ফুটবলে উদ্ভট ১০ অজুহাত

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৯ নভেম্বর ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:০৯
ইংলিশ লীগ কাপের চতুর্থ রাউন্ডে উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে ১২০ মিনিটের খেলায় গোলবিমুখ থাকে উড়ন্ত দল ম্যানচেস্টার সিটি। আর  খেলা শেষে ম্যাচের বলকে দোষ দেন ম্যান সিটি কোচ পেপ গার্দিওলা। এটাকে উদ্ভট অজুহাত হিসেবেই দেখছে ইংলিশ মিডিয়া। ফুটবল মাঠে ব্যর্থতার পর খেলোয়াড় বা কোচের উদ্ভট অজুহাত নিয়ে টপ টেন তালিকাটা কেমন হবে?

১০. স্কটিশ প্রজনন
২০১৮’র বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে ব্যর্থ মিশন শেষে চার্লস ডারউইনের তত্ত্ব ভর করে স্কটল্যান্ডের কোচ গর্ডন স্ট্র্যাচানের ওপর। বাছাই পর্বের বিদায়ী ম্যাচে স্লোভেনিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র শেষে স্ট্র্যাচান বলেন, ‘আমরা প্রজননগতভাবেই পিছিয়ে রয়েছি। বাছাইপর্বে স্পেনের পর আমরাই ছিলাম সবচেয়ে খর্বকায় দল।
আমাদের এ নিয়ে কাজ করতে হবে। দীর্ঘকায় পিতামাতার পুত্র সন্তানের খোঁজ করতে হবে আমাদের।’ স্পেন ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ ও বিশ্বকাপের টানা তিন শিরোপার গৌরব কুড়ায় ২০০৮, ২০১০ ও ২০১২তে।

৯. ব্যাঙের ডাক
২০০৬ বিশ্বকাপের কথা। গ্রুপ পর্বে ইউক্রেনের বিপক্ষে ৪-০ গোলে জয় কুড়ায় স্পেন। আর ম্যাচ শেষে ইউক্রেনের ডিফেন্ডার ভ্লাদিস্লাভ ভাশচুক বলেন, আগের সারারাত ঘুমাতে পারেননি তারা। কারণ? হোটেলের বাইরে উচ্চস্বরে ব্যাঙ ডাকছিল। ভাশচুকের অভিযোগে প্রতিক্রিয়া দেখান ওই হোটেলের এক কর্মকর্তা। তিনি বলেন, আমাদের হোটেলের সামনের সরোবরে প্রচুর পাখিও দেখা যায়। সকালে পাখির ডাকে ঠিকই ঘুম ভেঙেছিল তাদের।

৮. বাউন্সি বল
বলের ওপর দোষ চাপানোর ঘটনা দেখা গিয়েছিল আগেও। ১৯৯৮-এ নন-লীগের দল স্টিভেনেজের কাছে ২-১ গোলে হার দেখে নিউক্যাসল ইউনাইটেড। আর হার শেষে নিউক্যাসলের তারকা কোচ টনি ডালগ্লিশ বলেন, বাউন্সি বলের কারণে হার দেখেছে তার দল।

৭. হাল্কা বল
উলভসের বিপক্ষে টাইব্রেকারে জয় শেষে ম্যানচেস্টার সিটির কোচ পেপ গার্দিওলা বলেন, শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় এমন মানের বল অগ্রহণযোগ্য। এমন হাল্কা বলে গোল করা যায় না। এটা আমি না আমার খেলোয়াড়রাই বলেছে।

৬. ধূসর রঙের জার্সি
১৯৯৬ সালের ঘটনা। অ্যাওয়ে ম্যাচে সাউদাম্পটনের বিপক্ষে প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে পিছিয়ে বিরতিতে যায় শক্তিধর দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। আর ম্যানইউ কোচ স্যার অ্যালেক্স ফারগুসন বিরতিতে বলেন, ধূসর রংয়ের অ্যাওয়ে জার্সির কারণে নৈপুণ্য দেখাতে পারেনি তার দল। কারণ ধূসর রংয়ের কারণে খেলয়োড়রা একে অপরকে ঠিক মতো দেখতে পাচ্ছিল না। তাই দ্বিতীয়ার্ধে নীল-সাদা জার্সি গায়ে খেলতে নামে ম্যানইউ। ম্যাচে পরে নৈপুণ্যে উন্নতি দেখায় রেড ডেভিলরা। দ্বিতীয়ার্ধে এক গোল শোধ দিয়ে ৩-১ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে তারা।  

৫. গ্যালারির রঙে আপত্তি
৬৬০০০ দর্শক ধারণক্ষম নিজেদের নতুন স্টেডিয়ামে একের পর এক ম্যাচে  মলিন  নৈপুণ্য দেখাচ্ছিল ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড। এর কারণ কী? ওয়েস্ট হ্যামের ক্রোয়াট কোচ স্লাভেন বিলিচ বলেন, স্টেডিয়ামের মাঠের চারপাশে সবই সবুজ রঙে সজ্জিত। এটা সমস্যা। মাঠের রঙের সঙ্গে মিলে যায় তা। খেলেয়াড়রা বুঝতে পারে না আসলে মাঠের  প্রান্তরেখা কোথায়।

৪. বল বালকের অভাব
ম্যাচ শেষে কখনো ফ্লাডলাইট বা রেফারিকে দোষ দিতে দেখা যায় তাকে। তবে ২০১১তে স্প্যানিশ সুপার কাপে ন্যু ক্যাম্প মাঠে বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসির গোলে হার নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ কোচ হোসে মরিনহো বলেন, ‘আমি সমালোচনা করছি না কিন্তু বলতে চাই ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে কোনো বল বালক ছিল না। আর্থিকভাবে কঠিন সময় কাটাতে থাকা ছোট দলগুলোর ক্ষেত্রে এমন দেখা যায়।’ বার্সেলোনার ন্যু ক্যাম্প স্টেডিয়ামে প্রতি ম্যাচে গড়ে দর্শক উপস্থিতি থাকে ৮০০০০।

৩. মাইকেল জ্যাকসনের ‘লাকি’ ভাস্কর্য
২০১৩তে ৩০০ মিলিয়ন ডলারে ইংল্যান্ডের ফুলহ্যাম ফুটবল ক্লাব কিনে নেন যুক্তরাষ্ট্র নিবাসী পাকিস্তানি ধনকুবের শহীদ খান। আর ক্লাব প্রাঙ্গণ থেকে তিনি নামিয়ে ফেলেন পপ গায়ক মাইকেল জ্যাকসনের মূর্তি। ক্লাবের আগের মালিক মিশরীয় ধনকুবের মোহাম্মদ আল ফায়েদের আমন্ত্রণে ১৯৯৯-এ ফুলহ্যাম ক্লাব পরিদর্শনে যান মাইকেল জ্যাকসন। পরে ফুলহ্যাম ক্লাবের সামনে প্রতিষ্ঠা করা হয় জ্যাকসনের মূর্তি। নতুন মালিকের অধীনে প্রথম বছরে তিনজন কোচ পরিবর্তন করে নিস্প্রভ ফুলহ্যাম আর মৌসুম শেষে পয়েন্ট তালিকার ১৯তম স্থান নিয়ে অবনমিত হয় প্রিমিয়ার লীগ থেকে। এর প্রতিক্রিয়ায় ক্লাবের পুরনো মালিক আল ফায়েদ বলেন, জ্যাকসনের মূর্তিটা ছিল ক্লাবের জন্য সৌভাগ্যসূচক। তা নামিয়ে ফেলে মূল্য দিচ্ছে সে (শহীদ খান)। দল অবনমিত হয়েছে। আমাকে সে ফোন দিয়ে বললো জ্যাকসনের মূর্তি ফের প্রতিষ্ঠা করতে চায় সে। আমি তাকে বলেছি, আর সুযোগ নেই।

২. ভিডিও গেমসের দোষ
১৯৯৭-এ নিউক্যাসলের বিপক্ষে ম্যাচে বাজে ভুলে তিন গোল হজম করলেন লিভারপুলের ইংলিশ গোলরক্ষক ডেভিড জেমস। এতে জাতীয় দলে অনিশ্চয়তার মুখে পড়ে জেমস দেন মজার কৈফিয়ত। বলেন, টেকেন টু  ও টম্ব রাইডার গেমস খেলে সময় নষ্ট হয়েছে তার। তবে ১৯৯৮ বিশ্বকাপের ইংল্যান্ড দলের বাইরেই থাকেন তিনি।  

১. খসখসে মোজা
২০০৪’র ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে ডেনমার্কের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়লো শিরোপা প্রত্যাশী ইতালি। আর ম্যাচ শেষে মোজার দোষ দিলেন ইতালিয়ান ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান পানুচ্চি। বলেন, মোজার কারণে আমার পায়ের গোড়ালিতে ফোসকা পড়ে গেছে। মোজা খুবই খসখসে। যদিও পানুচ্চির সতীর্থ গেন্নারো গাত্তুসো বলেন ভিন্ন কথা। গাত্তুসো বলেন, হাসাবেন না, কেনিয়ার দৌড়বিদেরা খালি পায়ে হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে থাকেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভারতে তিন তালাক বিরোধী খসড়া আইনে সরকারের অনুমোদন

বিরোধীরা আসলেই কাগুজে বাঘ: মোজাম্মেল হক

গাংনী বিএনপি কার্যালয়ে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ

মহান বিজয় দিবস আজ

চট্টলার সিংহপুরুষের বিদায়

রাজধানীতে বৃদ্ধা ও শিশু খুন

বাংলাদেশ জন্ম নিয়েছিল একটা আদর্শ নিয়ে

সবক্ষেত্রে চাই গুণগত সেবা

বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ হতে পারে স্পেন!

কাদের-মওদুদকে ঘিরেই স্বপ্ন দু’দলের

শেষমুহূর্তে তৎপর বিএনপি

ট্রাম্প প্রশাসনের ধর্মীয় পক্ষপাতিত্ব

ইউপিডিএফ ভাঙার নেপথ্যে

মুক্তিযোদ্ধাকে হারিয়ে দুইয়ে শেখ জামাল

সারা দেশে বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচি ১৮ ডিসেম্বর

যেভাবে অপহরণকারীদের হাত থেকে মুক্ত হলেন সিলেটের ব্যবসায়ী মুন্না