পাহাড় কাটায় কঠোর নিষেধাজ্ঞা

বাংলারজমিন

কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি | ৭ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
দৈনিক মানবজমিনে পাহাড় গিলে খাচ্ছে পাহাড়দস্যুরা শিরোনামে ২৯শে নভেম্বর খবর প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। ইতিমধ্যে দৌড়ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছেন পাহাড়ি এলাকার প্রশাসন। পাহাড় না কেটে সৌন্দর্য্য রক্ষার জন্য ওইসব এলাকায় জনসচেতনতা মূলক প্রচারণা চালাচ্ছে কসবা উপজেলা প্রশাসন। পাহাড়গুলোতে চিরুনি অভিযান অব্যাহত রেখেছেন তারা। পাহাড় কাটার সময় হাতেনাতে ধরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে সাজাও দিয়েছেন। পাহাড় কাটার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে একাধিক।
কসবার বায়েক ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন, আমি পাহাড় এলাকায় পাহারা বসিয়েছি। যাতে কেউ পাহাড় কাটতে না পারে। এলাকায় মাইকিং করে জনগণকে সচেতন করা হচ্ছে। কসবার চন্দ্রীদ্বার ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন বলেন, আমি নিয়মিত পাহাড় এলাকা যাচ্ছি। জনগণকে পাহাড়ের সৌন্দর্য্য রক্ষা করতে সচেতন করে তুলছি। আমি এ পর্যন্ত বাদী হয়ে ৪টি মামলা করেছি। কসবা থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মহি উদ্দিন বলেন, পাহাড় কাটার বিষয়ে মামলা হয়েছে। এ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কসবা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জুবাইদা আক্তার বলেন, পাহাড় কাটার বিষয়ে আমি কঠোর অবস্থান নিয়েছি। ইতিমধ্যে পাহাড় কাটার সঙ্গে জড়িত একজনকে জরিমানা ও কয়েকজনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন