিত রায় দেবার জন্য  অনেকবারই শিরোনামে এসেছেন বিচারপতি কারনান। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি-সহ মোট আট বিচারপতিকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন বিচারপতি কারনান। এর পরই শীর্ষ আদালতকে অবমাননার দায়ে গত ৯ মে বিচারপতি সি এস কারনানকে ছ’মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছিল। কোনও কর্মরত বিচারপতির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি বা কারাদন্ডের নির্দেশ ভারতে এটাই  প্রথম। তবে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেওয়ার পর থেকেই বেশ কিছুদিন ফেরার ছিলেন বিচারপতি কারনান। ফেরার অবস্থাতেই গত ১২ জুন অবসর নিয়েছেন তিনি। অবশেষে ২০ জুন কোয়ম্বাটুর থেকেই পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের একটি দল গ্রেপ্তার করেছিল তাকে। এর পর তাকে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে রাখা হয়েছিল। কারাগারে অবশ্য কারনানের নিরাপত্তার স্বার্থে অন্য বন্দিদের কাছে ঘেঁষতে দেওয়া হতো না।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৭-১২-২০ ২৩:৪৩:১৯

As per news online in dates back our assumptions is he was mentally sick.

আপনার মতামত দিন

হ্যান্ডকাফসহ পালালো আসামি

‘ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত সরকারেরই নীল নকশার অংশ’

ভোটের ভবিষ্যৎ নিয়ে হাসিনা-প্রণব আলোচনা

২৪ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার না করলে আন্দোলন

সাক্ষ্য দেবেন না স্টিভ ব্যানন

‘সবকিছুতে সরকারের যোগসাজশ খোঁজেন কেন?’

রাখাইনে বৌদ্ধদের দাঙ্গা, গুলিতে নিহত ৭

৬ মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের আদেশ হাইকোর্টের

ভয়াবহ বিপদজনক চুক্তি

যুক্তি তর্ক শুনানি চলছে, আদালতে খালেদা

ঢাকা উত্তরের মেয়র উপনির্বাচন স্থগিত

উত্তরা মেডিকেলের ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রমে বাধা নেই

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তির বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের গভীর উদ্বেগ

মিয়ানমার অনুমতি দেয় নি, কাল বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর

‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন অবৈধ’

‘তেমন ভালো কাজ তো এখন হচ্ছে না’