স্থবির হকিতে বিজয় দিবসেও খেলা নেই

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫১
বর্তমান কমিটির মেয়াদ ফুরিয়েছে আগেই। ২৭শে আগস্ট নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করে গত ৩০শে জুলাই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছিল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি)। অদৃশ্য কারণে মনোনয়নপত্র বিতরণের পর স্থগিত করা হয় বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সেই নির্বাচন। তফসিল অনুযায়ী ৫টি প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর গত ১৬ই আগস্ট স্থগিত করা হয় নির্বাচন। দেশের বন্যাকে কারণ হিসেবে দেখিয়ে নির্বাচন স্থগিত করে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বলেছিল এশিয়া কাপ হকির পর হবে নির্বাচন। কিন্তু এশিয়া কাপ শেষ হওয়ার পর প্রায় ২ মাস কেটে গেলেও নির্বাচন আয়োজনের কোনো খবর নেই।
হয়নি প্রিমিয়ার লীগের দলবদল। খেলোয়াড়রা বেকার। অলস সময় কাটাচ্ছেন তারা। কর্মকর্তারাও ফেডারেশনে আসা ছেড়ে দিয়েছেন। অন্য ফেডারেশনগুলো যখন বিজয় দিবসের নানা আয়োজন নিয়ে ব্যস্ত সেখানে একেবারে নির্বিকার হকি। সবকিছু মিলিয়ে এক স্থবির সময় পার করছে দেশের হকি।
হকির নির্বাচন নিয়ে কম উত্তপ্ত হয়নি নির্বাচনী ময়দান। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান এবং বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংগঠক পরিষদের সমর্থন নিয়ে চাঙ্গা ছিলেন প্রয়াত সাবেক সাধারণ সম্পাদক খাজা রহমতউল্লাহ। অন্যদিকে হকির ক্লাবগুলোর শক্তি ছিল অপর সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী আব্দুর রশিদ শিকদারের। ১৭ই আগস্ট এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে খাজা রহমতউল্লাহকে সমর্থন জানিয়ে প্যানেল ঘোষণা করার কথা ছিল। অনিবার্য কারণবশত সেই প্যানেল ওইদিন বিকাল অবধি ঘোষণা করা হয়নি। সন্ধ্যায় দেশব্যাপী বন্যার কারণ দেখিয়ে হকি ফেডারেশনের নির্বাচন স্থগিত করে এনএসসি। আগস্ট শোকের মাস এবং ঈদুল আজহা ও এশিয়া কাপকেও নির্বাচন স্থগিতের কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছিল।
এশিয়া কাপ হকি টুর্নামেন্টসহ সব জটিলতা কাটলেও শূন্যতার সৃষ্টি হয় হঠাৎ খাজা রহমতউল্লাহর অকাল প্রয়াণে। এশিয়া কাপ শেষ হওয়ার একদিন পর না ফেরার দেশে চলে যান হকি ফেডারেশনের এই সহ-সভাপতি। শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়ে হকি অঙ্গন। সাধারণ সম্পাদক পদের এই প্রার্থী চলে যাওয়ায় হকির নির্বাচন অনেকটাই উন্মুক্ত হয়ে যায়। কিন্তু এরপরও নির্বাচন নিয়ে কোনো উদ্যোগ নেই জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের। সংস্থাটির পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) এবং হকির নির্বাচনের জন্য গঠিত কমিশনের প্রধান শুকুর আলী এক মাস আগে বলেছিলেন, তারা সহসাই হকি ফেডারেশনের নির্বাচনের পুনঃতফসিল ঘোষণা করবেন। কিন্তু ক্রীড়া প্রশাসনের অন্যতম ওই শীর্ষ কর্মকর্তার কথা ও কাজে কোনো মিল নেই।
বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের নির্বাচিত কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ৩০শে জুলাই। কার্যত দেশের অন্যতম বড় এ ফেডারেশনে এখন কোনো কমিটিই নেই। যে কারণে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে দেশের অন্যতম জনপ্রিয় এ খেলায়। গত ২২শে অক্টোবর শেষ হয়েছে এশিয়া কাপ। তারপর থেকে হকি ঘুমিয়ে আছে। ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ফেডারেশন খেলাধুলার আয়োজন করে থাকে। হকি ফেডারেশনও নিয়মিত আয়োজন করে থাকে বিজয় দিবস হকি। কিন্তু এ বছর ফেডারেশনটি এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করছে না। এদিকে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের নির্বাচন দেবে নাকি অ্যাডহক কমিটি গঠন করবে তা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। এক পক্ষ চাইছে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক দিয়েই অ্যাডহক কমিটি গঠন করতে। অন্যদিকে নির্বাচন চাইছে অপরপক্ষ। কার্যত এ কারণেই কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না এনএসসি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ব্যাংক কোম্পানি আইন পাস, জাপার ওয়াকআউট

২০ হাজার টাকায় ১ বছর ক্লাস, অতঃপর...

শাম্মী আখতারের মৃত্যুতে শোবিজ অঙ্গনে শোকের ছায়া

ট্রেনে কাটা পড়ে রেলওয়ে কর্মকর্তার মৃত্যু

শাম্মী আখতারের জানাজা কাল বাদ জোহর

আইভী-শামীম সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

শাম্মী আখতার আর নেই

স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ ৩ জনের ফাঁসির রায়

‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে বিপুল ভোটে জিতবে তাবিথ’

‘মিথ্যা মামলায় খালেদার কোনো ক্ষতি হবে না, জনপ্রিয়তা বাড়বে’

ডিএনসিসি উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আদেশ বুধবার

জেলপলাতক ৩ বাংলাদেশিকে এখনো ধরা যায়নি, সীমান্তে নজরদারি

অনশন ভাঙলেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা

পুতিনই হবেন রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট

শেকলে বাঁধা সন্তান, উদ্ধার ১৩, গ্রেপ্তার পিতামাতা

মার্কিন কূটনীতিকদের তলব করেছে আফ্রিকার ৫ দেশ