নৌবাহিনী প্রধানের সঙ্গে যুদ্ধবন্ধুদের সাক্ষাৎ

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭, সোমবার
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ভারতীয় এবং রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর ৩০ জন বীর যোদ্ধা গতকাল নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) জানিয়েছে, ঢাকার বনানীর নৌ-সদর দপ্তরে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে ভারতীয় দলের নেতৃত্ব দেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) জেবিএস যাদব এবং রাশিয়ান দলের নেতৃত্ব দেন ক্যাপ্টেন (অব.) স্ট্যানিসলাভ গরবাচেভ। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারত ও রাশিয়ার ডিফেন্স এ্যাটাশে, সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তা এবং নৌ-সদরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সাক্ষাৎকালে নৌবাহিনী প্রধান বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে ভারত ও রাশিয়া তথা তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের বলিষ্ঠ ভূমিকার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলার আপামর জনগণ যে মুক্তির সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল সেই মহান স্বাধীনতা অর্জনে ভারত ও রাশিয়া বিশ্বস্ত বন্ধু হিসেবে আমাদের সর্বক্ষেত্রে সহযোগিতা করেছে। বিশেষ করে ১৯৭১ সালে পরিচালিত ‘অপারেশন জ্যাকপট’কে সাফল্যমণ্ডিত করতে তিনি ভারতের অবিস্মরণীয় ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, নৌ-কমান্ডোদের গেরিলা প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন অস্ত্র ও যুদ্ধ সরঞ্জামাদির মাধ্যমে প্রশিক্ষিত ও অপ্রতিরোধ্য হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে ভারত প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করেছে। এ সময় তিনি চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হবার আগেই ভারত কর্তৃক বাংলাদেশকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি প্রদানের বিষয়টি উল্লেখ করেন। এ ছাড়া নৌ-প্রধান মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী চ্যানেলে মাইন অপসারণের মাধ্যমে চট্টগ্রাম বন্দরকে জাহাজ চলাচল ও বিপদমুক্ত রাখতে রাশিয়ার সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের সবসময় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় ছিল এবং সেই সম্পর্কের নিদর্শনস্বরূপ স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাশিয়া সফর করেন। দু’দেশের সঙ্গে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে জোরদার করতে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ভারত ও রাশিয়ার নৌবাহিনীর সঙ্গে একযোগে কাজ করে যাবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য, ছয়দিনের এই রাষ্ট্রীয় সফরে আসা ভারত ও রাশিয়ার প্রতিনিধি দলটি আগামীকাল দেশে ফিরে যাবে বলে জানিয়েছে আইএসপিআর।
বিমানবাহিনী প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ: এদিকে অপর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আইএসপিআর জানিয়েছে- ভারত, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও মালদ্বীপ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের সমন্বয়ে ৭৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল গতকাল বিমান সদর পরির্দশন করেন। ৪টি দেশের এসিসি দলের নেতাগণ এ সময় বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল আবু এসরার এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। প্রতিনিধি দলটি বিমানবাহিনী সদর দপ্তরে কিছু সময় অতিবাহিত করেন এবং পারস্পরিক কুশল বিনিময় করেন। এ সময় বিমান সদরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, প্রতিনিধি দলটি বিজয় দিবস-২০১৭ উদযাপনের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সরকারের আমন্ত্রণে এক রাষ্ট্রীয় সফরে আসেন। সফরকালে তারা বিজয় দিবস-২০১৭ উদযাপনের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
প্রতিনিধি দলটির এই সফর দেশগুলোর মধ্যে বিরাজমান সহযোগিতামূলক এবং ভ্রাতৃপ্রতিম সম্পর্ককে আরো সুসংহত করবে বলে আশা করা যায়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শাম্মী আখতার আর নেই

স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ ৩ জনের ফাঁসির রায়

‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে বিপুল ভোটে জিতবে তাবিথ’

‘মিথ্যা মামলায় খালেদার কোনো ক্ষতি হবে না, জনপ্রিয়তা বাড়বে’

ডিএনসিসি উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আদেশ বুধবার

জেলপলাতক ৩ বাংলাদেশিকে এখনো ধরা যায়নি, সীমান্তে নজরদারি

অনশন ভাঙলেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা

পুতিনই হবেন রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট

শেকলে বাঁধা সন্তান, উদ্ধার ১৩, গ্রেপ্তার পিতামাতা

আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা

ট্রাম্পের মন্তব্যের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের তলব করেছে আফ্রিকার ৫ দেশ

আপিলের অনুমতি পেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ

যৌন হেনস্থা নিয়ে ভয়ে মুখ খুলছেন না বলিউড অভিনেত্রীরা!

রোহিঙ্গাদের সহায়তায় এক কোটি ওন দান করলেন অভিনেত্রী লি হানি

খালেদার শেষ, সালিমুল-শরফুদ্দিনের পক্ষে যুক্তিতর্ক মুলতবি

দক্ষিণ আফ্রিকায় মুক্তিপণ দেয়ার পরও খুন এক বাংলাদেশী