নিকলীতে দুই স্কুলছাত্রী ধর্ষিত

এক্সক্লুসিভ

নিকলী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি | ৬ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার
কিশোরগঞ্জের নিকলীতে দুই দিনে স্কুলছাত্রীসহ দুইজন ধর্ষণের শিকার হয়েছে। সোমবার রাতে নিকলী থানা পুলিশ সাজন (২২) নামে এক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে। সাজন মজলিশপুর বড়হাটি গ্রামের মৃত দুলাল মিয়ার পুত্র। নিকলী থানা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় সোমবার সকালে নিকলী উপজেলার নোয়াপাড়া গ্রামের এক কৃষক দম্পতি তাদের কন্যা (১৩) কে রেখে বাড়ির নিকটবর্তী মরিচ ক্ষেত পরিচর্যা করতে যায়। দুপুরে বাড়ি ফিরে মা ঘরের দরজা বন্ধ ও মেয়ের সাড়াশব্দ না পেয়ে ডাকাডাকি করে। এ সময় একই এলাকার আবু তালেবের পুত্র উবায়দুর (১৭)কে ঘরের ভিতর থেকে দরজা খুলে দৌড়ে পালিয়ে যেতে দেখেন।
দ্রুত ঘরে ঢুকে মুখে গামছা বাঁধা ও অস্বাভাবিক অবস্থায় মেয়েকে দেখতে পান তারা। উবায়দুর মেয়েটিকে ধর্ষণ করেছে বলে ঐ মেয়ে তার পিতা মাতাকে জানায়। ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে উবায়দুরের নামে গতকাল ধর্ষণ মামলা করেছেন।
অপরদিকে উপজেলার আবিরপুর গ্রামের বাসিন্দা ও মজলিশপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী (১৭) এর সঙ্গে বছর খানেক আগে একই এলাকার বড়হাটি গ্রামের কলেজপড়ুয়া সাজনের মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের সূত্রধরে নিয়মিত ঐ ছাত্রীর বাড়িতে যাতায়াত করে সাজন। ৩রা ডিসেম্বর রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টায় সাজন ঐ ছাত্রীর বাড়ির একটি দোতলা ঘরে ছাত্রীটিকে ধর্ষণ করে। ছাত্রীর বড় ভাই বাদী হয়ে পরদিন নিকলী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করে। মামলাটির তদন্তকারী নিকলী থানার এসআই সমরেন্দ্র দত্ত জানান, ধর্ষক প্রেমিক সাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন