রোমাঞ্চের অপেক্ষায় কলকাতা টেস্ট

৩৪ বছরের রেকর্ডে ভারত

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২০ নভেম্বর ২০১৭, সোমবার
প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৭২ রানে গুঁড়িয়ে যেতে দেখা গিয়েছিল ভারতকে। তবে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ভিন্ন চেহারা দেখালো ভারতীয়রা। কলকাতা টেস্টে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ওপেনিংয়ে গতকাল শতরানের জুটি গড়েন কেএল রাহুল ও শিখর ধাওয়ান। টেস্টে ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে ওপেনিং জুটিতে শতরানের ঘটনা দেখা গেল ৭ বছর পর। সর্বশেষ ২০১০-এ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেঞ্চুরিয়ন টেস্টে এমন কৃতিত্ব দেখায় ভারতের ওপেনিং জুটি। গতকাল ইডেন গার্ডেনস মাঠে দিনের শেষ সেশনে ১৬৬ রানের জুটি ভাঙার আগে ১১৬ বলে ৯৪ রান করেন শিখর ধাওয়ান।
এতে ধাওয়ান হাঁকান ১১টি চার ও দুটি ছক্কা। আর ১৭১/১ সংগ্রহ নিয়ে ম্যাচের চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করে ভারত। দিন শেষে ৯৩ রানে অপরাজিত থাকেন কেএল রাহুল। চতুর্থ দিন শেষে ভারত এগিয়ে যায় ৪৯ রানে। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ভারতের ১৭২ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ থামে ২৯৪ রানে। তিন ও চার নম্বরে ব্যাট হাতে লাহিরু থিরিমান্নে ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস অর্ধশতক হাঁকালেও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি কেউই। ৯ নম্বরে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন রঙ্গনা হেরাথ।
ক্যারিয়ারে এটি হেরাথের পঞ্চম অর্ধশতক। এতে ইনিংস শেষে ১২২ রানের লিড পায় সফরকারী শ্রীলঙ্কা। ভারতের বল হাতে ১০ উইকেট ভাগাভাগি করেন পেসাররা। টেস্টে ভারতের মাটিতে ইনিংসে স্বাগতিক পেসারদের ১০ উইকেট শিকারের মাত্র তৃতীয় ঘটনা এটি। এমন সর্বশেষ নজিরটিও দীর্ঘ ৩৪ বছরের পুরনো ঘটনা। ১৯৮৩’র আহমেদাবাদ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ইনিংসে ৯ উইকেট নেন ভারতীয় পেসার কপিল দেব। আর ১ উইকেট পান অপর পেসার বালবিন্দর সান্ধু। টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে গত দুই মাস সীমিত ওভারের খেলায় ভারতীয় দুই স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজাকে বিশ্রামে রেখেছিল দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। তবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে সাকুল্যে ৯ ওভার বল করেন এ দুই স্পিনার। আর বাঁ-হাতি স্পিনার জাদেজা হাত ঘুরান মাত্রই এক ওভার। ভারতের মাটিতে গত ৩০ বছরে টেস্টের প্রথম ইনিংসে এতো কম ওভার বল করতে দেখা যায়নি স্বাগতিক স্পিনারদের। ১৯৮৭তে দিল্লি টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ভারতীয় স্পিনাররা বল করেন সাকুল্যে ১৬ ওভার। কলকাতায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ভারতের বল হাতে সমান চার উইকেট নেন কলকাতার ‘লোকাল বয়’ মোহাম্মদ শামি ও ভুবনেশ্বর কুমার।
আর উমেশ যাদব নেন দুই উইকেট। মোহাম্মদ শামির জন্ম ও বেড়ে ওঠা উত্তর প্রদেশে। তবে তরুণ বয়সে শামির খেলোয়াড়ি ক্যারিয়ার পরিপক্ব হয় কলকাতায়।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
টস: শ্রীলঙ্কা, ফিল্ডিং
ভারত: ১৭৪ (পূজারা ৫২, লাকমাল ৪/২৬) ও ১৭১/১ ব্যাটিং (ধাওয়ান ৯৪, রাহুল ৭৩*, শানাকা ১/২৯)
শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ২৯৪ (হেরাথ ৬৭, ম্যাথিউস ৫২, থিরিমান্নে ৫১, ভুবনেশ্বর ৪/৮৮, শামি ৪/১০০)।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওআইসি’র ঘোষণা নেতানিয়াহু’র প্রত্যাখ্যান

প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন

ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা

গাজীপুরে মসজিদের ভেতর নৈশ প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা

‘প্রেম’ করে বিয়ে, চাকরি হারালেন শিক্ষক দম্পতি

চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সত্যতা মিলেছে

প্রশ্ন ফাঁস হতো প্রেস থেকে

আবাসিক এলাকায় রাতে হর্ন বাজানোয় নিষেধাজ্ঞা

‘বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনে বাধা নেই’

কুয়ালালামপুরে গ্রেপ্তার ২ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা

জামিনে আপন জুয়েলার্সের তিন মালিক

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

প্রথম ১ মাসে ৬৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে