হেয়ার স্কুলের দ্বিশতবার্ষিকীতে সম্মানিত জিয়া

শেষের পাতা

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৯ নভেম্বর ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৬
বাংলায় নবজাগরণের অন্যতম পথিকৃৎ ডেভিড হেয়ার ১৮১৮ সালে কলেজ স্ট্রিটে তৎকালীন হিন্দু কলেজের বিপরীতে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন একটি স্কুল। সেটিই পরবর্তী সময়ে হেয়ার স্কুল হিসেবে পরিচিত হয়েছে। গত ১লা সেপ্টেম্বর থেকে বছরব্যাপী দ্বিশতবার্ষিকী উৎসবের সূচনা হয়েছে। চলবে ২০১৮ সালের ১লা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। উৎসবের সূচনায় স্কুলের খ্যাতনামা সাবেকদের স্মরণ করে কলেজ স্ট্রিটের সমস্ত ল্যাম্পপোস্টে তাদের ছবি লাগিয়ে সম্মান জানিয়েছে হেয়ার স্কুল অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। সাবেকদের মধ্যে বাংলাদেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানের ছবি দিয়েও পোস্টার টাঙানো হয়েছে।
অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক গৌতম বসু এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, আমরা দ্বিশতবার্ষিকী উৎসবের অঙ্গ হিসেবে সাবেকদের সম্মানিত করতেই কলেজ স্ট্রিটের সমস্ত ল্যাম্পপোস্টে ২০-২৫ জন বিশিষ্ট সাবেকদের ছবি দিয়ে পোস্টার দিয়েছি। বহু মনীষীই  এই হেয়ার স্কুলের ছাত্র ছিলেন। তিনি বলেন, রাজনারায়ণ বসু, গিরিশচন্দ্র ঘোষ, জগদীশচন্দ্র বসু, প্রফুল্ল চন্দ্র রায়, মহেন্দ্রলাল সরকার, গুরুদত্তের মতো বিশিষ্টদের পাশাপাশি বাংলাদেশের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানকেও আমরা সম্মানিত করেছি পোস্টারে তার ছবি দিয়ে। হেয়ার স্কুলের সঙ্গে জিয়াউর রহমানের সম্পর্ক অবশ্য বেশিদিনের নয়। এক বছরের কিছু বেশি সময় তিনি এই স্কুলের ছাত্র ছিলেন। জিয়াউর রহমানের পিতা মনসুর রহমান কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিংসে একটি সরকারি দপ্তরে কাজ করতেন। সপরিবারে তিনি কলকাতাতেই থাকতেন। জিয়াউর রহমানের জন্ম এই কলকাতাতেই ১৯৩৬ সালের ১৯শে জানুয়ারি। তবে ১৯৪০ সালে কলকাতা জাপানি বোমারু বিমানের টার্গেটে পরিণত হওয়ায় জিয়াউর রহমানের পিতা পরিবারের সকলকে বগুড়ায় পাঠিয়ে দিয়েছিলেন। তবে  জিয়াউর রহমানের পড়াশুনা বগুড়ার জেলা স্কুলে শুরু হলেও ১৯৪৬ সালে তার পিতা তাকে কলকাতায় নিয়ে এসে হেয়ার স্কুলে ভর্তি করিয়েছিলেন। সেই সময় জিয়াউর রহমানের বয়স ছিল ১০ বছর। পড়তেন পঞ্চম শ্রেণিতে। তবে ১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের পর জিয়াউর রহমানের পিতা পাকিস্তানের নাগরিকত্ব নিয়ে করাচিতে চলে গেলে জিয়াউর রহমানও হেয়ার স্কুল ছেড়ে সেখানে চলে যান। ভর্তি হয়েছিলেন করাচির একাডেমি স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। কলকাতায় জিয়াউর রহমানের সংক্ষিপ্ত অবস্থানকে মনে রেখেছে হেয়ার স্কুল। হেয়ার স্কুল অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক গৌতম বসু জানিয়েছেন, আমরা জিয়াউর রহমানের পরিবারের হাতে সম্মান স্মারকও পৌঁছে দিতে চাই। সেই সঙ্গে তিনি আরো জানান, বাংলাদেশেও হেয়ার স্কুলের যে সব সাবেক ছাত্র রয়েছে তারা এগিয়ে এলে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তভাবে কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে আমরা আগ্রহী।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওআইসি’র ঘোষণা নেতানিয়াহু’র প্রত্যাখ্যান

প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন

ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা

গাজীপুরে মসজিদের ভেতর নৈশ প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা

‘প্রেম’ করে বিয়ে, চাকরি হারালেন শিক্ষক দম্পতি

চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সত্যতা মিলেছে

প্রশ্ন ফাঁস হতো প্রেস থেকে

আবাসিক এলাকায় রাতে হর্ন বাজানোয় নিষেধাজ্ঞা

‘বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনে বাধা নেই’

কুয়ালালামপুরে গ্রেপ্তার ২ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা

জামিনে আপন জুয়েলার্সের তিন মালিক

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

প্রথম ১ মাসে ৬৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে