তিস্তায় পানিই নেই, মত ভারতের নদী বিশেষজ্ঞদের

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৯ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:৪৩
বাংলাদেশের তিস্তার পানি পাওয়া আরও দুরূহ হয়ে উঠেছে ভারতের নদী বিশেষজ্ঞদের দেওয়া অভিমত থেকে। নদী বিশেষজ্ঞদের দেওয়া মতামত প্রকারান্তরে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর মনোভাবকেই আরও শক্তিশালী করবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। গত মঙ্গলবার কলকাতায় অনুষ্ঠিত এক আলোচনা চক্রে ভারতের নদী বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, সেচের জন্য যত পানি তার কাছে চাওয়া হচ্ছে, তিস্তার ততটা দেওয়ার ক্ষমতাই নেই এমনকি শুধু পশ্চিমবঙ্গের যা চাহিদা, সেটুকুও পূরণ করার অবস্থাতেও নেই তিস্তা। আর যে সব নদী বিশেষজ্ঞ এই অভিমত জানিয়েছেন সেই তালিকায় রয়েছেন ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে তিস্তার জলবণ্টন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের গড়া পরামর্শদাতা কমিটির প্রধান কল্যাণ রুদ্রও। পশ্চিমবঙ্গের সেচ দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সরকার তিস্তার পানি দিয়ে ন’লক্ষ হেক্টর জমিকে সেচসেবিত করে তুলতে চাইছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ চাইছে সাত লক্ষ হেক্টর জমিতে সেচের পানি দিক তিস্তা।
নদী-বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ১৬ লক্ষ হেক্টর জমিতে সেচের জন্য নদীর পানি দিতে গেলে শুখা মওসুমে তিস্তায় প্রতি সেকেন্ডে ১৬০০ ঘন মিটার পানি থাকা দরকার। অথচ এখন থাকে প্রতি সেকেন্ডে ১৫০-২০০ ঘন মিটার পানি। সেচের জন্য তিস্তার কাছে যতটা জল প্রত্যাশা করা হচ্ছে, বাস্তব অবস্থার সঙ্গে সেই চাহিদা মোটেই সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলে জানিয়েছেন নদী-বিশেষজ্ঞ কল্যাণ রুদ্র এবং গঙ্গাকে নির্মল করার কাজে যুক্ত জাতীয় মিশনের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর সন্দীপ। ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট (নিরি)-এর কলকাতা শাখা আয়োজিত এই আলোচনাচত্রে কল্যাণ রুদ্র বলেছেন, গোটা দেশে যে-পরিমাণ চাষের জমিকে সেচসেবিত করার লক্ষ্য ঘোষণা করা হয়, বাস্তবে সেই পরিমাণ পানি নদীগুলিতে নেই। কাবেরীর বেলায় এটা হয়েছে। তিস্তার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। নিরি-র অধিকর্তা রাকেশ কুমার বলেছেন, দেশে অধিকাংশ নদীরই প্রবাহ কমে গিয়েছে বা তারা প্রবাহ হারিয়ে ফেলেছে।

[এফএম]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

হ্যান্ডকাফসহ পালালো আসামি

‘ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত সরকারেরই নীল নকশার অংশ’

২৪ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার না করলে আন্দোলন

সাক্ষ্য দেবেন না স্টিভ ব্যানন

‘সবকিছুতে সরকারের যোগসাজশ খোঁজেন কেন?’

রাখাইনে বৌদ্ধদের দাঙ্গা, গুলিতে নিহত ৭

৬ মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের আদেশ হাইকোর্টের

ভয়াবহ বিপদজনক চুক্তি

যুক্তি তর্ক শুনানি চলছে, আদালতে খালেদা

ঢাকা উত্তরের মেয়র উপনির্বাচন স্থগিত

উত্তরা মেডিকেলের ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রমে বাধা নেই

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তির বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের গভীর উদ্বেগ

মিয়ানমার অনুমতি দেয় নি, কাল বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর

‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন অবৈধ’

‘তেমন ভালো কাজ তো এখন হচ্ছে না’

আইভী-শামীম মুখোমুখি, সংঘর্ষ