ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে ফিলিস্তিন

আমৃত্যু এক যোদ্ধার কথা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, শনিবার
আমৃত্যু দেশের জন্য যুদ্ধ করে প্রাণ দিয়ে গেলেন ইব্রাহিম আবু তুরায়ে । তিনি ২৭ বছরের ফিলিস্তিনি যুবক। এর আগে ইসরাইলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে গিয়ে দু’পা হারান। সেই অবস্থায়ই তিনি শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে শরিক হয়েছিলেন। কিন্তু তাকে ছেড়ে দেয় নি ইসরাইলি নৃশংস সেনারা। তারা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।
তারা গুলি করে হত্যা করেছে আরো তিন ফিলিস্তিনিকে। জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে গত ৬ই ডিসেম্বর ঘোষণা দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তার এ ঘোষণার প্রতিবাদে আগুন জ্বলছে ফিলিস্তিনে। ক্ষোভে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব। দেশে দেশে চলছে বিক্ষোভ, সমাবেশ। ফিলিস্তিন, বিশেষ করে ফিলিস্তিনের গাজা যেন অগ্নিকুণ্ডে রূপ নেয় শুক্রবার। সেখানে ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে আসেন দু’পা হারানো ২৯ বছর বয়সী যুবক ইব্রাহিম আবু তুরায়ে। বিক্ষোভে তিনি ছিলেন হুইল চেয়ারে। গাজা সিটির বিক্ষোভে শামিল হয়েছিলেন তিনি। তাকেও রেহাই দেয় নি ইসরাইলিরা। সেনারা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।

ওই এলাকায় একইভাবে হত্যা করা হয়েছে আরো একজনকে। অন্যদিকে পশ্চিম তীরে হত্যা করা হয়েছে আরো একজনকে। জেরুজালেমে সংঘর্ষ চলাকালে আহত হয়েছিলেন আরো একজন। পরে তিনিও মারা গেছেন। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ডেইলি মেইল। এতে বলা হয়, দু’পায়ের একটিও নেই, হুইল চেয়ারে জীবন বন্দি এমন পঙ্গু ইব্রাহিম আবু তুরায়ে’কে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরাইলি সেনারা। আহত হয়েছেন আরো কমপক্ষে ১৫০ জন। গুলিতে আহত ইব্রাহিম আবু তুরায়ে’কে সঙ্গে সঙ্গে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল গাজা সিটির আল শিফা হাসপাতালে। সেখানে নেয়ার কিছুক্ষণ পরে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এর আগের এক বিক্ষোভে ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে তিনি হারিয়েছিলেন দু’পা। গাজা সিটির পূর্ব সীমান্তে তাকে শুক্রবার গুলি করে ইসরাইলিরা। স্থানীয় মিডিয়া বলছে, ইসরাইলের সঙ্গে ২০১৪ সালে গাজার লড়াইয়ে দু’পা হারিয়েছিলেন ইব্রাহিম আবু তুরায়ে। তিনি সম্প্রতি ইসরাইল বিরোধী বিক্ষোভে ছিলেন সবার আগে। তার হাতে থাকতো ফিলিস্তিনি পতাকা। তাই নিয়ে তিনি সীমান্তে চলে যেতেন দখলদারদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। শুক্রবার গাজা উপত্যকায় হাজার হাজার ফিলিস্তিনি বিক্ষোভে শরীক হন। তারা এ সময় ইসরাইলি সেনাদের গুলির জবাবে ইটপাথর ছোড়েন। তবে এ সময় একজন ফিলিস্তিনির হাতে দেখা গেছে একটি ছুরি। তার শরীরে বাঁধা ছিল বোমার মতো বেল্ট। তবে ফিলিস্তিনি একজন চিকিৎসক বলেছেন, ওই বেল্টটি ছিল ভুয়া। এক পর্যায়ে ওই ব্যক্তিকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তখনও তার বুকের সঙ্গে বাঁধা ওই ভুয়া বোমার বেল্ট। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে এম্বুলেন্সে তোলা হয়। শুক্রবারের সংঘর্ষে নিহত মিলিয়ে ট্রাম্পের ঘোষণার পর মোট ৮ জন ফিলিস্তিনি নিহত হলেন। ৬ই ডিসেম্বর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেন। তারপর থেকে ফিলিস্তিনে ক্ষোভের আগুন জ্বলছে। আরব ও মুসলিম বিশ্বে দেখা দিয়েছে তীব্র বিরোধিতা।

আরব লীগ এরই মধ্যে ট্রাম্পের ঘোষণাকে প্রত্যাখ্যান করেছে। একই পদক্ষেপ নিয়েছে ওআইসি। তুরস্কের ইস্তাম্বুলে জরুরি বৈঠক থেকে পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, পূর্ব জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী ছিল এবং চিরদিন তাই থাকবে। এই ঘোষণার পক্ষে দাঁড়াতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ঘোষণা অবৈধ ও অর্থহীন বলে উল্লেখ করা হয়। উল্লেখ্য, তার এ ঘোষণাকে শুধু সুবিধাভোগী ইসরাইল ছাড়া বিশ্বের আর কোনো দেশ স্বীকৃতি দেয় নি। ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। কিন্তু তার মুখের ওপর ইইউ বলে দিয়েছে, তারা ট্রাম্পের ওই ঘোষণাকে প্রত্যাখ্যান করেছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভিডিও দেখে অস্ত্রধারীদের খোঁজা হচ্ছে

‘অতিষ্ঠ হয়ে প্রেমিককে ছুরিকাঘাত’

ফল প্রকাশের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, অবরোধ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সময় লাগবে ৯ বছর!

মত প্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত, আক্রমণের শিকার নাগরিক সমাজ

মেয়র আইভী হাসপাতালে

জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী আজ

এবার আটকে গেল দক্ষিণের ১৮ ওয়ার্ডের নির্বাচনও

হাথুরুকে দেখিয়ে দেয়ার লড়াই

‘আপনার এত তাড়াহুড়া কিসের?’

সংবাদটি আমাকেও শোকে মুহ্যমান করে ফেলে

‘নেতৃত্ব তৈরির প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত করতেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন বন্ধ রাখা হয়েছিল’

৬ মাসের প্রাণ পেলো যশোর রোডের গাছগুলো

সিলেটে রাজনীতির আড়ালে সক্রিয় ‘চিহ্নিত’ অপরাধীরা

‘নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে ৮০ শতাংশ ভোট পাবে বিএনপি’

কাজাখস্তানে বাসে আগুন লেগে ৫২ জনের মৃত্যু