মানবপাচার রোধে তিন মন্ত্রণালয় একযোগে কাজ করছে

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৪৬
অভিবাসী কর্মীদের বৈধ পথে বিদেশ গমন নিশ্চিত ও মানবপাচার রোধে স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় একযোগে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে মানবপাচার রোধ এবং বৈধ পথে অভিবাসী কর্মীদের বিদেশ গমনের  জন্য সচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। বিদেশ ফেরত কর্মীদের বিভিন্ন প্রকার সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ক্ষেত্রে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহের জন্য বিমানবন্দরে আলাদা কাউন্টার বা ডেস্ক স্থাপন করা প্রয়োজন বলে তিনি মন্তব্য করেন। গতকাল আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনে আয়োজিত এক আলোচনা তিনি এ কথা বলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বৈধ পথে অভিবাসী কর্মীদের গমন নিশ্চিত করতে হবে। অভিবাসী কর্মীদের ইমিগ্রেশন সহজ করা হবে জানিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, তারা যেন প্রতারণার শিকার না হন সেদিকে নজরদারি বাড়ানো হবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অভিবাসনের নামে যেন মানবপাচার না হয় সেদিকে নজর দিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে কাজ করতে হবে।  বৈধপথে অভিবাসন নিশ্চিত করার ওপর তাগিদ দিয়ে আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা চাই না নিয়মের বাইরে গিয়ে কেউ সমস্যার সম্মুখীন হোক। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বক্তব্য দেয়ার আগে দক্ষিণ কোরিয়ায় থাকা অভিবাসী শ্রমিকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন। দক্ষিণ কোরিয়ার শ্রমিকরা বলেন, তারা ভালো আছেন এবং সেখানে আরো শ্রমিক পাঠানোর সুযোগ আছে। জুয়েল নামে এক কর্মী বলেন, কোনো শ্রমিক মারা গেলে তার লাশ দেশে পাঠাতে যাতে সমস্যা না হয় সেই ব্যবস্থা করতে হবে। এ কথার প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের আশ্বস্ত করেন। বলেন, কোনো প্রতারণা শিকার যাতে না হতে হয় সেজন্য ইমিগ্রেশনে নজরদারি থাকবেই। তবে  বৈধ কর্মসংস্থান নিয়ে যারা যাবেন তাদের ক্ষেত্রে যেন সহজে কাজটি সম্পন্ন হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হবে। হুন্ডির মাধ্যমে টাকা না পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে প্রবাসী কর্মীদের উদ্দেশ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠিয়ে আপনারা দেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবেন। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. সেলিম রেজা। দিবসটি উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিবের বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. নমিতা হালদার, এনডিসি, ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ জুলহাস, এনডিসি, বায়রা সভাপতি বেনজীর আহমেদ, আইওএম এর ডেপুটি মিশন চিফ আবদুস সাত্তার, ইউএন উইমেন-এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ মিস শকো ইশিকাওয়া প্রমুখ। এবারের অভিবাসী দিবসের প্রতিপাদ্য ‘নিরাপদ অভিবাসন যেখানে, টেকসই উন্নয়ন সেখানে’ উল্লেখ করে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, টেকসই উন্নয়ন নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত কল্পে বিশ্ব শ্রমবাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আমরা কর্মীদের দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করছি। দক্ষ কর্মী তৈরিতে দেশের প্রতিটি উপজেলায় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের প্রকল্প হাতে নিয়েছি।
অনুষ্ঠানে দুই জন অভিবাসী কর্মী নারায়ণগঞ্জের নার্গিস আক্তার জুঁই এবং পিরোজপুরের পরিমল বাদল তাদের বিদেশে অবস্থান, সাফল্য ও অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে এ বছর ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড প্রবাসী কর্মীর সন্তানদের ৪টি ক্যাটাগরিতে ১২৩০ ছাত্রছাত্রীকে প্রায় ২কোটি টাকা শিক্ষাবৃত্তি দিয়েছে। অনুষ্ঠানে ৮ শিক্ষার্থীর হাতে চেক তুলে দেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী।
আলোচনা শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ অভিবাসী মেলা উদ্বোধন করেন এবং বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন। এবারের অভিবাসী মেলায় ৪৫টি সরকারি, আর্থিক ও ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান, উন্নয়ন সহযোগী, এনজিও, রিক্রুটিং এজেন্সিসমূহসহ অন্যান্য ৬০টি স্টল বসায়।     প্রথম পর্বের অনুষ্ঠানের শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর আগে সকাল ৮টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজা থেকে আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র পর্যন্ত একটি র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. নমিতা হালদার, এনডিসি’র সভাপতিত্বে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির আয়োজনে ‘সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমেই নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চত করা সম্ভব’ বিষয়ক একটি বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (বোয়েসেল) এর তত্ত্বাবধানে বিতর্ক প্রতিযোগিতাটি সঞ্চালনা করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বোয়েসেল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মরণ কুমার চক্রবর্তী। প্রতিযোগিতা শেষে ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. নমিতা হালদার বলেন, নিরাপদ অভিবাসনের ক্ষেত্রে আমাদের প্রত্যেকেরই কিছু দায়িত্ব আছে। এ লক্ষ্যে ঘর থেকে পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র প্রত্যেকটি পর্যায়ে স্বচ্ছতা এবং সচেতনতা দরকার। তিনি বলেন, অনেক সময় দেখা যায় মা-ও ছেলের বিদেশ যাওয়ার খবর গোপন রাখেন। দালালরা তাদের গোপন রাখতে বাধ্য করে। কারণ অনেক সময় জানাজানি হলে দালাল তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করতে পারে না। পরে রচনা প্রতিযোাগিতা ও অভিবাসী মেলায় নির্বাচিত সেরা স্টলের পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ব্যাংক কোম্পানি আইন পাস, জাপার ওয়াকআউট

২০ হাজার টাকায় ১ বছর ক্লাস, অতঃপর...

শাম্মী আখতারের মৃত্যুতে শোবিজ অঙ্গনে শোকের ছায়া

ট্রেনে কাটা পড়ে রেলওয়ে কর্মকর্তার মৃত্যু

শাম্মী আখতারের জানাজা কাল বাদ জোহর

আইভী-শামীম সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

শাম্মী আখতার আর নেই

স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ ৩ জনের ফাঁসির রায়

‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে বিপুল ভোটে জিতবে তাবিথ’

‘মিথ্যা মামলায় খালেদার কোনো ক্ষতি হবে না, জনপ্রিয়তা বাড়বে’

ডিএনসিসি উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আদেশ বুধবার

জেলপলাতক ৩ বাংলাদেশিকে এখনো ধরা যায়নি, সীমান্তে নজরদারি

অনশন ভাঙলেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা

পুতিনই হবেন রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট

শেকলে বাঁধা সন্তান, উদ্ধার ১৩, গ্রেপ্তার পিতামাতা

মার্কিন কূটনীতিকদের তলব করেছে আফ্রিকার ৫ দেশ