পুরোদমে চালু হলো ৯৯৯ সেবা

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪০
একটি সহজ নম্বর, ৯৯৯। যেকোনো ফোন থেকে বিনা খরচে কল করা যাবে এই নম্বরে। অপরপ্রান্তে থাকা কর্তব্যরত পুলিশের সদস্যরা তাৎক্ষণিক সাড়া দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। পুলিশ এর নাম দিয়েছে, ‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’। প্রয়োজনে যে কেউ ফোন করে পুলিশ, অ্যাম্বুলেন্স এবং ফায়ার সার্ভিস সেবা পাবেন। গতকালই সেবাটি চালু করা হয়েছে।
গতকাল সকালে রাজধানীর আবদুল গনি রোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের ক্রাইম কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সেন্টারে কলটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। পরে এ বিষয়ে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ সদর দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পুলিশ ইতিমধ্যে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। ইতিমধ্যে অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, বিডি পুলিশ হেল্প লাইন ফেসবুকসহ আরো  আরো অ্যাপ খোলা হয়েছে। উন্নত বিশ্বে জরুরি কল সেন্টার চালু আছে। সেগুলোতে ফোন করে নাগরিকরা দ্রুত সেবা নিয়ে থাকেন। উন্নত বিশ্বের আদলে বাংলাদেশের জনগণ যাতে দ্রুত সেবা পেতে পারে  এজন্য ‘ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস’-৯৯৯ কল খোলা হয়েছে। দিনে ১২০টি কল রিসিভ করতে পারবে পুলিশ। কলটি পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ফরোয়ার্ড করে দিবে সংশ্লিষ্ট থানায়। এরপর পুলিশ ভিকটিমের তথ্য অনুযায়ী জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেবে। সূত্র জানায়, গত ২০শে জুলাই পরীক্ষামূলক পুলিশ জরুরি জাতীয় সেবা, ৯৯৯ কার্যক্রম চালু করে। এরই মধ্যে গাজীপুরের কালিয়াকৈর হাইটেক পার্কে ৯৯৯ নম্বরের একটি হেল্পডেক্স খোলা হয়। এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রমে সেবা প্রত্যাশীরা ৬৪.৮০ ভাগ পুলিশি সেবা, ৩১.১০ ভাগ ফায়ার সার্ভিস ও ৪.১০ ভাগ অ্যাম্বুলেন্স সেবার জন্য কল করেছেন। এই তিনটি কল পর্যালোচনা করে পুলিশ ওই ৩ সেবা দেয়ার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে। গত ৮ই অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ৯৯৯ পূর্ণাঙ্গভাবে পরিচালিত করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তথা বাংলাদেশ পুলিশকে হস্তান্তরের নির্দেশ দেন। এর আলোকে বিটিআরসি বাংলাদেশ পুলিশকে তাদের ব্যবহৃত ১০০ শর্টকোড এর পরিবর্তে ৯৯৯ শর্টকোড বরাদ্দ দেন। ইতিমধ্যে এই কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় ৯৯৯ এর ব্যবহার, প্রচার ও কমিউনিটি সেফ্‌টির বিষয়ে কর্মশালা সম্পন্ন হয়েছে। এ উপলক্ষে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ কি এটা অনেকেই বুঝতেন না। কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর কোনো স্বপ্ন নয়, এটা এখন একটি বাস্তব ঘটনা। তিনি আরো বলেন, তথ্যপ্রযুক্তিকে জনগণের দোরগোড়ায়  পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে। পুরো ব্যাংকিং সেক্টরকে আনা হয়েছে অনলাইনের আওতায়। এতে বিদেশে থাকা প্রবাসীরা দ্রুত নিরাপদে টাকা পাঠাতে পারছেন। তিনি আরো বলেন, পুলিশের উন্নয়ন মানে জণগণের উন্নয়ন। পুলিশকে যতবেশি স্বাবলম্বী করা হবে ততবেশি জনগণের নিরাপত্তা বিধান করা সম্ভব হবে। এজন্য সরকার দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশের উন্নয়নে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। তারই উদ্যোগ হিসাবে এই জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ চালু করা হলো। তিনি আরো বলেন, দেশের অর্ধকোটি মানুষ প্রায় ৬০০টি অ্যাপস-এর মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য আদান-প্রদান করছেন। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ গত বছর ৪০০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছে। এই আয় দিন দিন বাড়ছে। তিনি আরো  বলেন, ঢাকাসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরকে সেইভ জোন গড়ে তোলার জন্য সরকার নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে। তারই আলোকে জাতীয় জরুরি সেবা প্রকল্প চালু করা হলো। শিগগির ই-পাসপোর্ট ও ই-টিকিট চালু করা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন বলেন, ১২ই ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক আইসিটি দিবস। আইসিটিকে জণগনের কল্যাণে ব্যবহার করার উদ্যোগ হিসাবে এই জরুরি সেবা চালু করা হলো। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিতা বজার রাখার উদ্যোগ নিয়েছে। বর্তমান দেশের ১৪ কোটি মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। আর ৭ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। স্বাধীনতার পর অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের উত্থান দেখে বিশ্বের অনেক বড় বড় অর্থনীতিবিদেরা আশ্চর্য হয়ে যাচ্ছেন। সভাপতির বক্তব্যে পুলিশের আইজি একেএম শহীদুল হক বলেন, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নাগরিকের কল্যাণে কাজে আসবে বলে পুলিশ আশা করছে। নাগরিকরা যদি কোনো অপরাধ করতে দেখেন, কাউকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হলে, কেউ দুর্ঘটনায় পড়লে বা কোনস্থানে আগুনসহ যেকোনো দুর্যোগ দেখা দিলে। পুলিশের দক্ষ ও প্রশিক্ষিত সদস্যরা ২৪ ঘণ্টা এই কলটি রিসিভ করবেন এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য ফখরুল ইসলাম এমপি, কামরুন নাহার চৌধুরী এমপি এবং পুলিশের অতিরিক্ত আইজি (টেলিকম) বিনয় কৃষ্ণ বালা প্রমুখ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

maksud

২০১৭-১২-১২ ১৯:১৭:২০

পুলিশ দের কে অনেক ধন্যবাদ

আপনার মতামত দিন

ব্যাংক কোম্পানি আইন পাস, জাপার ওয়াকআউট

২০ হাজার টাকায় ১ বছর ক্লাস, অতঃপর...

শাম্মী আখতারের মৃত্যুতে শোবিজ অঙ্গনে শোকের ছায়া

ট্রেনে কাটা পড়ে রেলওয়ে কর্মকর্তার মৃত্যু

শাম্মী আখতারের জানাজা কাল বাদ জোহর

আইভী-শামীম সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

শাম্মী আখতার আর নেই

স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ ৩ জনের ফাঁসির রায়

‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে বিপুল ভোটে জিতবে তাবিথ’

‘মিথ্যা মামলায় খালেদার কোনো ক্ষতি হবে না, জনপ্রিয়তা বাড়বে’

ডিএনসিসি উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আদেশ বুধবার

জেলপলাতক ৩ বাংলাদেশিকে এখনো ধরা যায়নি, সীমান্তে নজরদারি

অনশন ভাঙলেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা

পুতিনই হবেন রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট

শেকলে বাঁধা সন্তান, উদ্ধার ১৩, গ্রেপ্তার পিতামাতা

মার্কিন কূটনীতিকদের তলব করেছে আফ্রিকার ৫ দেশ