প্রসঙ্গ- রাজনীতিতে আসা

জল্পনার অবসান ঘটালেন জ্যোতি

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ নভেম্বর ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:১১
কদিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে জনপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতির রাজনীতিতে  আসা নিয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। বিশেষ করে সম্প্রতি ময়মনসিংহে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে জল্পনা আরো বাড়িয়ে দিয়েছেন। সবাই ধরেই নিয়েছেন অভিনেত্রীর মস্তকে এখন রাজনীতি ছাড়া আর কিছুই নেই। শুধু তাই নয়, কেউ কেউ জ্যোতির অভিনয় থেকে বিদায় নেয়ার বিষয়টি নিয়েও ভেবে ফেলেছেন। তবে সব গুঞ্জন, জল্পনা-কল্পনার অবসান নিজেই ঘটিয়েছেন অভিনেত্রী। আজ রোববার ফেসবুকের এক স্ট্যাটাসে জ্যোতি জানান, অভিনয়টা তার প্যাশন।
আপাতত এ ছাড়া অন্য কিছু ভাবছেন না। জ্যোতির পোস্ট করা ফেসবুকের ওই স্ট্যাটাসটি পাঠকের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো-
বিষয়টা হলো আপনারা সবসময় যা দেখেন বা করেন আমাকে সেই হিসেবের মধ্যে ফেলাটা বোকামি এ্যাকচুয়েলি, একদম অযথা। আমি কখনোই কোন গতানুগতিকতার ধার ধারিনা। মনের সিদ্ধান্তে চলি।

সাধারণত এক পেশায় কাজ করে এবং অন্যদের করতে দেখে অভ্যস্ত আপনারা। কিন্তু আমার মাথায় দুনিয়ার মেলাকিছু কিলবিল করে। সেসব নিয়ে শুধু ভাবিইনা কাজও করতে পছন্দ করি। আমি বিশ্বাস করি মানুষ একজীবনে অনেককিছু করার ক্ষমতা রাখে। সো নায়িকার যে ইমেজ আপনারা যুগের পর যুগ তৈরি করে রেখেছেন আমি অবশ্যই তা ভাঙবো, ভাঙছিও। আমার কাজকর্মের প্রতি একটু মনোযোগী হলেই আপনার চোখে পড়বে।আমার সামনে প্রতিদিন প্রতিমুহুর্তে অন্যায়, অনুচিত যা ঘটে আমি তা ফেস করে সঠিকটা প্রতিষ্ঠিত করি, করিই করি। সেই শিশুকাল থেকেই, আমি এমনই। আপনারা হয়তো এড়িয়ে যান, এই আরকি।
শোনেন, আমি যদি লিখি খুব ভালো লেখক হবো, যদি রাজনীতিতে সক্রিয় হই খুব ভালো রাজনীতিবিদ/লিডার হবো, ব্যবসা করলে খুব ভালো ব্যাবসায়ী, আর কৃষিকাজের প্রতি তো আমার ব্যাপক আগ্রহ। আমি জানি এগুলো করলে আমি খুব সাকসেসফুলই হবো, তার জন্য খুব ভালো যোগ্যতা আছে আমার।এটা কখনো পরীক্ষিত, কখনো আমার বিশ্বাস। আর কে না জানে বিশ্বাসে মিলায় বস্তু! কিন্তু এ মুহুর্তে অভিনয় আমার প্যাশন, আপাতত: এর বাইরে যেতে পারছিনা আমি। ওই যে মনের কথায় চলি। আবার মন যখন অন্য কিছু চাইবে তখন অন্যকিছু। পারবোনা শুধু একটাই, গতানুগতিক গ্রোতে গা ভাসাতে। উল্টোগ্রোতে গন্তব্যে যেতে দেরী হয় সেটা জেনেও।
সুতরাং আমি অন্য কিছু বা অনেককিছু করতে চাইলে আপনারা অবাক হওয়া, হাসাহাসি করা, ঈর্ষা করা, প্রতিহিংসাপরায়ণ হওয়া এসব থেকে বিরত থাকুন। এসব আমাকে টাচ করবেনা, আটকাতেও পারবেনা। কোনদিন কেউ আটকাতে পারেনি। একা যুদ্ধ করে এগিয়েছি। কারণ আমি কুপি বাতির আলোয় মাটিতে বসে পড়ে গ্রাজ্যুয়েট হয়েছি, অজপাড়াগা থেকে এসে আপনাদের সভ্যতায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছি, সবথেকে চ্যালেন্জিং পেশাটায় কাজ করে যাচ্ছি।এই শক্তি তো আপনি রুখতে পারবেনা। একজন যোদ্ধার সাথে আপনারা পারবেন কি করে ? আমার মাথা ও মনের ডিভাইস আপনাদের গতানুগতিক ভাবনা চিন্তার একদম বাইরে।
আমাকে কি সাধারণে ভাবলে চলবে???
[এমকে]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভর্তি জালিয়াতি সন্দেহে রাবির দুই ছাত্রলীগ নেতা আটক

‘এটাও কিন্তু একটা চ্যালেঞ্জের বিষয়’

সৌদিই ব্যতিক্রম

তাদের কি বিবেক বলে কিছু নেই

ঢাকা উত্তরের উপনির্বাচন ফেব্রুয়ারিতে

যেভাবে উগ্রপন্থায় দীক্ষিত হয় আকায়েদ

স্বাস্থ্যসেবার ব্যয় মেটাতে দারিদ্র্যসীমার নিচে ৫ শতাংশ পরিবার

তারা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসটাকে হাইজ্যাক করে ফেলেছে

কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে ৬০০ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

আরো বেড়েছে দেশি পিয়াজের দাম

সময় চাইলেন ‘অসুস্থ’ বাচ্চু

ঢাকার আকাশে ঝড়ের ঘনঘটা

বিএনপির প্রচারণায় বাধার অভিযোগ

বিএনপির বিজয় র‌্যালি

ব্যবহারে বংশের পরিচয়

‘উন্নয়ন কথামালায়, মানুষ কষ্টে আছে’